ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫

স্টাইলক্রাপ্টের লভ্যাংশ

ফেসবুকে ছড়ানো গুজবই সত্যি!

২০১৮ অক্টোবর ১১ ০৬:৩৪:১৫

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: লভ্যাংশ ঘোষণার দেড় মাস আগে ফেসবুকে গুজব ছড়ানো হয় স্টাইলক্রাপ্ট এবছর ৪০০ শতাংশের বেশি বোনাস লভ্যাংশ দেবে। ফেসবুকে ছড়ানো গুজব শেষ পর্যন্ত সত্যি হল। তবে রেকর্ড পরিমাণ রেকর্ড পরিমাণ ৪১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণার পরও বস্ত্র খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি স্টাইল ক্রাফটের শেয়ারের বড় দরপতন হয়েছে। লভ্যাংশ ঘোষণার পর লেনদেনের প্রথম দিনে বুধবার শেয়ারটির দর ৩৫১ টাকা কমে ৩ হাজার ৭৩০ টাকায় নেমেছে। দরপতনের হার সাড়ে ৮ শতাংশের বেশি। লভ্যাংশ ঘোষণার পর ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের অনেকেই হতাশ হয়েছেন। তবে বাজার সংশ্নিষ্টরা জানান, এটাই 'প্রত্যাশিত' ছিল। কারণ লভ্যাংশ ঘোষণার আগেই এর দর অস্বাভাবিক বেড়েছিল।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত এক বছরে দেশের শেয়ারবাজারে যে ক'টি কোম্পানির শেয়ারের ব্যাপক উল্লম্ম্ফন হয়, স্টাইল ক্রাফট তার একটি। গত এক মাসেই শেয়ারটির দর ৭৫ শতাংশ বেড়ে ২ হাজার ৮০০ টাকা থেকে বুধবার এক পর্যায়ে রেকর্ড সর্বোচ্চ দর ৪ হাজার ৯০০ টাকায় ওঠে। গত সাত মাসে শেয়ারটির দর এক হাজার ৩০০ টাকা থেকে বেড়ে পৌনে চারগুণ হয়। গত বছর ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশের সঙ্গে ৮০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার পর শেয়ারটির দরে উল্লম্ম্ফন শুরু হয়।

লভ্যাংশ ঘোষণার পরও স্টাইল ক্রাফটের দরপতনের কারণ ব্যাখ্যায় বাজার সংশ্নিষ্টরা বলেন, কোম্পানিটি যে অন্তত ৪০০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেবে, তা আগেই ফাঁস হয়েছিল। এ কারণে এর দরও অস্বাভাবিক বেড়ে গিয়েছিল। যারা শেয়ারটির দর বাড়াতে সক্রিয় ছিল, তারা লভ্যাংশ ঘোষণা আসার অপেক্ষায় ছিলেন। শেয়ারটিতে বিনিয়োগে আগ্রহী লোকের অভাব হবে না ভেবে গতকাল এদের একটা অংশ শেয়ার বিক্রি করেছে। তবে শেষ পর্যন্ত ক্রেতা সংকটের কারণে দরপতন হয়েছে।

স্টাইল ক্রাফটের পরিচালনা পর্ষদ গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত সভা থেকে ৪১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে শেয়ারপ্রতি ৩৬ টাকা ১৬ পয়সা মুনাফা হয়েছে। ৪১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণার ফলে যার ১০টি শেয়ার আছে, তিনি স্টাইল ক্রাফটের ৪১টি শেয়ার পাবেন।

স্টাইল ক্রাফট শেয়ারবাজারে স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোর অন্যতম। বর্তমানে এর পরিশোধিত মূলধন মাত্র ৯৯ লাখ টাকা। আসন্ন এজিএমে ঘোষিত লভ্যাংশ অনুমোদন হলে বর্তমানের শেয়ার সংখ্যা ৯ লাখ ৯০ হাজার থেকে বেড়ে ৫০ লাখে উন্নীত হবে। পরিশোধিত মূলধন পাঁচ কোটি টাকা ছাড়াবে। সেপ্টেম্বর শেষে এর মোট শেয়ারের অর্ধেক ছিল উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে, যা এক বছর আগের তুলনায় ৫ শতাংশ কম।

স্টাইল ক্রাফটের শেয়ারদরে ব্যাপক উত্থানের নেপথ্যে মালিকপক্ষের সংশ্নিষ্টতা ছিল বলে অভিযোগ আছে। কতটা লভ্যাংশ দেবে, তা অন্তত এক মাস আগে ফাঁস হয়। গত এপ্রিলে কোম্পানিটির শেয়ারদর বৃদ্ধির ক্ষেত্রে মালিকপক্ষ এবং কর্মকর্তাদের সংশ্নিষ্টতার বিষয়ে সমকালে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। জানা গেছে, গত বছরের অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া দরবৃদ্ধির প্রথম থেকে মালিকপক্ষের ঘনিষ্ঠজনরা শেয়ার কেনাবেচা করেছেন। এদের অন্যতম হলেন চেয়ারম্যান ওমর গোলাম রব্বানির স্ত্রী তাহমিনা রব্বানি, মেয়ে মাহীন রব্বানি হকসহ কয়েকজন নিকটাত্মীয়। এমনকি গত এপ্রিলে কোম্পানির চেয়ারম্যান গোলাম রব্বানী তার ৭০ হাজার ৭৪০টি শেয়ার থেকে ৩০ হাজার শেয়ার তার স্ত্রী ও মেয়ের নামে হস্তান্তর করেন। সংশ্নিষ্টদের ধারণা, বিনা ঘোষণায় শেয়ার বিক্রির সুবিধা নিতেই শেয়ার হস্তান্তর হয়েছে।

জানা যায়, কোম্পানিটির একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা মালিকপক্ষের শেয়ার কেনাবেচার খবর জানতেন এবং তারাও সেই সুযোগ নিয়েছেন। তাদের মধ্যে অন্যতম সুবিধাভোগী হলেন কোম্পানি সচিব এগমন্ড গুডা এবং সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. মোস্তাক হোসেন। এ ছাড়া গত বছরের দরবৃদ্ধির আগে ও পরে স্টাইল ক্রাফটের বড় ক্রেতার ভূমিকায় ছিলেন কামরুল হাসান ও মাহবুব আল হাসান নামের পুঁজিবাজারের দুই বিনিয়োগকারী। এর বাইরে আল-মুনতাহা সিকিউরিজি হাউজের গ্রাহক সৈয়দ নাজিনুন ইসলামের নামও রয়েছে।

বিজনেস আওয়ার/এসএম

উপরে