ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫

ss-steel-businesshour24
Runner-businesshour24

হুয়াওয়ে এ.আই পোর্টফোলিও উন্মোচন করলো

২০১৮ অক্টোবর ১০ ১৬:২৬:৫০

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক: বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে এ.আই স্ট্র্যাটেজি এবং সব ক্ষেত্রে ব্যবহারযোগ্য এ.আই পোর্টফোলিও উন্মোচন করেছে। আজ (১০ অক্টোবর) চীনের সাংহাইয়ে ওয়ার্ল্ড এক্সপো এক্সিবিশন অ্যান্ড কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত তৃতীয় বার্ষিক ‘হুয়াওয়ে কানেক্ট’ অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। অনুষ্ঠানে হুয়াওয়ের রোটেটিং চেয়ারম্যান এরিক ঝু এ ঘোষণা দেন। অনুষ্ঠানের থিম নির্ধারণ করা হয়েছে ‘অ্যাক্টিভেট ইনটেলিজেন্স’, যেখানে এ.আই এবং এর চ্যালেঞ্জ, সুবিধা, উদ্ভাবন এবং ব্যবহারের বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

হুয়াওয়ের ফুল স্ট্যাক এ.আই পোর্টফোলিওর মধ্যে রয়েছে- চিপ, চিপ সক্রিয়করণ, প্রশিক্ষণ কাঠামো এবং অ্যাপ সক্রিয়করণ। আর ‘অল সিনারিও’ বলতে, বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রয়োগকে বোঝায়। এর মধ্যে থাকবে- পাবলিক ক্লাউড, প্রাইভেট ক্লাউড, এজ কম্পিউটিং, ইন্ডাস্ট্রিয়াল আইওটি ডিভাইস এবং কনজ্যুমার ডিভাইস। ফুল স্ট্যাক এ.আই পোর্টফোলিও’র মাধ্যমে হুয়াওয়ে শিল্প ক্ষেত্রে উন্নয়ন করতে এবং সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক বিশ্ব গড়তে চায়।

অনুষ্ঠানে হুয়াওয়ের রোটেটিং চেয়ারম্যান এরিক ঝু বলেন, হুয়াওয়ের এ.আই স্ট্র্যাটেজি হলো মৌলিক গবেষণা ও মেধার উন্নয়নে বিনিয়োগ করা, একটি পরিপূর্ণ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রয়োগক্ষেত্র গঠন এবং একটি বৈশ্বিক ইকোসিস্টেম গড়ার প্রচেষ্টাকে ত্বরান্বিত করা।

ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, হুয়াওয়েতে আমরা সব সময়ই এ.আই ব্যবহার করে ম্যানেজমেন্টের উন্নয়ন ও দক্ষতা বাড়ানোর চেষ্টা করি। এছাড়া টেলিকম সেক্টরের নেটওয়ার্ক বাড়াতে আমরা ইতোমধ্যে ঝড়ভঃঈঙগ অও ব্যবহার করেছি। কনজ্যুমার মার্কেটে ঐরঅও সত্যিকারের বুদ্ধিবৃত্তিক কনজ্যুমার সার্ভিস চালু করেছে এবং তাদের আগের চেয়ে স্মার্ট করেছে।

হুয়াওয়ের ইআই পাবলিক ক্লাউড সার্ভিস এবং ফিউশনমাইন্ড প্রাইভেট ক্লাউড সল্যুশনগুলো সব প্রতিষ্ঠানের জন্য পর্যাপ্ত ও সাশ্রয়ী মূল্যে কম্পিউটিং সুবিধা দেবে, বিশেষ করে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ও সরকারকে। এছাড়া এসব সল্যুশন তাদের বৃহৎ পরিসরে এ.আই ব্যবহার করতে সহায়তা করবে। হুয়াওয়ের পোর্টফোলিওতে একটি এ.আই অ্যাক্সেলারেশন কার্ড, এ.আই সার্ভার, এ.আই অ্যাপ্লিয়েন্স এবং অন্যান্য পণ্য ব্যবহার করা হয়েছে।

ভবিষ্যতের ১০টি পরিবর্তন: নেতৃত্ব দেবে হুয়াওয়ের এ.আই স্ট্র্যাটেজি

হুয়াওয়ে মনে করে ২০২৫ সালের মধ্যে বিশ্বে আরও ৪০ বিলিয়নের বেশি ব্যক্তিগত স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করা হবে, যার ৯০ শতাংশ ডিভাইসই ব্যবহারকারীদের স্মার্ট ডিজিটাল অ্যাসিস্টেন্ট হিসেবে ব্যবহার করবে। ডেটা ব্যবহার হবে ৮৬ শতাংশ এবং এ.আই সার্ভিস সহজলভ্য হবে। হুয়াওয়ে মনে করে, ১০টি ক্ষেত্রে পরিবর্তন আসবে, যা সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথ তৈরি করে দেবে।

