ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

শেয়ার দর বৃদ্ধিতে লাভবান হবেন সুহৃদের চেয়ারম্যান

এনআরবি ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ নিয়ে সুহৃদের অসত্য তথ্য প্রকাশ

২০১৮ অক্টোবর ২৫ ০৯:৪৮:৪৬

রেজোয়ান আহমেদ : ২৬ লাখ শেয়ার বিক্রয় করে যে টাকা পাওয়া যাবে, সেই পরিমাণ ঋণ পরিশোধ হবে এমন শর্তে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ ও এনআরবি ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি হয়েছে। এক্ষেত্রে শেয়ার দর যত বাড়বে, তত ঋণের পরিমাণ কমার সুযোগ তৈরী হবে। আর এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে সুহৃদের শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ সৃষ্টির জন্য অসৎ উপায়ের অবলম্বন করেছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ। এক্ষেত্রে তারা ২৩ টাকার সুহৃদের শেয়ার এনআরবি ব্যাংক ৩৭ টাকা করে নেওয়ার চুক্তি করেছে বলে অসত্য তথ্য প্রকাশ করেছে।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের কাছে এনআরবি ব্যাংকের পাওনা রয়েছে ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। এই টাকা আদায়ে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের ২৬ লাখ শেয়ার এনআরবি ব্যাংককে দেওয়ার জন্য উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ি, ২৬ লাখ শেয়ার বিক্রয় থেকে এনআরবি ব্যাংক যে টাকা পাবে, সেই পরিমাণ ঋণ সমন্বয় বা পরিশোধ হবে। বাকি টাকা আগামি ৩০ নভেম্বরের মধ্যে পরিশোধ করবেন সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান। এমতাবস্থায় শেয়ারটি যত বেশি দরে বিক্রি করা সম্ভব হবে, ততই লাভবান হবেন মাহমুদুল হাসান।

ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বিজনেস আওয়ারকে বলেন, ঋণ সমন্বয়ে বাজার দরের থেকে এনআরবি ব্যাংক বেশি দরে শেয়ার নেবে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের এমন তথ্য নিয়ে শুরুতেই সন্দেহ ছিল। যা নিয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সঙ্গে ডিএসইর বোর্ড আলোচনাও করেছিল। এবং বিষয়টি বিএসইসি গুরুত্ব সহকারে নেয়। আর সেই সন্দেহ বিজনেস আওয়ারের মাধ্যমে সত্য প্রমাণিত হল।

তিনি বলেন, ২৬ লাখ শেয়ারের মাধ্যমে এনআরবি ব্যাংকের ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ঋণ নিস্পত্তি বা সমন্বয় হবে এমন মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ। এক্ষেত্রে সুহৃদের প্রতিটি ২৩ টাকার শেয়ার এনআরবি ব্যাংক ৩৭ টাকা করে নেবে এমনটি বোঝানো হয়েছে। এর মাধ্যমে শেয়ারটিতে কৃত্রিম চাহিদা তৈরীর চেষ্টা করা হয়েছে। যে চেষ্টায় শেয়ারটি ২৩ টাকা থেকে প্রায় ৩০ টাকায় উঠেছিল। কোম্পানিটির এমন চেষ্টা শেয়ারবাজারের জন্য ক্ষতিকর ও বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে প্রতারণার সামিল। যা সমাধানে বিএসইসি যথাযথ পদক্ষেপ নেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

আরও পড়ুন....

সুহৃদের শেয়ার কমানোর প্রক্রিয়ার মধ্যেই বোনাস ঘোষণা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মিজানুর রহমান বিজনেস আওয়ারকে বলেন, ২৬ লাখ শেয়ার দিয়ে যদি পুরো ঋণ পরিশোধ হওয়ার চুক্তি হয়ে থাকে, তাহলেতো ঠিক আছে। কিন্তু সেটা যদি শেয়ার বিক্রয় থেকে প্রাপ্ত টাকার উপর নির্ভর করে, তাহলেতো বিষয়টি অন্যরকম হয়ে যায়। তারপরেও চুক্তিটি না দেখে এর বেশি কিছু বলা ঠিক হবে না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, টকশোতে লভ্যাংশ দেওয়া নিয়ে কোন তালিকাভুক্ত কোম্পানির পরিচালক অগ্রিম মন্তব্য করতে পারে না। এটা করার কোন সুযোগ নেই। আর সুহৃদের শেয়ারটিতে কৃত্রিম সংকট তৈরী করা হয়েছে বলে মনে করেন তিনি। যার মাধ্যমে শেয়ারটি ৬ মাসে ১০ টাকা থেকে ৩০ টাকায় উঠেছে।

