ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫


যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হব আমি!

২০১৮ মার্চ ১৪ ১০:২৮:২৮

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ নাম ইউসুফ দাইয়ুর। বয়স মাত্র ১৪ বছর। এ বয়সেই স্বপ্ন দেখেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হওয়ার। যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটায় বসবাসকারী ইউসুফ ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। খবর-বিবিসি'র।

২০১৫ সালে রিপাবলিকান রাজনীতিবিদ বেন কার্সন বলেছিলেন, কোনো মুসলিম যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডন্ট হতে পারবেন না। এই জাতির জন্যে আমি কখনও কোন মুসলিমকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখতে চাইবো না।

সেই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ইউসুফ এক ভিডিও বানিয়ে বলেন, আমি হতে চাই যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট। এই ভিডিওটি ইউটিউব ও ফেসবুকে তখন ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। সোমালিয়ান আমেরিকান এই কিশোর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য নিচের পরিকল্পনার কথা জানান বিবিসিকে।

তিনি বলেন, আমি হাইস্কুলে পড়ালেখা শেষ করে কলেজে পড়তে চাই। অপরাধবিজ্ঞান নিয়ে পড়তে চাই। তারপর ল'স্কুল শেষ করে কয়েক বছর আমি স্থানীয় নির্বাচনে অংশ নিতে চাই। এরপর পর্যায়ক্রমে রাজ্যে, কেন্দ্রে এবং সবশেষে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রচারণা চালানোর জন্য ইতোমধ্যেই ‘ইউসুফ রেসপন্স’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন তিনি। এখানে আপাতত প্রচারণাসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নানা ইস্যু নিয়ে কথা বলে ভিডিও পোস্ট করেন এই চ্যানেলে।

ইউসুফ বলেন, আপনি যদি পরিবর্তন চান এবং জনগণের সঙ্গে কথা বলতে চান, তাহলে তাদেরকে সম্মান করতে হবে। আমার মনে হয় আমাদের এটার অভাব আছে, বিশেষ করে সমকালীন বিশ্ব রাজনীতিতে।

কৃষ্ণাঙ্গদের যে বাধা ছিল ওবামা সেটা ভেঙেছেন। মুসলমানদের নিয়ে যে বাধা আমি সেটা ভাঙবো। আমরা সবাই আমেরিকান, আমরা সবাই সমান।

সর্বশেষ পোস্ট করা ইউটিউব ভিডিওতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের আফ্রিকার মুসলিম দেশগুলো সম্পর্কে বক্তব্যের প্রতিবাদে ইউসুফ বলেন, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, আফ্রিকার মুসলিম দেশগুলো সম্পর্কে আপনার বক্তব্যে আমি হতাশ হয়েছি। ইউসুফ বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্যকে বর্ণবাদে অভিযুক্ত করেন।

তিনি বক্তব্যে আরও বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, আপনি হচ্ছেন সারা পৃথিবীতে আমেরিকার প্রতীক, আপনি যেভাবে আফ্রিকার দেশগুলোকে উদ্দেশ্য করে গালি দিয়েছেন, আমার মনে হয় না আমেরিকা এই নীতিতে বিশ্বাসী। আমেরিকা সবার জন্য স্বাধীনতা আর ন্যায়বিচারে বিশ্বাসী।

এইবার আসুন জনাব ট্রাম্প, আমি আপনাকে আফ্রিকার দীর্ঘকালের সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির ইতিহাস শেখাব।


বিজনেস আওয়ার / ১৪ মার্চ ২০১৮ / এমএএস



উপরে