ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ৮ কার্তিক ১৪২৫

ss-steel-businesshour24
Runner-businesshour24

যে ব্যথা কখনোই উপেক্ষা করা উচিত নয়

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ১০ ১৩:০৫:০৩

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক : যে ব্যথা জীবন হুমকিমূলক শারীরিক দশার ইঙ্গিত দেয় তা সাধারণত তীব্র, হঠাৎ আরম্ভ এবং অন্যান্য উপসর্গ ও লক্ষণের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত হয়ে থাকে। এ প্রতিবেদনে দ্রুত মেডিক্যাল সেবা প্রয়োজন এমন ১০টি ব্যথা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

* মাথায় ব্যথা

যদি আপনার মাথায় হঠাৎ করে অসহনীয় তীব্র ব্যথা শুরু হয়, তাহলে আপনার ব্রেইন অ্যানিউরিজম থাকতে পারে। ব্রেইন অ্যানিউরিজম হচ্ছে, কোনো আর্টারির প্রাচীরে স্ফীতি বা পিণ্ড। কোনো চিকিৎসা করা না হলে এ রক্তনালী ফেটে যেতে পারে, যার ফলে প্রাণনাশক স্ট্রোক অথবা মস্তিষ্কে বড় ধরনের রক্তপাত হতে পারে। অবিলম্বে অ্যাম্বুলেন্স ডাকুন।



* দাঁতে ব্যথা
আপনার এনামেল বা দাঁতের বাইরের স্তরে ড্যামেজ বা ক্ষয় হলে দাঁতের ভেতরের স্নায়ু অনাবৃত হয়ে যেতে পারে, এর ফলে এ স্থান কোনো ঠান্ডা বা গরম পদার্থের সংস্পর্শে আসলে আপনার অসহ্য ব্যথা হতে পারে, এ কারণে আপনি কোনোকিছু পান করলে ব্যথা অনুভব করবেন। সংবেদনশীলতা ছাড়াও অনাবৃত স্নায়ু আপনাকে ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের ঝুঁকিতে রাখতে পারে, যা আপনার শরীরের অন্যান্য অংশেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। আপনার ডেন্টিস্টকে দেখান যদি তীব্র দাঁত সংবেদনশীলতা শুরু হয়।

* হাত, কবজি ও বাহুতে ব্যথা
যদি কোনো ব্যথা বা অসাড়তা আপনার আঙুল (বিশেষ করে বুড়ো আঙুল, তর্জনি ও মধ্যমা), হাতের তালু ও কবজিকে প্রভাবিত করে এবং বাহুতে ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে আপনার কার্পাল টানেল সিন্ড্রোম থাকতে পারে। চিকিৎসা না করলে হাতের মাংসপেশী সংকুচিত হতে পারে এবং এমনকি আপনার হাতের কার্যক্ষমতাও হারাতে পারেন। চিকিৎসার জন্য যত দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের কাছে যান।

* বুকে ব্যথা
বুক ব্যথা হচ্ছে হার্ট অ্যাটাকের ক্লাসিক লক্ষণ। হার্ট বা হৃদপিণ্ডে পর্যাপ্ত অক্সিজেন না পৌঁছলে হার্ট অ্যাটাক হয়ে থাকে। এ ব্যথা চোয়াল, কাঁধ ও গলা বা ঘাড়ের দিকেও অগ্রসর হতে পারে। অবিলম্বে ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন।

* মধ্যপিঠে ব্যথা
যদি মধ্যপিঠের ব্যথা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে এবং সেই সঙ্গে জ্বর ও বমিবমি ভাব থাকে, তাহলে আপনার সম্ভবত কিডনি ইনফেকশন হয়েছে। যথা শিগগির সম্ভব ডাক্তার দেখান। এই ইনফেকশন কিডনিকে স্থায়ীভাবে ড্যামেজ করতে পারে, রক্ত দূষিত করতে পারে অথবা কিডনির কার্যক্রম সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করে দিতে পারে।

