ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫


কোমর ব্যথা কেন হয় এবং এর প্রতিকার

২০১৮ আগস্ট ০৮ ১৭:৫৪:২৭

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ আজকাল কোমর ব্যথা প্রায় সকলেরই সমস্যা। অফিসে দীর্ঘক্ষণ ধরে কাজ করা, শারিরিক পরিশ্রম কম করা, কোন আঘাত বা সার্জারীর পর ধকলের কারণে ব্যথা করতে পারে। অনেকে ব্যথায় বিছানা থেকে উঠতে পারেন না। আবার অনেকে স্থায়ীভাবে এই ব্যথার ভূক্তভোগী হন। চলুন জানা যাক কোমর ব্যথার বিস্তারিত সবকিছু।

কোমর ব্যথার কারণ:

অনিয়মিতভাবে দিনের কাজকর্ম করা।
আচানক ঝুঁকে যাওয়া, ভারোত্তলন, ভুল নিয়মে উঠা-বসা, শোয়া।
ব্যায়াম না করা, পেটের বৃদ্ধি ইত্যাদি কারণে ব্যথা হতে পারে।
আবার, ছোট ছেলেমেয়েদের ভারী বস্তু তুলতে দেয়া।
মহিলাদের উঁচু স্যাণ্ডেল পড়ে হাঁটা।
খারাপ রাস্তায় গাড়ি চালানো ইত্যাদি কারণে মেরুদণ্ডের ডিস্ক এ সমস্যার জন্য স্থায়ীভাবে কোমর ব্যথা হতে পারে।
সাধারণত ৩০-৫০ বছর বয়সের লোকেরা কোমর ব্যথায় বেশি আক্রান্ত হতে পারেন।

কিছু রোগ আছে যেগুলোর কারণেও ব্যথা হতে পারে:

জন্ম থেকে কোমরের হাড়, মেরুদণ্ডের হাড় বিকৃতি ও সংক্রমণ।
পায়ের গঠনে সমস্যা বা অস্বাভাবিকতা থাকা।
বসার নিয়ম সঠিক না হওয়া।

কোমর ব্যথার জন্য দুটি প্রধান শর্ত আলোচনা করা যায়:

স্লিপ ডিস্ক – এটি রোগ নয়। উঠা-বসা এবং ভারী বস্তু তোলা ইত্যাদি কারণে হতে পারে। আস্তে আস্তে প্রচুর ব্যথা হতে পারে।
নিতম্ববেদনা বা বাত।

ব্যথা থেকে মুক্তির সহজ উপায়:

নিয়মিত পায়ে হেঁটে চলা। এটি উত্তম ব্যায়াম।
দীর্ঘক্ষণ চেয়ার বা চৌকিতে বসে না থাকা।
শারীরিক শ্রম থেকে বিরত না থাকা। শ্রম মাংসপেশী সুস্থ রাখে।
একইভাবে দীর্ঘ সময় বসে অথবা দাঁড়িয়ে না থাকা।
কোন ভারী বস্তু বহনে তাড়াহুড়া না করা।
ভারী বস্তু উপরে না উঠিয়ে ঠেলাঠেলি করে নেয়া সম্ভব হলে ঠেলাঠেলি করে নিবেন।
উঁচু স্যাণ্ডেল পরিধান না করে ফ্লাট জুতা বা স্যাণ্ডেল পরিধান করবেন।
সিঁড়ি দিয়ে সাবধানে ওঠানামা করতে হবে।
সর্বদাই হাঁটু ভাঁজ করে বসতে হবে।
শরীরের ওজন ঠিক রাখা। মোটা শরীরও পিঠ ব্যথার কারণ।
অত্যধিক নরম বা খুব শক্ত বিছানায় না ঘুমানো। পেটের উপর ভর দিয়ে শোয়া যাবে না।
ডানে বা বায়ে দেখতে পুরো শরীর ঘোরাতে হবে।
এই সকল নিয়ম আপনার কোমর ব্যথায় অনেকটা মুক্তি দিবে। পাশাপাশি প্রতিদিনের কর্মসূচীতে যোগ এবং ব্যায়াম করতে হবে।

বিজনেস আওয়ার/৮আগস্ট/আর আই

উপরে