ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫


ট্রাম্প-কিমের বৈঠক, নিরাপত্তায় মোড়া সিঙ্গাপুর

২০১৮ জুন ১১ ১০:৪৫:০১

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ আগামীকাল সিঙ্গাপুরে বসতে যাচ্ছে বহুল প্রতীক্ষিত ট্রাম্প-কিম ঐতিহাসিক শীর্ষ সম্মেলন। এতে যোগ দিতে এরইমধ্যে সিঙ্গাপুরে পৌঁছে গেছেন প্রভাবশালী দুই নেতা। দুই দেশের দুই শীর্ষ নেতার এ বৈঠককে কেন্দ্র করে প্রাচ্যের অন্যতম অর্থনৈতিক কেন্দ্র সিঙ্গাপুর এখন নিরাপত্তার কড়া চাদরে ঢাকা।

চির বৈরী দুই দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ দুই নেতাই এই মুহূর্তে অবস্থান করছেন একটি দেশের ছায়াতলে। মঙ্গলবার, অনুষ্ঠেয় এই শীর্ষ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এই প্রথম উত্তর কোরীয় কোনো নেতার সঙ্গে সরাসরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন ক্ষমতাসীন কোন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গুরুত্বপূর্ণ এই বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে কোন চুক্তি হবে কিনা তা এখনি নিশ্চিত করে বলা না গেলেও, সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, একটি মাত্র বৈঠকে কোন ধরনের চুক্তিতে পৌঁছানো সম্ভব নয়।

তবে, উত্তর কোরিয়ার দিক থেকে রাজনৈতিক সদিচ্ছার কোন অভাব নেই বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। সেইসঙ্গে, দীর্ঘ দিনের বৈরিতা সত্ত্বেও দুই নেতাকে এক টেবিলে বসাতে চীন অন্যতম অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে বলেও মত তাদের।

দুই নেতার এই শীর্ষ বৈঠকের স্থান সিঙ্গাপুরের মূল ভূখণ্ড থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরের স্যান্তোসা দ্বীপের কেপেল্লা হোটেল। ট্রাম্প-কিম বৈঠককে কেন্দ্র করে কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা এখন এই স্যান্তোসা দ্বীপ।

এক সময় জলদস্যুদের উৎপাতে ভয়ংকর হয়ে ওঠা মৃত্যুদ্বীপটিকে সিঙ্গাপুর সরকার পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলে নাম দেয় 'স্যান্তোসা। যার অর্থ 'শান্তি'। আর প্রশান্তির এই দ্বীপে ট্রাম্প-কিম বৈঠক বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় কী বার্তা দেয় সেদিকেই এখন দৃষ্টি সবার।

তারা বলেন, দুই নেতা বৈঠকের জন্য সিঙ্গাপুরের মতো ছোট একটি দ্বীপকে বেছে নিয়েছেন। এজন্য সিঙ্গাপুরের প্রত্যেক নাগরিক গর্বিত। আমরা সবাই ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হওয়ার অপেক্ষায় আছি।

আগামীকাল মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরের স্থানীয় সময় সকাল নয়টায় রুদ্ধদ্বার বৈঠকে মিলিত হবেন দুই নেতা। বৈঠক সফল হলে, উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনকে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ জানানোর ঘোষণাও এরই মধ্যে দিয়ে রেখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের মধ্যে ঐতিহাসিক বৈঠকে প্রায় দুই কোটি মার্কিন ডলার ব্যয় হবে। রবিবার সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং দেশটির গণমাধ্যমকে এ কথা বলেছেন।

প্রধানমন্ত্রী লি বলেন, মোট অর্থের অর্ধেকটা ব্যয় হবে নিরাপত্তা খাতে। একটি আন্তর্জাতিক উদ্যোগ সফল করতে এই অর্থ ব্যয় করছে সিঙ্গাপুর। এটি সিঙ্গাপুরের জন্য একটি ইতিবাচক দিক। কারণ, এর মাধ্যমে আমাদের প্রচার হচ্ছে। এটি একটি হাই-প্রোফাইল বৈঠক। এ কারণে এখানে কোনো কিছু ভুল হবার মতো সুযোগ নেই।

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী বলেন, পুলিশের সদস্যরা শুধু বৈঠকের ভেন্যুই ঘিরে রাখবে না পাশাপাশি আকাশ, জল, স্থলে যেকোনো ধরনের হামলা ঠেকাতে গভীর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সিঙ্গাপুরের সেন্টোসা দ্বীপের কাপেল্লা হোটেলে মঙ্গলবার বহু প্রত্যাশিত বৈঠকে মিলিত হবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং উন। বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে আলোচনা করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

বিজনেস আওয়ার/১১জুন/এমএএস

উপরে