বন্যার কারণে পেঁয়াজের দাম বাড়ল

43

 

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ও ভারতে বন্যার কারণে ২৫-৩০ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজ এখন ৪০-৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি ১৫-২০ টাকা বেড়ে গেছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারতে পণ্যটির দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশেও এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। দেশি পেঁয়াজের পাশাপাশি ভারতীয় পেঁয়াজ দিয়ে বাংলাদেশের চাহিদা মেটে।

এ দিকে ঈদুল আজহার আগে পেঁয়াজের দাম এভাবে বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি আলোচনা হয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে। গতকাল মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই মূল্যবৃদ্ধির কারণ বাংলাদেশ ও ভারতে বন্যা।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে গতকাল প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৪৫-৫০ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ৪০ টাকা দরে বিক্রি করতে দেখা যায়। দুই সপ্তাহ আগেও প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৩০ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ২৫ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে বলে জানান কারওয়ান বাজারের বিক্রেতা মো. মামুন।
৪ আগস্ট ভারতীয় পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে বলা হয়, ভারতের মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁও পাইকারি বাজারে এক দিনে পেঁয়াজের দাম ৮১ শতাংশ বেড়ে কেজিপ্রতি ২৩ রুপি হয়েছে। অবশ্য এ প্রবণতা বেশ আগে থেকেই চলছে। ফলে দেশটির সব রাজ্যেই পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করেছে।

বাংলাদেশে বছরে প্রায় ২২ লাখ টন পেঁয়াজের চাহিদা আছে। এর মধ্যে দেশে হয় প্রায় ১৮ লাখ টন। ব্যবসায়ী রতন সাহা জানান, ভারতে দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেকে চীন, মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানির চেষ্টা করছেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে কমিটির সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। এতে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ এবং ভারত দুই দেশেই বন্যা হয়েছে। যে কারণে দেশে উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ভারত থেকে সাধারণত পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। সেখানেও বন্যা। তিনি বলেন, গত বছর এই সময়ে দেশে পেঁয়াজের যে দাম ছিল, সে তুলনায় এ বছর দাম এখনো কম আছে। পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি এখনো উদ্বেগজনক নয়।
বিজনেসআওয়ার/এমএজেড

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here