ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


রুচির পরিচয় বহন করে ঘরের আউট লুক

২০১৮ জুলাই ০৩ ১৯:৫২:২২

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ কে না চায় নিজের ঘরখানা একটু ছিমছাম গোছগাছ থাকুক। কিন্তু দিনভর বাইরের কর্মব্যস্ততার কারণে অনেক সময় সময়ই হয়ে উঠে না ঘর নিয়ে মাথা ঘামানোর। আসলেই কি তাই! হয়তো না। বরং টোটালটাই মানসিকার ব্যাপার। সময় নেই, এ কথাগুলো শুধুই অজুহাত। আপনি চাইলেই আপনার ঘরকে আরও সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন রাখতে পারেন। কারণ মনে রাখতে হবে- আপনার ঘরের আউট লুক আপনার রুচির পরিচয় বহন করে। নিজের ঘরকে সাজানো-গোছানো রাখতে জাস্ট কিছু বিষয় মাথায় রাখুন।

রঙে রুচির পরিচয়

অনেকেই অনেক টাকা খরচ করে নতুন বাড়ি নির্মাণ করলেও রঙটা মনের মতো হয় না। রঙটাতে যদি মাধুরীই না থাকে তবে তো ঘরের সৌন্দর্যও ফুটে ওঠে না। ঘরের দেয়ালের সঠিক রঙ বাছাইয়ের উপর নির্ভর করে আমাদের মুডের ওঠানামা। যদি আপনি এনার্জি খোঁজেন তাহলে ঘরের দেওয়াল রাঙান লাল, কমলা বা বেগুনিতে। আর ঘরে যদি চান প্রসন্নতা তবে বেছে নিন সবুজ ও হলুদ।

পরিচ্ছন্নতা

সারা দিনের কর্মব্যস্ততা শেষে বাসায় ফিরে নিজের ঘরটা এলোমেলো দেখলে মনমেজাজ এমনিতেই বিক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। গৃহকোণটি পরিচ্ছন্ন আর গোছানো থাকলে কেমন জানি একটা পবিত্রতার অনুভূতি আনে। এতে করে সময়ও বাঁচে। যেমন কাপড় চোপড় জায়গামত গোছানো থাকলে খুঁজে পেতে দেরি হবে না।

সুগন্ধি

কর্মব্যস্ত দিনের শেষে মানসিক প্রশান্তি আনতে ঘরে রাখতে পারেন সুন্দর গন্ধযুক্ত মোমবাতি। যেমন ল্যাভেন্ডার, চন্দন, পিপারমিন্ট, বা লেবুর সুঘ্রাণযুক্ত মোমবাতি জ্বালতে পারেন ঘুমানোর আগে। দুশ্চিন্তা দূর করতে বা দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে কিছু কিছু ঘ্রাণ আমাদের দারুণ সাহায্য করে।

ফটোগ্রাফ

আপনি চাইলে ঘরের ভেতরে রুচিশীল ফটোগ্রাফও ব্যবহার করতে পারেন। কোন মনোরম দৃশ্য, বিশেষ ব্যক্তি, কিংবা জীবজন্তু কিংবা কোন কিছু আপনি ঘরের দেয়ালে সেঁটে দিতে পারেন। ছবিগুলোর দিকে যখনই তাকাবেন, ভালো বোধ করবেন। তাতে মানসিক প্রশান্তিবোধও হবে।

নতুনত্ব

বছরের পর বছর এক ধরনের বালিশ, বিছানা কিংবা এক ধরনের রঙ করা ঘরে থাকতে থাকতে একঘেয়েমী চলে আসে। তাই যাদের সাধ্য আছে তারা চাইলে মাঝেমধ্যে ঘরে নতুনত্ব নিয়ে আসতে পারেন। ঘরের ভেতরে সাজানো জিনিসগুলোও বছরে দু-চারবার বদলে নিতে পারেন। যা আপনার মুড ফুরফুরে রাখবে।

গার্ডেনিং

অনেকেরই সেই ছোটবেলা থেকে বাগান করা বিশেষ শখ। তবে যাদের শখের তালিকায় গার্ডেনিং নেই তারাও চাইলে বারান্দার সামনে কিংবা ছাদের উপর কিংবা বেলকনিতে ছোটখাটো বাগান করে ফেলতে পারেন। তাতে দু-চার জাতের ফুল থাকলেই হল। সেই বাগানই আপনার ও আপনার পরিবারের জন্য একটি সুন্দর ও নির্মল সকাল উপহার দিতে পারে। মনকে রাখতে পারে সজীব ও সতেজ।

বিজনেস আওয়ার/৩জুলাই/আর আই

উপরে