দুদক হটলাইনে ৩১৫ অভিযোগ

54

 

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: দুর্নীতি রুখবে-১০৬ এমন স্লোগানে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) চালু হওয়া হটলাইনে অভিযোগ সংখ্যা ৩১৫। একই সঙ্গে ওইসময়ে হটলাইনে কল আসার সংখ্যা ছিল ৯২ হাজার ৪১৫টি। এই অভিযোগ হটলাইনে শুরু থেকে শেষে ৬ আগস্ট পর্য্ন্ত।

সরকারি ছুটির দিনসহ লোকবলের অভাবে অধিকাংশ ফোন কলে অভিযোগকারী বক্তব্য শোনা সম্ভব হয় না।

এদিক, ‘যখনই দুর্নীতির ঘটনা, তখনই অভিযোগ’ জানাতে ফ্রি কল করুন এমন স্লোগানে গত ২৭ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে দুদক হটলাইন। হটলাইন উদ্বোধনের দিনই ফোন আসে ৪ হাজার ৯৫১টি। হটলাইন-১০৬ উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সরকারি অফিস চলাকালীন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দুদকের হটলাইন-১০৬ নম্বরে ফ্রি কল করা যাবে। হটলাইনে অভিযোগকারীর নাম, ঠিকানা বা পরিচয় কোনো অবস্থাতেই প্রকাশ করা হবে না। কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের তিন তলায় হটলাইন স্থাপন করা হয়েছে। হটলাইন ব্যবস্থাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন দুদকের সহকারী পরিচালক সেলিনা আক্তার মনি।

সোমবার হটলাইন-১০৬ প্রসঙ্গে সিস্টেম এনালাইসিস্ট রাজীব হাসান বিজনেসআওয়ারকে বলেন, হটলাইন চালু হওয়ার পর মানুষের সচেতনতা বেড়েছে। মানুষের অভিযোগ প্রবণতা বেড়েছে। হটলাইন উদ্বোধনের পর থেকে এ পর্য্ন্ত তিনশর বেশি অভিযোগ আমরা হটলাইন থেকে কমিশনে জমা দিয়েছি। দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধ না হওয়ায় অধিকাংশ অভিযোগ গ্রহণ সম্ভব নয়। তবে আমরা অভিযোগকারী সবধরনের তথ্য গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা আনছি।

একই প্রসঙ্গে দুদক সচিব আবু মো. মোস্তফা কামাল বলেন, হটলাইন চালু হওয়ার পর দুদক ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। হটলাইনে আমাদের কাছে জনগণ ফোন করে অভিযোগ জানাচ্ছেন। সবস্তরের জনগনের মধ্যে এখন দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে উঠছে। দুদকের তফসিলভুক্ত না হওয়ায় অনেক অভিযোগ আমরা গ্রহণ করতে পারি না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের কাছে সবচেয়ে বেশি অভিযোগ আসছে ভূমি ব্যবস্থাপনায় অনিয়ম নিয়ে। এছাড়াও হয়রানি, জন্ম নিবন্ধন পেতে ঘুষ প্রদান ও পুলিশ সেবায় দুর্নীতি ইত্যাদি বিষয়ে অভিযোগ আসছে। সব অভিযোগ আমাদের কর্মকর্তারা গুরুত্ব দিয়ে শুনছে। প্রযু্ক্তিগত সীমাবদ্ধতার কারণে সবার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হচ্ছে না। তবে অভিযোগকারী সুবিধার জন্য হটলাইনের কল রেকর্ডের সুবিধা রাখা হয়েছে।
বিজনেস আওয়ার/এমএজেড

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here