ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


বর্ষায় ঘর-বাড়ির যত্ন নিয়ে চিন্তায়? রইল উপায়

২০১৮ জুলাই ০৪ ২১:১৪:০৪

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ বর্ষা মানেই কেবল ইলিশ আর মেঘলা আকাশ দেখে আনকোরা মনকেমন নয়, বরং গৃহস্থের কাছে বর্ষা বেশ চিন্তারও। ঘর-বাড়ি পরিষ্কার করা থেকে জামাকাপড়ের যত্ন— সবেতেই প্রয়োজন অতিরিক্ত মুনশিয়ানার। কাদার ছাপ, স্যাঁতসেঁতে মেঝে, আধভিজে পোশাকের হাত থেকে পরিত্রাণ পেয়ে এই বাদল দিনে ঠিক কী উপায়ে ঘরবাড়ি রাখবেন নতুনের মতো ঝকঝকে? জেনে নিন।

বর্ষা আসার মুখেই ভাল দেখে নিন বাড়ির ছাদ, মেঝে ও দুই দেওয়ালের সংযোগস্থলগুলো। কোথাও কোনও ফাটল বা আর্দ্রতা জমতে দেখলে দ্রুত ব্যবস্থা নিন। প্রতি বছর বাড়ি রং করার অভ্যাস থাকলে বর্ষার আগেই তা সেরে ফেলুন। রং করার উপায় না থাকলে অন্তত প্রাইমার কিংবা হোয়াইট ওয়াশ করাতে পারেন। মেঝেরও প্রয়োজনীয় মেরামত করান।

কার্পেট গুটিয়েই রাখুন এই ঋতুতে। এতে কাদার দাগ বা বার বার ভিজে যাওয়ার হাত থেকেও রক্ষা করা যাবে কার্পেটকে। এমনিতেই ভারী কার্পেট পরিষ্কার করা খুব কষ্টসাধ্য। বর্ষায় সে ঝামেলা না বাড়ানোই বুদ্ধিমানের কাজ। একান্তই প্রয়োজন পড়লে কিনে ফেলুন স্পঞ্জি, জল শোষণ ক্ষমতাযুক্ত কার্পেট। কেবল বর্ষাতেই ব্যবহার করুন সে সব।

দরজা ও জানলার ধার থেকে কিছুটা দূরে সরিয়ে ফেলুন সমস্ত কাঠের আসবাবকে। জলের ঝাঁট থেকে বাঁচাতে এটাই সেরা উপায়। বাড়িতে কাঠের কাজ চললে তা শেষ করুন বর্ষা পড়ার আগেই। আলমারির ভিতর স্যাঁতসেঁতে ভাব কাটাতে রাখুন বীজানুনাশক ন্যাপথলিন। খানিকটা নিমপাতাও রাখতে পারেন, নিম জলীয় ভাব কাটায় আর জোলো গন্ধ রুখতে সাহায্য করে।

সব কিছু না কেচে আস্থা রাখুন ড্রাই ক্লিনিংয়ে। এমনিতেই বর্ষায় পোশাক শুকনো রাখা বড় দায়, আর ভাল করে না শুকোলে দুর্গন্ধ ছড়াবে অচিরেই। তাই রোজের কাচাকুচি কমান। যেটুকু না কাচলেই নয়, সেটুকুই কাচুন। রোজের আবহাওয়ার উপর নির্ভর করেও এই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

প্রয়োজন পড়লে বর্ষা আসার আগেই সম্ভব হলে একজন বিশেষজ্ঞ কারিগরের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। গোটা বাড়ির অবস্থান ও পরিস্থিতি বুঝে তিনিই উপযুক্ত পরামর্শ দিতে সক্ষম হবেন। তাঁর উপদেশ মেনে নিন জরুরি ব্যবস্থা। বাড়ির মেরামতি বা নিষ্কাশন ব্যবস্থাকে জোরদার করতে এও এক ভাল উপায়।

জোলো ও স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় বাড়ির সদস্যদের স্বাস্থ্যের বিষয়টিও মাথায় রাখুন। ভুল করেও জল জমতে দেবেন না আশপাশে। মশা ও অন্যান্য পোকামাকড় রুখতে পেস্টিসাইড ব্যবহার করুন। এক দিন অন্তর ব্লিচিং পাউডার ও কার্বলিক অ্যাসিড ছড়ান বাড়ির চারপাশে।

বিজনেস আওয়ার/৪জুলাই/আর আই

উপরে