ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫

ss-steel-businesshour24
Runner-businesshour24

কোটিপতি ব্যাংক হিসাব বেড়েছে

২০১৮ অক্টোবর ১১ ০৯:৪৭:৩১

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: দেশের ব্যাংকগুলোতে এক বছরের ব্যবধানে কোটি টাকার বেশি আমানত জমা রাখা ব্যাংক হিসাব বেড়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত দেশের ব্যাংকগুলোতে কোটি টাকার ওপরে আমানত জমা রয়েছে এমন ব্যাংক হিসাব ছিল ৭০ হাজার ৪৬৩টি। গত বছরের মার্চে এ ধরনের হিসাবসংখ্যা ছিল ৬৫ হাজার ৯৫১টি।

পরিসংখ্যান ঘেঁটে দেখা যায়, ২০১৮ সালের মার্চ পর্যন্ত ৫০ কোটি টাকার ওপরে আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব ছিল ৯৪১টি। ২০১৭ সালের একই সময়ে এ ধরনের ব্যাংক হিসাবসংখ্যা ছিল ৭৮৪টি। এ ছাড়া ৪০ কোটি টাকা থেকে ৫০ কোটি টাকা পর্যন্ত আমানত রাখা ব্যাংক হিসাবসংখ্যা ৩৬০টি, ৩৫ কোটি টাকা থেকে ৪০ কোটি টাকা পর্যন্ত আমানত জমা থাকা ব্যাংক হিসাব ছিল ২০৬টি।

৩০ কোটি টাকা থেকে ৩৫ কোটি টাকা পর্যন্ত আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব ছিল ২৮৪টি। ২৫ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব ৫১০টি। ২০ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব ৮২০টি। ১৫ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা এক হাজার ৩১৯টি। ১০ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব দুই হাজার ৯২৬টি এবং পাঁচ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যাংক হিসাব আট হাজার ১২৭টি।

পরিসংখ্যানের তথ্য অনুযায়ী, এক কোটি টাকা আমানত রাখা ব্যাংক হিসাবসংখ্যা ছিল ৫৪ হাজার ৯৭০টি। ২০১৭ সালের মার্চ পর্যন্ত এ সংখ্যা ছিল ৫২ হাজার ৮৭টি। ২০১৮ সালের মার্চ পর্যন্ত ব্যাংক খাতে মোট আমানতের পরিমাণ ছিল ৯ লাখ ৯২ হাজার ১৪০ কোটি টাকা। এর মধ্যে চার লাখ কোটি টাকারও বেশি পরিমাণ আমানত ছিল কোটিপতি ব্যাংক হিসাবগুলোতে।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ১৯৭২ সালে দেশে কোটিপতি ব্যাংক হিসাব ছিল মাত্র পাঁচটি। ১৯৭৫ সালের ডিসেম্বরে এ সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৪৭টিতে। জিয়াউর রহমান সরকারের আমলে (ডিসেম্বর ১৯৮০) এ সংখ্যা দাঁড়ায় ৯৮টিতে।

এরশাদ সরকারের পতনের সময় ১৯৯০ সালের ডিসেম্বরে কোটিপতির সংখ্যা ছিল ৯৪৩টি। ১৯৯৬ সালের জুনে কোটিপতি ব্যাংক হিসাব বেড়ে হয় দুই হাজার ৫৯৪টি। ২০০১ সালের সেপ্টেম্বর শেষে এ সংখ্যা দাঁড়ায় পাঁচ হাজার ১৬২টিতে।

বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ২০০৬ সালের ডিসেম্বরে কোটিপতি ব্যাংক হিসাবসংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় আট হাজার ৮৮৭টিতে। ২০০৮ সালে হয় ১৯ হাজার ১৬৩টি। ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে বেড়ে দাঁড়ায় ২৩ হাজার ১৩০টিতে। ২০১০ সালের ৩১ ডিসেম্বরে কোটিপতি হিসাবসংখ্যা হয় ২৯ হাজার ৫৩৭টি।

বিজনেস আওয়ার/১১ অক্টোবর, ২০১৮/এমএএস

উপরে