ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


শাকিবকে বাদ দিয়েই মামলার প্রতিবেদন দাখিল

২০১৮ মার্চ ১৪ ১৩:২৩:২৩

বিজনেস আওয়ার (হবিগঞ্জ) প্রতিবেদকঃ হবিগঞ্জের অটোরিকশা চালক ইজাজুল মিয়ার দায়ের করা মামলা থেকে ঢাকাই ছবির কিং শাকিব খানকে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়া হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির ওসি শাহ আলম আজ বুধবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সম্পা জাহানের আদালতে এ অভিযোগপত্র জমা দেন। এতে রাজনীতি সিনেমার পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস ও প্রযোজক আশফাক আহমেদকে অভিযুক্ত করা হয়।

এ ব্যাপারে মামলার বাদি ইজাজুল মিয়া বলেন, মামলার ১ নম্বর আসামী শাকিব খানকেই নাকি বাদ দিয়ে মামলার প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। আমি শাকিব খানকেই চিনি। অন্য কাউকে চিনিনা।

কে তাকে নাম্বার দিয়েছে, আর তিনি বলেছেন তা আমার জানার দরকার নেই। আমি চাই শাকিব খানকে আসামী করা হোক। এখন আইনজীবীর সাথে পরামর্শ করে এর বিরুদ্ধে নারাজি দেব।

মামলার বাদিপক্ষের আইনজীবী এমএ মজিদ জানান, নায়ক শাকিব খান এক নম্বর আসামী। তার মুখ থেকেই মোবাইল নাম্বারটি উচ্চারিত হয়েছে। তাকে বাদ দিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করা সমিচিন হয়নি। আমরা প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ সময় বাদিপক্ষের আইনজীবী আরও বলেন, পরিচালক প্রযোজক যা বলবেন তাই নায়ক নায়িকা উচ্চারণ করবেন তা হতে পারে না। এক্ষেত্রে নায়ক নায়িকারও সচেতনতার প্রয়োজন রয়েছে। সিনেমায় পূর্ণ ডিজিটের একটি মোবাইল নাম্বার উচ্চারনের ক্ষেত্রেও এমন সচেতনতার প্রয়োজন ছিল।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, শাকিব খানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মানহানী ও প্রতারণার মামলায় বুধবার প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। প্রতিবেদনে নায়ক শাকিব খানকে বাদ দেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে ৩ আসামীর মধ্যে রাজনীতি সিনেমার পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস ও প্রযোজক আশফাক আহমেদকে প্রাথমিকভাবে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

বুধবার মামলার শুনানীর সময় বাদিপক্ষ থেকে নারাজী দেয়া হবে বলে আদালতকে জানানো হয়। শুনানীর সময় আদালত জানতে চান, এ ঘটনায় নায়ক শাকিব খানের কি সম্পৃক্ত রয়েছে। তিনি তো পরিচালক ও প্রযোজকের নির্দেশনায় শুধু শব্দ উচ্চারণ করেছেন মাত্র।

মামলার বিবরণে জানা যায়, রাজনীতি সিনেমায় নায়ক শাকিব খান নায়িকা অপু বিশ্বাসকে উদ্দেশ্য করে একটি মোবাইল নাম্বার বলেন। সে মোবাইল নাম্বারের মালিক হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ের ইজাজুল মিয়া।

ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর থেকে নায়ক শাকিব খান ভেবে অনবরত ফোন আসতে থাকে ইজাজুল মিয়ার নাম্বারে। অতিষ্ট ইজাজুল মিয়া থানায় জিডি করেন।

মোবাইল ফোন ব্যস্ত থাকার কারণে সিএনজি অটোরিকশা চালকের চাকরি হারান। সংসার ভাঙ্গার উপক্রম হয়। এক পর্যায়ে গত বছরের ২৯ অক্টোবর নায়ক শাকিব খান, রাজনীতি সিনেমার পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস, প্রযোজক আশফাক আহমেদের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও মানহানির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন ইজাজুল মিয়া।


বিজনেস আওয়ার / ১৪ মার্চ ২০১৮ / এমএএস

উপরে