১. দ্রুততর মডেল ট্রেইনিং
২. পর্যাপ্ত ও সাশ্রয়ী কম্পিউটিং পাওয়ার
৩. এ.আই প্রয়োগ ও ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা
৪. নতুন অ্যালগরিদম
৫. এ.আই অটোমেশন
৬. প্রাকটিক্যাল অ্যাপ্লিকেশন
৭. রিয়েল টাইম ও ক্লোজড লুপ সিস্টেম
৮. মাল্টি-টেক সিনারজি
৯. প্ল্যাটফর্ম সাপোর্ট
১০. মেধার সহজলভ্যতা

হুয়াওয়ের এ.আই স্ট্র্যাটেজিতে যে বিষয়গুলোতে বেশি জোর দেয়: এ.আই গবেষণায় বিনিয়োগ বাড়ানো, ফুল স্ট্যাক এ.আই পোর্টফোলিও, উন্মুক্ত ইকোসিস্টেম ও মেধার উন্নয়ন, বিদ্যমান পোর্টফোলিও শক্তিশালী করা এবং হুয়াওয়ের পরিচালন দক্ষতা বাড়ানো।

প্রসঙ্গত, হুয়াওয়ে কানেক্ট-২০১৮ আগামী ১২ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। এ বছরে হুয়াওয়ে কানেক্ট অনুষ্ঠানটি এমনভাবে পরিকল্পনা করা হয়েছে যেখানে উদ্যোক্তা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে বুদ্ধিবৃত্তিক বিশ্বে পদার্পন করতে সাহায্য করা হবে।

ক্যাপশন: হুয়াওয়ের রোটেটিং চেয়ারম্যান এরিক ঝু এ.আই স্ট্র্যাটেজি এবং এ.আই পোর্টফোলিও উন্মোচন করেন।

হুয়াওয়ে সম্পর্কে

হুয়াওয়ে বিশ্বের অন্যতম তথ্যপ্রযুক্তি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। সমৃদ্ধ জীবন নিশ্চিতকরণ ও উদ্ভাবনী দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে একটি উন্নত ও সংযুক্ত পৃথিবী গড়ে তোলাই হুয়াওয়ের উদ্দেশ্য। গ্রাহক-কেন্দ্রিক নতুনত্ব এবং উন্মুক্ত অংশীদারিত্বের দ্বারা পরিচালিত হয়ে হুয়াওয়ে একটি পরিপূর্ণ আইসিটি সমাধান পোর্টফোলিও প্রতিষ্ঠা করেছে।

হুয়াওয়ে বিশ্বব্যাপী ৫০০টিরও বেশি মোবাইল অপারেটরদের প্রায় তিন বিলিয়ন গ্রাহকদের ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক পণ্য, সমাধান এবং সেবা প্রদান করে। ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত বিশ্বের ১০০টি রাজধানী শহরে ৩৬০টি এলটিই বাণিজ্যিক নেটওয়ার্ক নির্মাণের মাধ্যমে হুয়াওয়ে টেলিকম শিল্পে শীর্ষস্থান অর্জন করেছে। অপারেটররা যাতে পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের খরচ কমিয়েও সর্বোচ্চ মানের নেটওয়ার্ক সেবা প্রদান করতে পারে, সেজন্য হুয়াওয়ে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি তৈরি ও উন্নয়নে নিরন্তর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের ১৭০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে সেবা দিচ্ছে যা বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ জনসংখ্যার সমান। এক লাখ ৮০ হাজার কর্মী নিয়ে ভবিষ্যতের তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক সমাজ তৈরির লক্ষ্যে হুয়াওয়ে কাজ করে চলেছে। এই বিশাল সংখ্যক কর্মীরা বিশ্বব্যাপী টেলিকম অপারেটর, উদ্যোক্তা ও গ্রাহকদের সর্বোচ্চ মূল্যায়ন নিশ্চিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

আরও জানতে ভিজিট করুন:

www.huawei.com
http://www.linkedin.com/company/Huawei
http://www.facebook.com/Huawei
http://www.google.com/+Huawei
https://www.huawei.com/en/press-events/annual-report/2017
https://www.huawei.com/en/about-huawei/corporate-information/financial-highlights
https://www.huawei.com/en/press-events/annual-report/2017

বিজনেস আওয়ার/১০ অক্টোবর, ২০১৮/টিএ/এমএএস

উপরে