ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


দুই স্বল্প মূলধনী কোম্পানির মুনাফায় চমক

২০১৮ এপ্রিল ১৫ ২০:০০:০৪

বিজনেস আওয়ার: মুনাফায় চমক দেখিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত দু্ই স্বল্প মূলধনী কোম্পানি। কোম্পানি দু’টি গত অর্থবছরে এবং চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে যে পরিমাণ মুনাফা করেছে, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর তা সর্বোচ্চ। কোম্পানি দুটি হলো- ন্যাশনাল টি কোম্পানি (এনটিসি) ও ফার্মা এইড লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ফার্মা এইড লিমিটেড : ৩০ জুন ২০১৭ অর্থবছরে ফার্মা এইড লিমিটেড শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ৯.৪৮ টাকা। যা পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর সর্বোচ্চ মুনাফা।

এদিকে, চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৭) ফার্মা এইড শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ৮.০৫ টাকা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি মুনাফা ছিল ৪.৯০ টাকা। এ সময়ে মুনাফায় প্রবৃদ্ধি এসেছে ৬৪.২৮ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের ছয় মাসের মুনাফা পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর ৬ মাসের হিসাবে সর্বোচ্চ।

উল্লেখ্য, বিদায়ী অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা ছিল ৯.৪৮ টাকা। আর চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ৮.০৫ টাকা। অর্থাৎ ৬ মাসেই বিদায়ী অর্থবছরের মুনাফা প্রায় ছুঁয়ে ফেলেছে কোম্পানিটি।

ফার্মা এইডের মোট শেয়ার সংখ্যা ৩১ লাখ ২০ হাজার। এর মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে রয়েছে ২৪.২২ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৩.৩৮ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৭২.৪০ শতাংশ শেয়ার।


ন্যাশনাল টি কোম্পানি: ৩০ জুন ২০১৭ অর্থবছরের ন্যাশনাল টি কোম্পানির শেয়ারপ্রতি মুনাফা ছিল ১২.০৩ টাকা (৬ মাসে)। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর (৬ মাস হিসাবে) এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মুনাফা।

এদিকে, চলতি অর্থবছরের দুই প্রান্তিকে (জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৭) ন্যাশনাল টি কোম্পানি শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ২৫.১৮ টাকা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারপ্রতি মুনাফা ছিল ২০.৪২ টাকা। মুনাফায় প্রবৃদ্ধি এসেছে ২৩.৩১ শতাংশ। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর ছয় মাসের হিসাবে এটি কোম্পানিটির সর্বোচ্চ মুনাফা।

ন্যাশনাল টি কোম্পানি একটি রাষ্ট্রায়াত্ব প্রতিষ্ঠান। এর মোট শেয়ার সংখ্যা ৬৬ লাখ। এরমধ্যে সরকারি ও উদ্যোক্তা অংশ মিলিয়ে ৫৫.০৫ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৯.৩৭ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৩৫.৫৮ শতাংশ শেয়ার।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, সাধারণত এক কোটি শেয়ার বা পরিশোধিত মূলধন ১০ কোটি টাকার কম থাকা কোম্পানিকে স্বল্প মূলধনী কোম্পানি হিসাবে বিবেচনা করা হয়। বর্তমানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩১২টি কোম্পানির মধ্যে ২৯টি কোম্পানি হলো স্বল্প মূলধনী কোম্পানি, যেগুলোর শেয়ার সংখ্যা ১ কোটির কম বা পরিশোধিত মূলধন ১০ কোটি টাকার কম। কোম্পানিগুলো হলো-মুন্নু স্ট্যাফলার্স, স্টাইলক্রাপ্ট, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট, সাভার রিফ্রেক্টরিজ, রেনউেইক যজেনশ্বর, জুট স্পিনার্স, এ্যাম্বি ফার্মা, জেমিনি সী ফুড, ফার্মা এইড, ন্যাশনাল টি কোম্পানি, বিডি অটোকার্স, নর্দার্ন জুট, কে এন্ড কিউ, সোনালী আঁশ,শ্যামপুর সুগার, জিলবাংলা সুগার, ইমাম বাটন, দেশ গার্মেন্টস, জিকিউ বলপেন, দুলামিয়া কটন, এরামিট লিমিটেড, এএমসিএল (প্রাণ), এপেক্স স্পিনিং, বঙ্গজ, আজিজ পাইপস, বিডি ল্যাম্প, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক ও রংপুর ফাউন্ড্রি।

স্বল্প মূলধনী এ ২৯টি কোম্পানির মধ্যে মাত্র ৪টি কোম্পানির মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ৪০ এর নীচে। অবশিষ্ট কোম্পানিগুলোর পিই ৪০ এর বেশি। পিই ৪০ এর নিচে থাকা কোম্পানিগুলো হলো- এনটিসি ১২.৪১, এএমসিএল (প্রাণ) ২৮.৯২, ফার্মা এইড ২৯.৫৮ এবং রংপুর ফাউন্ড্রি ৩১.৯৩।

বিজনেস আওয়ার/এসএম

উপরে