ঢাকা, রবিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

Bijoy-month-businesshour24

শুভ জন্মদিন সাংবাদিক মুনিফ

২০১৭ নভেম্বর ২৮ ১২:২৩:২৪

মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান : মফস্বল শহর কুমিল্লায় জন্ম মুনিফ আম্মারের। প্রাথমিক পড়াশোনা সেখানেই। সাংবাদিকতার প্রথম পাঠও কুমিল্লাতেই। সংগঠন করতে গিয়ে সাংবাদিকতার সঙ্গে পরিচয়। তারপর ধীরে ধীরে ‌'প্যাশন' থেকে পেশায় পরিণত হয়েছে সাংবাদিকতা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে, সরল উত্তর "জীবনের আনন্দ সাংবাদিকতায়।" আজ ২৮ নভেম্বর এ সংবাদকর্মীর জন্মদিন। শুভ জন্মদিন মুনিফ আম্মার।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের পড়াশোনা ঢাকা-কুমিল্লা মিলিয়ে। স্নাতকও রাজধানীতে। ২০০৬ সালে অনার্স তৃতীয় বর্ষে পড়াকালীন সময়ে বাংলাদেশ বেতারের সংবাদ পাঠক হিসেবে নাম লেখান তিনি। অনুষ্ঠান উপস্থাপনাও করতেন তখন। পাশাপাশি লেখালেখি করতেন বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে। প্রথম আলো বন্ধুসভা থেকে শুরু করে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সরব অংশগ্রহণ ছিলো তার। আবৃত্তি আর নাট্য চর্চার সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী ও পূর্বাশা কচিকাচার মেলার সঙ্গে কাজ করেছেন অনেকদিন। আন্তর্জাতিক সংগঠন রোটারেক্ট ক্লাব অব ঢাকা গ্রিনের চার্টার প্রেসিডেন্টও ছিলেন এ সাংবাদিক।

২০০৯ সালে দৈনিক যায়যায়দিনের পাঠক সংগঠন 'ফ্রেন্ডস ফোরামের' কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্ব নেন। তখনই পত্রিকাটির ফিচার বিভাগের সঙ্গে যুক্ত হন মুনিফ। ২০১০ ও ২০১১ সাল যুক্ত ছিলেন দৈনিক যুগান্তরের ফিচার বিভাগে। পরের বছরই স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে যোগ দেন বাংলানিউজ২৪.কমে। একবছরের মাথায় চলে যান বাংলামেইল২৪.কমে। তখন ধর্মভিত্তিক দল বিটে নাম লেখান। অনলাইন পোর্টালটিতে স্টাফ রিপোর্টার থেকে ধারাবাহিকভাবেডেপুটি চিফ রিপোর্টার পর্যন্ত পদোন্নতি পান মুনিফ। তখনই নির্বাচন কমিশন ও সংসদ বিটে কাজ করেন।

২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলামেইল ছেড়ে যোগ দেন 'নিউজবাংলাদেশে'। সংবাদ মাধ্যমটির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত তিনি চিফ রিপোর্টারের দায়িত্ব পালন করছেন। এ সময়ে রাজনীতি, সেবা, সংবিধান ও প্রাসঙ্গিক নানা বিষয়ের রিপোর্ট তৈরিতে যুক্ত হন। তবে ফিচার লেখায় মুনিফ 'খানিকটা' এগিয়ে বলে সহকর্মীরা মন্তব্য করেন।

সাংগঠনিক চর্চার মধ্যে মুনিফ সেতুবন্ধন নামে একটি সংগঠনের দায়িত্ব পালন করেছেন টানা তিন বছর। সংগঠনটি থেকে 'ফুল পাখিরা উঠলো মেতে' শিরোনামে প্রতিবছর একটি শিশু কিশোর উৎসব আয়োজন করতেন তিনি। এসময় কয়েকটি স্মরণিকাও সম্পাদনার দায়িত্ব পালন করেছেন মুনিফ। মুনিফ বাংলাদেশ টেলিভিশনের একজন নিবন্ধিত নাট্যশিল্পী। বিটিভিসহ কয়েকটি টেলিভিশন ও রেডিওতে বিভিন্ন সময়ে আবৃত্তি পরিবেশনা করেছেন।

হাসি খুশি আর আড্ডা মুনিফের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনি মানুষের কাছাকাছি পৌঁছুতেই বেশি পছন্দ করেন। মানুষের ভালোবাসা পেতেই তার যতো প্রচেষ্টা।

জন্মদিন নিয়ে পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, "নিজের বিশেষ কোনো পরিকল্পনা নেই। বন্ধুরা গত কয়েকবছর ঘটা করে জন্মদিন উৎসব করে আমাকে সারপ্রাইজ দিয়েছে। কাছের মানুষজনের কাছ থেকেও বরাবরই সেলিব্রেশন থাকে। অফিসও দিনটি উদযাপন করে। আসলে সবার ক্ষুদে বার্তা, ফেসবুকে শুভেচ্ছার উত্তর দিতে দিতেই দিনটি কেটে যাবে।"

তবে তিনি মনে করেন, জন্মদিন অনেকটা হালখাতার মতো। উৎসবের চাইতেও নিজের সঙ্গে বোঝাপড়া করার দিন। সারা বছরের হিসাব নিকাশ মেলানোর দিন। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির ব্যবধার ক্রমশ দীর্ঘ হয়। উদযাপনের চাইতেও তাই উপলদ্ধি বাড়ানোর জন্য দিনটি গুরুত্বপূর্ণ।

বিজনেস আওয়ার/২৮ নভেম্বর, ২০১৭/এমএজেড

উপরে