ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


পুলিশ স্বামীর পরকীয়ার প্রতিবাদে রাস্তায় স্ত্রী-সন্তান

২০১৮ মে ১৭ ১৫:১৯:২০

বিজনেস আওয়ার (গাজীপুর) প্রতিবেদকঃ পুলিশ কর্মকর্তা স্বামীর বিরুদ্ধে পরকীয়া ও নারী নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন গাজীপুরের শ্রীপুরে এক গৃহবধূ। নির্যাতনের শিকার তার স্ত্রী শিশু সন্তানকে নিয়ে শহরের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি ভাস্কর্যের সামনে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছেন।

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কার্যালয়ের পাশে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি ভাস্কর্য 'স্মৃতিসৌধ-৭১' প্রায় ঘণ্টাখানেক অবস্থান নেন। এসময় গৃহবধূ রিতা আক্তার জানান, পুলিশ কনস্টেবল আব্দুল আজিজের সঙ্গে ২০০৯ সালে আমার বিয়ে হয়। আজিজের বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ জেলার গুয়াটোবা গ্রামে।

বিয়ের পর থেকেই সে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করতে থাকে। স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আমি যৌতুকের দাবি পূরণ করি। পুলিশ কনস্টেবল থেকে পদোন্নতি পেয়ে আজিজ সাব-ইন্সপেক্টর হন। এরপর থেকে সে আরো বেপরোয়া হয়ে পড়ে। আমার কাছে ফের যৌতুক দাবি করে। দিতে অস্বীকার করলে মারপিট করে।

খাবার খাইতে দিত না। এমন পর্যায়ে তাকে নগদ তিন লাখ টাকা ও কমপক্ষে তিন লাখ টাকার আসবাবপত্র এনে দিতে বাধ্য হয়। পরকীয়া প্রেমিকার ছবি দেখিয়ে রিতা বলেন, এই মেয়ের সঙ্গে আমার স্বামী পরকীয়ার সম্পর্ক গড়েছেন।

কোনো উপায়ান্তর না দেখে রিতা তার তিন বছরের শিশু সন্তান আনন্দকে নিয়ে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কেওয়া গ্রামে বাবা-মায়ের বর্তমান বাসায় আশ্রয় নেন। আজিজ সেখানে গিয়েও রিতাকে মারধর করে এবং সংসারের ভরণপোষণ দেওয়া বন্ধ করে দেয়।

স্বামীর নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে রিতা আক্তার পুলিশ সদর দপ্তরে অভিযোগ করেন। কিন্তু তাতেও আজিজের নির্যাতন কমেনি। ফলে বাধ্য হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিমের আদালতে বিচার প্রার্থনা করেন। আজিজ বর্তমানে খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ লাইনে চাকরি করছেন।

বিজনেস আওয়ার/১৭মে/এমএএস

উপরে