ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১ ফাল্গুন ১৪২৪


বুক বিল্ডিং পদ্ধতি সময় সাপেক্ষ-মির্জা আজিজ

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ১২ ১৬:১৫:৩৮

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : শেয়ারবাজার থেকে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে অর্থ সংগ্রহ করা সময়সাপেক্ষ বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান এবিমির্জা আজিজুল ইসলাম। তবে আগে বুক বিল্ডিং পদ্ধতি ছাড়াই ভালো কোম্পানিকে ভালো প্রিমিয়ামে টাকা উত্তোলন করতে পেরেছে। ওই সময় সহজেই টাকা সংগ্রহ করা গেছে।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ফারস হোটেলে অনলাইন বিজনেস পোর্টাল বিজনেসআওয়ার২৪.কম আয়োজিত ‘শিল্পায়নে আইপিও’র গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এ কথা বলেন।এতে সভাপতিত্ব করেন বিজনেস আওয়ার২৪.কমের উপদেষ্টা ও ওমেরা অয়েলের সিইও আক্তার হোসেন সান্নামাত।

তিনি বলেন, পৃথিবীর সবদেশেই শেয়ারবাজারে কিছু সমস্যা হয়। আমাদের দেশেও হয়। কিছুদিন আগেও শেয়ারবাজারে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। তবে সেটা আশঙ্কাজনক না। এখন শেয়ারবাজার সুষ্ঠভাবে চলছে। এমতাবস্থায় বিনিয়োগ করলে বড় ক্ষতি হবে না।

তিনি আরও বলেন, আইপিওর মাধ্যমে অর্থ উত্তোলন একটি দেশের শিল্পায়ন বা সার্বিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তবে শেয়ারবাজার হচ্ছে অর্থ সংগ্রহের একটা মাধ্যম। অন্যটি হলো ব্যাংক ঋণ।

কোনো কোম্পানি তার বর্তমান অবস্থা সম্প্রসারণ বা নতুন কোনো উৎপাদনের জন্য শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে থাকে বলে জানান মির্জা আজিজুল ইসলাম। কিন্তু আমাদের দেশে বড় অন্তরায় হচ্ছে বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ স্থগিত হয়ে আছে। বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ স্থগিতের কারণে গত ৮ বছরে দেশে জিডিপির আনুপাতিক হার মাত্র ১ শতাংশ বেড়েছে। এর পেছনে জমির সমস্যা, অবকাঠামোগত সমস্যা, গ্যাস ও বিদ্যুতে সমস্যা, সুশাসনের সমস্যা, দক্ষ জনশক্তির অভাবসহ বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে। যদি এসব সমস্যা অনেকাংশে লাঘব না হয় এবং বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ না বাড়ে তবে শেয়ারবাজার থেকে কাঙ্খিত ভূমিকা প্রত্যাশা করা যায় না।

বিএসইসির সাবেক এই চেয়ারম্যান মনে করেন, বাংলাদেশে ৫৮টি হিসেবে মার্চেন্ট ব্যাংকের সংখ্যা বেশি। যা ঠিক না। আর এই মার্চেন্ট ব্যাংকগুলো আইপিও অনুমোদন ফাইল জমা দিলেই হবে না, ডিউ ডেলিজেন্স পালন করার বিষয়টি দেখতে হবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, বিএসইসি বাজার নিয়ন্ত্রণ করে ও উৎসাহ প্রদান করে। যা স্বার্থের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। তারপরেও ভালো কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে আনার জন্য বিএসইসির সমঝোতা করা উচিত। এতে শেয়ারবাজার সমৃদ্ধ হবে।

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হলে, কোম্পানির অনেক জবাবদিহিতা বাড়ে বলে জানিয়েছেন মির্জা আজিজুল ইসলাম। এছাড়া পারিবারিক নিয়ন্ত্রন কমে আসে। যে কারনে অনেক উদ্যোক্তা শেয়ারবাজারে আসতে চায় না।

বিজনেসআওয়ার২৪.কমের প্রধান উপদেষ্টা ও ওমেরা ফুয়েলস লিমিটেডের প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা (সিইও) আকতার হোসেন সান্নামাতের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সাবেক সাধারন সম্পাদক ও গাজী টিভির প্রধান প্রতিবেদক রাজু আহমদ।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বিএসইসির সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ সিদ্দিকী, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্ণর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ ও বিএসইসির কমিশনার ড. স্বপন কুমার বালা উপস্থিত ছিলেন। প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মাহমুদ ওসমান ইমাম (এফসিএমএ), বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের ফার্স্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ ও আইডিএলসি ইনভেষ্টমেন্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান।

বিজনেস আওয়ার/আরএ/পিএস

উপরে