* নিম্নপিঠে ব্যথা
যে ব্যথা পিঠের নিম্নভাগে শুরু হয় এবং পা-কে প্রভাবিত করতে পারে তা সাধারণত সায়েটিকা বা নিতম্ববেদনার লক্ষণ। ব্যথা নিয়ন্ত্রণ ও চিকিৎসার জন্য আপনার ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন। এছাড়া পায়ে দুর্বলতা থাকলে, ব্লাডার সেনসেশন বা মূত্রথলির অনুভূতি হারিয়ে গেলে অথবা প্রস্রাব নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে আপনার কাউডা একুইনা সিন্ড্রোম থাকতে পারে, এটি একটি বিরল রোগ যা স্থায়ী প্যারালাইসিসের কারণ হতে পারে। অবিলম্বে মেডিক্যাল পরীক্ষা করুন।

* তলপেটে ডানদিকে ব্যথা
আপনার তলপেটের ডানদিকে ব্যথা করলে এবং সেই সঙ্গে জ্বর, বমিবমি ভাব অথবা বমি হলে আপনার সম্ভবত অ্যাপেন্ডিসাইটিস আছে। অ্যাপেন্ডিক্স ফেটে গেলে জীবনহুমকিমূলক ইনফেকশন হতে পারে। ডাক্তারের কাছে ভিজিট করুন, তিনি আপনাকে সার্জারির কথা বলতে পারেন।

* তলপেটে ব্যথা
অনেক নারীর ক্ষেত্রে মেন্সট্রুয়েল ক্র্যাম্প বা মাসিকের সময় তলপেটে ব্যথা হওয়া স্বাভাবিক। যদি ব্যথা আরো বাড়তে থাকে অথবা ব্যথা দূর না হয়, তাহলে আপনার এন্ডোমেট্রিওসিস থাকতে পারে, এটি এমন এক অবস্থা যেখানে জরায়ুর ভেতরে যে টিস্যু থাকার কথা তা জরায়ুর বাইরেও বিকাশলাভ করে। ডায়াগনোসিস করার জন্য অবস্টেট্রিশিয়ান-গাইনিকোলজিস্টের শরণাপন্ন হোন, অন্যথায় আপনার বন্ধ্যাত্বের ঝুঁকি বৃদ্ধি পাবে।

* পায়ে ব্যথা
যদি আপনার পায়ে নিস্তেজ বা খিঁচুনিযুক্ত ব্যথা হয় এবং সেই সঙ্গে লালতা, উষ্ণতা ও ফোলা থাকে, তাহলে আপনার ডিপ ভেইন থ্রম্বসিস (ডিভিটি) নামে রক্ত জমাটবদ্ধতা থাকতে পারে, এর জন্য আপনাকে আল্ট্রাসাউন্ড করতে হবে। ব্যথার স্থানে ম্যাসাজ করবেন না, কারণ এতে রক্ত জমাটবদ্ধতা আপনার হৃদপিণ্ড বা ফুসফুসে চলে যেতে পারে।

* পায়ের পাতায় ব্যথা
যদি আপনার পায়ের পাতায় অসাড়তা, প্রদাহ অথবা পিন বা সুই বা সুচ ফোটানোর মতো যন্ত্রণা হয়, তাহলে সম্ভবত ডায়াবেটিসের কারণে আপনার স্নায়ু ড্যামেজ হয়েছে। এমনকি আপনি পায়ের সব ধরনের অনুভূতি হারাতে পারেন। ডাক্তারের কাছে যান, তিনি আপনাকে ব্লাড গ্লুকোজ টেস্টের কথা বলবেন। আক্রান্ত অংশ কেটে ফেলার প্রয়োজন হবে যদি ড্যামেজ খুব বেশি হয়।


বিজনেস আওয়ার /১০ ফেব্রুয়ারি / জেএইচ

উপরে