ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫


কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায়

২০১৮ মে ৩০ ২০:২৭:৩৩

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ কাশি মূলত শ্বাসনালীর প্রদহের এবং ফুসফুসে জীবাণুর প্রবেশ ঘটলেই হয়ে থাকে। কিন্তু মাঝে মাঝে কাশি এমন অবস্থা তৈরি করে, যে তা একবার শুরু হলে আর বন্ধ হতে চায় না। একটানা কাশি খুব বিরক্তিকর পরিস্থিতি তৈরি করে।

সাধারণত ঠাণ্ডা ও ফ্লুয়ের কারণে কাশি হয়। তবে অ্যালার্জি, অ্যাজমা, এসিড রিফ্লাক্স, শুষ্ক আবহাওয়া, ধূমপান, এমনকি কিছু ওষুধ সেবনের ফলেও এ সমস্যা তৈরি হতে পারে।

আসুন আমরা জেনে নেই কাশি দূর করার কিছু ঘরোয়া উপায়ের কথা।

লবঙ্গ (লং) মুখে রাখুন:

আমরা যে লং তরকারিতে খায় তার একটি চমৎকার ক্ষমতা আছে এ বিষয়ে। যা আপনার কন্ঠ নালীকে পরিষ্কার করে কাশি থেকে মুক্তি দিতে পারে তাৎক্ষণিক। মুখে রাখার ফলে এক প্রকার পদার্থ নিঃসরণ করে আপনার শান্তি নিশ্চিত করে।

মধু ব্যবহার করুন:

মধু কাশি কমাতে সাহায্য করে এবং গলাব্যথা কমায়। বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়, মধু কখনো কখনো কাশিরোধী ওষুধগুলোর চেয়েও ভালো কাজ করে। মধু শ্লেষ্মা কমাতে সাহায্য করে। তবে এক বছরের নিচের শিশুদের মধু খাওয়াবেন না। এতে খাদ্য বিষাক্ত হওয়ার সমস্যা হতে পারে। কাশি কমাতে এক কাপ লেবুমিশ্রিত চায়ের মধ্যে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে পারেন।

হলুদ:

কাশি নিয়ন্ত্রণে হলুদ রীতিমতো ঐতিহাসিক ঘরোয়া উপাদান! এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া এবং এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে পারেন। এটি দ্রুত কাশি কমাতে সাহায্য করে।

আদা ও লেবুর শরবত:

কাশি কমাতে লেবুর শরবতের মধ্যে আদা কুচি মিশিয়ে খেতে পারেন। আদা শ্লেষ্মা দূর করতে সাহায্য করে। এর মধ্যে এক চা চামচ মধুও মেশাতে পারেন।

পানি পান করুন:

অতিরিক্ত কাশির সময় পানি পান আপনাকে আরাম দিতে পারে। সাথে সাথে আপনার কাশি বন্ধ হয়ে যাবে।

অবস্থার পরিবর্তন করুন:

খুব বেশী কাশি শুরু হলে আপনি সাথে সাথে অবস্থার পরিবর্তন করুন। শুয়ে থাকলে বসে পড়ুন। আর বসে থাকলে দাড়িয়ে যান। এতে খুব ভালো ফল পাবেন আপনি।

বিজনেস আওয়ার/৩০মে/আর আই

উপরে