ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

Bijoy-month-businesshour24

আইসিবি এএমসিএল ১৫৫ শতাংশ বিনিয়োগ বাড়িয়েছে আইসিবি ব্যাংকে

২০১৭ নভেম্বর ২৭ ০৩:৪৪:৫৪

রেজোয়ান আহমেদ : দীর্ঘদিন ধরে লোকসানে ও সর্বনিম্ন ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে থাকা আইসিবি ইসলামীক ব্যাংকে বিনিয়োগের পরিমাণ ১৫৫ শতাংশ বাড়িয়েছে আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ড কর্তৃপক্ষ। চলতি বছরের ৩ মাসে (জুন-সেপ্টেম্বরের) এই বিনিয়োগ বাড়ানো হয়েছে।

চলতি বছরের ৩০ জুন আইসিবি ইসলামীক ব্যাংকে আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ডের বিনিয়োগ ছিল ১ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। যা ৩ মাসের ব্যবধানে ৩০ সেপ্টেম্বর বেড়ে দাড়িয়েছে ৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। এ হিসাবে বিনিয়োগ বেড়েছে ২ কোটি ৪২ লাখ টাকা বা ১৫৫ শতাংশ।

ফান্ডটি আইসিবি ইসলামীক ব্যাংকের ৬২ লাখ ৭৪ হাজার ৮৬৭টি শেয়ার কিনেছে ৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকা দিয়ে। যাতে শেয়ারপ্রতি গড় ৬.৩৪ টাকা লেগেছে। যে শেয়ারটি রবিবার (২৬ নভেম্বর) দুপুর ১টায় ৮ টাকা দরে লেনদেন হচ্ছে। এমতাবস্থায় ফান্ডটি শেয়ারপ্রতি ১.৬৬ টাকা বা ২৬ শতাংশ মুনাফায় রয়েছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বিজনেস আওয়ারকে বলেন, শেয়ারবাজারে আইসিবির বিনিয়োগের পরিমাণ অনেক। যাতে সহজেই শেয়ার দরে প্রভাব ফেলা যায়। তারপরেও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আইসিবি ও এর ফান্ডগুলোর সতর্ক হওয়া উচিত। একইসঙ্গে আইসিবি এমএমসিএল কেনো একটি লোকসানি ও ‘জেড’ ক্যাটাগরির শেয়ারে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে, সে বিষয়ে বিএসইসি ব্যাখ্যা চাইতে পারে।

এএফসি ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা (সিইও) মাহবুব এইচ মজুমদার বিজনেস আওয়ারকে বলেন, আইসিবি এএমসিএলের মতো প্রতিষ্ঠান আইসিবি ইসলামীক ব্যাংকের মতো জাঙ্ক শেয়ারে বিনিয়োগ করতে পারে না। আইসিবিসহ তার ফান্ডগুলোর উচিত ভালো শেয়ারে সাধারন বিনিয়োগকারীদেরকে উৎসাহিত করা। কিন্তু নিজেরাই যদি জাঙ্ক শেয়ারে জড়িয়ে পরে, সেটা শেয়ারবাজারের জন্য দুঃখজনক।

এদিকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ২১৩টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটে ৮০৯ কোটি ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছে আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ড। এরমধ্যে ব্যাংক খাতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করা হয়েছে এবি ব্যাংকে।

আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ড থেকে বিনিয়োগ করা খাতগুলোর মধ্যে – ৩৫টি বীমা কোম্পানি, ২০টি ব্যাংক, ২৫টি বস্ত্র খাতের, ২৩টি মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ২০টি আর্থিক খাতের, ১৮টি ঔষধ ও রসায়ন খাতের, ১৯টি প্রকৌশল খাতের, ১৪টি জ্বালানি ও বিদ্যুত খাতের, ১২টি খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের, ৬টি সিমেন্ট খাতের, ২টি তথ্য প্রযুক্তি খাতের, ৪টি ট্যানারি খাতের, ৪টি সিরামিক খাতের, ৩টি বিবিধ খাতের, ৩টি সেবা খাতের, ২টি টেলিকমিউনিকেশন খাতের, ৩টি ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের কোম্পানিতে বিনিয়োগ রয়েছে। এ ছাড়া ১টি করপোরেট বন্ডে বিনিয়োগ রয়েছে।

দেখা গেছে, ফান্ডটির এবি ব্যাংকে ১৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার বিনিয়োগ রয়েছে। যা এই খাতের অন্য ব্যাংকগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। এ খাতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা মার্কেন্টাইল ব্যাংকে বিনিয়োগ করা হয়েছে। আর তৃতীয় সর্বোচ্চ ৬ কোটি ৯১ লাখ টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে ওয়ান ব্যাংকে।

ফান্ডটির ৮০৯ কোটি ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগের শেয়ার ও ইউনিটের ৩০ সেপ্টেম্বর বাজার দর ছিল ৭৫২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটির ৫৬ কোটি ৩৯ লাখ টাকার আনরিয়েলাইজড লোকসান রয়েছে।

নিম্নে আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ডের চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর বিনিয়োগকৃত ব্যাংকের কোম্পানির নাম, শেয়ারপ্রতি ক্রয়মূল্য, বাজার মূল্য ইত্যাদি তুলে ধরা হল-

বিজনেস আওয়ার/২৬ নভেম্বর, ২০১৭/আরএ

উপরে