ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫

৩য় সর্বোচ্চ অবস্থানে শেয়ার দর ও পিই

মুন্নু জুট থেকে বিনিয়োগ ফেরতে লাগবে ৫৬২ বছর

২০১৮ জুন ০৩ ১০:৫১:১১

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : স্বল্প মূলধন ও রাইট ইস্যুর গুজবে আকাশচুম্বি দরে অবস্থান করছে মুন্নু জুট স্টাফলার্সের শেয়ার দর। যে দরের বিনিয়োগ ফেরত পেতে ৫৬২ বছর লাগবে। এমন ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা কোম্পানিটির শেয়ার দর গত ২ মাসে ১৮১ শতাংশ বেড়েছে।

মুন্নু জুটের মুনাফা স্বাভাবিক হলেও শেয়ার দর রয়েছে অতি মুনাফা করা কোম্পানিগুলোর সারিতে। বর্তমানে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩৪২টি কোম্পানির মধ্যে শেয়ার দরে ৩য় অবস্থানে রয়েছে মুন্নু জুট। এর উপরে রয়েছে শুধুমাত্র ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো ও বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ।

ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর সর্বশেস অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয় ১৩০.৫০ টাকা। আর বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশের ইপিএস হয় ৭৭.১০ টাকা। সেখানে মুন্নু জুটের ইপিএস হয় ০.৫৭ টাকা। তবে কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর অবস্থান করছে যথাক্রমে ৩৩৯৪.৬০ টাকা, ২৫০৮.৩০ টাকা ও ২২০৯.৭০ টাকায়।

মুনাফার তুলনায় শেয়ার দর এগিয়ে মুন্নু জুট। কোম্পানিটির শেয়ার দরের তুলনায় ৩য় সর্বোচ্চ দরে অবস্থান করছে। যার মূল্য-আয় (পিই) অনুপাত রয়েছে ৫৬১.৭৯তে। যাতে কোম্পানিটির বর্তমান দরের বিনিয়োগ ফেরত পেতে প্রায় ৫৬২ বছর লাগবে। এর চেয়ে বেশি পিই’র কোম্পানি ২টি হল-সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ ও সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারী। এরমধ্যে সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারীর পিই ১৪৭৩ ও সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের পিই ১৩২৭.৫০তে রয়েছে।

আরও পড়ুন...

নেপথ্যে কারসাজি না মূল্য সংবেদনশীল তথ্য

লিগ্যাছির অতিরঞ্জিত মুনাফা

কুইন সাউথের কমেছে মুনাফা, বাড়ছে শেয়ার দর

গত ২৯ মার্চ বা ২ মাস আগে মুন্নু জুটের শেয়ার দর ছিল ৭৮৭.৬০ টাকা। যা ৩১ মে লেনদেন শেষে দাড়িঁয়েছে ২২০৯.৭০ টাকায়। এ হিসাবে ২ মাসের ব্যবধানে শেয়ার দর বেড়েছে ১৪২২.১০ টাকা বা ১৮১ শতাংশ।

গত ২ মাসের অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির পেছনে কোন মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই) জানিয়েছেন মুন্নু জুট কর্তৃপক্ষ। আর এই বিষয়টি নিয়ে বিনিয়োগকারীদেরকে সচেতন করার জন্য ডিএসইর ওয়েবসাইটেও প্রকাশ করা হয়েছে।

১৯৮২ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ মাত্র ৪৬ লাখ টাকা। আর এই স্বল্প মূলধনের কারনে কোম্পানিটির শেয়ারের অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধি সহজ হয়েছে। তবে সেই দর বৃদ্ধিতে কোম্পানিটির শেয়ার এখন মাত্রাতিরিক্ত ঝুঁকিতে রয়েছে।

অন্যদিকে কোম্পানিটির পর্ষদ ৩০০ শতাংশ রাইট শেয়ার দেবে বলে এরইমধ্যে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে তথ্য ছড়ানো হয়েছে। তবে কোম্পানি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে, এ বিষয়ের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

বিজনেস আওয়ার/০৩ জুন, ২০১৮/আরএ

উপরে