ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫


'গুজব একটি দিয়াশলাইয়ের মতো'

২০১৮ ডিসেম্বর ০৬ ১৪:৩৩:২৩

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: দেশের জনগণকে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, গুজব একটি দিয়াশলাইয়ের মতো। দিয়াশলাইয়ের কাঠি যেমন মুহূর্তের মধ্যে বিশাল অগ্নিকাণ্ড ছড়াতে পারে, ভস্মীভূত করতে পারে। ঠিক তেমনি একটা গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে সামাজ ও রাষ্ট্রীয় স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে পারে।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে 'গুজব বিরোধী জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞান (টিভিসি)'র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ছোট ছোট স্কুলের ছেলেমেয়েরা যে রাস্তায় নেমে এসেছিল। যদিও তারা একটা সঠিক কারণেই রাস্তায় নেমেছিল। কিন্তু সেটাকে গুজব রটিয়ে ভিন্নখাতে নেওয়ার অপচেষ্টা আমরা দেখেছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে আমরা অনেক দূর চলে গেছি। শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামের সবাই ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। এর সুফলের সাথে সাথে কুফল বা অপব্যবহারও করা হচ্ছে।

সমাজ ব্যবস্থায় অতীব গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা। সাধারণ জনগণের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কে রেখে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা। এ ক্ষেত্রে সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে র‌্যাব।

অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে যোগাযোগ ব্যবস্থার ডিজিটালাইজেশন ফলে বিশ্বে অভূতপূর্ব তথ্য বিপ্লব সাধিত হয়েছে। এটি যেমন সমাজে তথ্যের গতিশীলতা তরান্বিত করেছে তেমনি মিথ্যে তথ্য স্থিতিশীলতার জন্য হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে -বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বিগত দিনে আমরা দেখেছি নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে কোটা সংস্কার আন্দোলনে একটি চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে কিভাবে অরাজকতা তৈরি অপচেষ্টা হয়েছিল। গুজব আইনের দৃষ্টিতে দণ্ডনীয় অপরাধ। র‌্যাব ও অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী গুজব রটনাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা জানাতে চাই এটা (গুজব রটানো) দণ্ডনীয় অপরাধ। যারাই গুজব ছড়িয়ে দিচ্ছে ও চেষ্টা করছে তাদের আমরা চিহ্নিত করেছি ও চিহ্নিত করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব। তথ্য আমাদের অধিকার।

সঠিক তথ্য সঠিকভাবে যাচাই না করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার বা আপলোড করা যাবে না। ইতোমধ্যে র‌্যাব সাইবার ক্রাইম সেল গঠন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে আমরা সাইবার অপরাধীদের নজর রাখছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা দেখেছি র‌্যাব জলদস্যু, বনদস্যু নির্মূলের কিভাবে কন্ট্রোল করেছে। জঙ্গি দমনে র‌্যাব প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। র‌্যাব জনগণের একটা আস্থার অর্জন করেছে। র‌্যাবের আগেও জঙ্গি বিরোধী টিভিসি তৈরি করে জনসচেতনতায় প্রচার করেছে।

অনুষ্ঠানে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামলা উদ্দিন ও র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদবিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস আওয়ার/০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮/এমএএস

উপরে