সুহৃদ কর্তৃপক্ষ গত ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই) জানিয়েছেন, এনআরবি ব্যাংকের সঙ্গে ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ঋণ নিস্পত্তিতে ২৬ লাখ শেয়ার প্রদানের একটি চুক্তি হয়েছে। এই শেয়ার প্রদানের মাধ্যমে ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ঋণ নিস্পত্তি বা পরিশোধ হবে। এ হিসাবে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের প্রতিটি শেয়ারের দাম পড়ে ৩৭.৪২ টাকা। তবে ওইদিন শেয়ারের বাজার দর ছিল ২৩.১০ টাকা।

আরও জানানো হয়, এনআরবি ব্যাংকের ঋণের জন্য সুহৃদের পক্ষে গ্যারান্টার ছিলেন সাবেক কর্মকর্তা জাহিদুল হক, আনিস আহমেদ ও সায়েদা সায়মা আক্তার। যাদের থেকে নিয়ে ২৬ লাখ শেয়ার প্রদান করা হবে এনআরবি ব্যাংককে। বিনিময়ে ব্যাংকটির ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ঋণ সমন্বয় বা পরিশোধ হবে।

এ বিষয়ে এনআরবি ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আনোয়ার হোসেন বিজনেস আওয়ারকে বলেন, ঋণ সমন্বয়ের জন্য সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের সঙ্গে ২৬ লাখ শেয়ারের বিনিময়ের চুক্তি হয়েছে। তবে এই শেয়ারের বিনিময়ে ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ঋণ পরিশোধ হবে এটা ঠিক না। এটা যদি কেউ বলে থাকে, তাহলে সে নিজ দায়িত্বে বলেছে।

তিনি বলেন, ২৬ লাখ শেয়ার বিক্রয় করে যে পরিমাণ টাকা পাওয়া যাবে, শুধুমাত্র ওই পরিমাণ ঋণ পরিশোধ হবে। সেটা কত হবে এখনই বলা যাচ্ছে না। তাই প্রতিটি শেয়ার ৩৭.৪২ টাকা করে নেওয়ার প্রশ্নই আসে না।

তিনি আরও বলেন, এনআরবি ব্যাংক সুহৃদের শেয়ার ক্রয় করেনি। বিদ্যমান ঋণের অতিরিক্ত জামানত হিসাবে সুহৃদের ২৬ লাখ শেয়ার ব্যাংকের অনুকূলে আবদ্ধ করা হয়েছে। যা পরবর্তীতে ব্যাংকটির বিও হিসাবে প্রেরণ করা হবে।

ডিএসইতে ঋণ সমন্বয়ের তথ্য প্রকাশের পরে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান বিজনেস আওয়ারকে বলেছিলেন, এনআরবি ব্যাংকের ঋণ সমন্বয় করা হয়েছে ৩ গ্যারান্টারের শেয়ার প্রদান করে। এতে ভবিষ্যতে আর সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই এনআরবি ব্যাংক প্রতিটি শেয়ার ৩৭.৪২ টাকা করে নিয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) চুক্তির বিষয়টি অবহিত করলে আগের অবস্থান থেকে ফিরে আসেন মাহমুদুল হাসান। তিনি বলেন, কি পরিমাণ ঋণ সমন্বয় হবে সেটা এই মুহূর্তে কেউ বলতে পারবে না। আর ৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকা সমন্বয়ের তথ্য প্রকাশের বিষয়ে বলেন, সম্পূর্ন ঋণ সমন্বয় হবে সেটাতো বলিনি।

বিজনেস আওয়ার/২৫ অক্টোবর, ২০১৮/আরএ

উপরে