ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫


লভ্যাংশ গুজবে তালিকাচ্যুত হতে যাওয়া কোম্পানির দর বৃদ্ধি

২০১৮ আগস্ট ০৮ ১৫:৩৭:৪২

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : ২০১৭-১৮ অর্থবছরের ব্যবসায় লভ্যাংশ দেবে এমন গুজবে তালিকাচ্যুত (ডিলিস্টিং) হতে যাওয়া কিছু কোম্পানির বুধবার (০৮ আগস্ট) শেয়ার দর বেড়েছে। ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে কোম্পানিগুলোর কৃত্র্রিম দর বাড়ানো হয়েছে। তাই এ বিষয়ে বিনিয়োগকারীদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

মঙ্গলবার (০৭ আগস্ট) ১৩ কোম্পানিকে তালিকাচ্যুতির লক্ষ্যে কারণ দর্শানোর চিঠি (শোকজ) দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। তবে এই ১৩ কোম্পানির মধ্যে মেঘনা পিইটি, জুট স্পিনার্স লিমিটেড, দুলামিয়া কটন এবং বেক্সিমকো সিনথেটিক্সসহ ৫টি কোম্পানি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের ব্যবসায় লভ্যাংশ দেবে এবং তা ডিএসইকে জানিয়েছে বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। অথচ এই কোম্পানিগুলোর লভ্যাংশ দেওয়ার সক্ষমতা নেই।

দেখা গেছে, গুজব ছড়ানো কোম্পানিগুলোর মধ্যে সব কয়টি কোম্পানির ২০১৭-১৮ অর্থবছরের ৯ মাসের (জুলাই ১৭-মার্চ ১৮) ব্যবসায় লোকসান হয়েছে। এছাড়া মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজ, দুলামিয়া কটন ও জুট স্পিনার্সের রিজার্ভ ঋণাত্মক রয়েছে। এমতাবস্থায় কোম্পানিগুলোর লভ্যাংশ দেওয়ার সক্ষমতা নেই।

এ বিষয়ে ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বিজনেস আওয়ারকে বলেন, শোকজ করা কোম্পানিগুলোর মধ্য থেকে কোন কোম্পানির কর্তৃপক্ষ লভ্যাংশসহ কোন বিষয়েই ডিএসইর সঙ্গে লিখিত বা মৌখিকভাবে যোগযোগ করেনি। এক্ষেত্রে একটি মহল গুজব ছড়িয়ে ফায়ঁদা হাসিলের চেষ্টা করছে। তাই এই গুজবের বিষয়ে বিনিয়োগকারীদেরকে সচেতন হতে হবে।

তিনি বলেন, লভ্যাংশ দেয় না, বার্ষিক সাধারন সভা (এজিএম) করে না, নিয়মকানুন মানে না এমন ৩০টি কোম্পানিকে ডিএসই পর্যবেক্ষন করছে। এরমধ্যে ১৫টি কোম্পানিকে কেনো তালিকাচ্যুত করা হবে না, তা জানতে চেয়ে শোকজ করা হচ্ছে। শেয়ারবাজারের বৃহৎ ও বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের কথা চিন্তা করেই এমনটি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন.....

তালিকাচ্যুতির লক্ষ্যে শোকজ করা কোম্পানির সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ১৩তে

তালিকাচ্যুতির লক্ষ্যে আরো ২ কোম্পানিকে শোকজের সিদ্ধান্ত

গত ৫ বছর বা এর বেশি সময় ধরে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দেয় না, এমন ১৩টি কোম্পানিকে তালিকাচ্যুতির লক্ষ্যে মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) কারণ দর্শানোর চিঠি দেবে বলে জানায় ডিএসই। তবে সেই সংখ্যা বুধবার (০৮ আগস্ট) আরও ২টি বাড়িয়ে ১৫টি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিএসই। এসব কোম্পানিগুলোর বর্তমান ও ভবিষ্যতের ব্যবসায়িক পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হবে। এছাড়া কেনো তালিকাচ্যুত করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হবে। ব্যাখ্যার পরেই তালিকাচ্যুতির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

কোম্পানিগুলো হচ্ছে- মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, জুট স্পিনার্স, ইমাম বাটন, বেক্সিমকো সিনথেটিক্স, সাভার রিফ্রেক্টরিজ, দুলামিয়া কটন, সমতা লেদার কমপ্লেক্স, শ্যামপুর সুগার মিলস, জিল বাংলা সুগার মিলস, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক, শাইনপুকুর সিরামিকস, কে অ্যান্ড কিউ (বাংলাদেশ), ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক ও সোনারগাঁও টেক্সটাইল।

দেখা গেছে, বুধবারের লেনদেনে সবচেয়ে বেশি দর বেড়েছে সম্ভাব্য তালিকাচ্যুতির তালিকায় থাকা মেঘনা পেট ইন্ড্রাস্ট্রিজ। এদিন কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ১০ শতাংশ। এছাড়া বেক্সিমকো সিনথেটিক্সের ৯.০৯ শতাংশ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের ৯.০৯ শতাংশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের ৮.২৮ শতাংশ, দুলামিয়া কটনের ৪.৫১ শতাংশ ও সমতা লেদারের ১.২২ শতাংশ দর বেড়েছে।

এর আগে গত ১৮ জুলাই দীর্ঘদিন ধরে উৎপাদন বা ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ থাকা রহিমা ফুড ও মডার্ণ ডাইং অ্যান্ড স্ক্রিন প্রিন্টিংকে তালিকাচ্যুত (ডিলিস্টিং) করেছে ডিএসই কর্তৃপক্ষ। নিকট ভবিষ্যতে কোম্পানি ২টির উৎপাদন শুরু করার কোনো সম্ভাবনা না থাকায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিজনেস আওয়ার/০৮ আগস্ট, ২০১৮/আরএ

উপরে