ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮, ১ শ্রাবণ ১৪২৫


রোহিঙ্গাদের জন্য ২৩১২ কোটি টাকার প্রকল্প

২০১৭ নভেম্বর ২৮ ২২:৫৯:১৮

মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে পুনর্বাসন করা হবে। এ জন্য ২ হাজার ৩১২ কোটি টাকার আশ্রয়ণ-৩ প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। নৌবাহিনী এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। ২০১৭ সালের জুলাই মাসে শুরু হয়ে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে শেষ হবে। বিদেশি সহায়তা ছাড়াই সম্পূর্ণ দেশজ অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এই প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়। শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন দিয়েছেন যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার পর ভূমিহীন মানুষকে ভাসানচরে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে হবে।

প্রকল্প প্রস্তাবে বলা হয়েছে, এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে পুনর্বাসন করা হবে। ১ লাখ ৩ হাজার ২০০ মানুষের বসবাসের জন্য ১২০টি গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া ভাসানচরের অভ্যন্তরে সড়ক, পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা, নলকূপ বসানোসহ যাবতীয় অবকাঠামো তৈরি করা হবে।

আজকের একনেক সভায় এই প্রকল্পটিসহ মোট ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে মোট ব্যয় হবে ১০ হাজার ৯৯ কোটি টাকা। প্রকল্পগুলো দেশজ অর্থে বাস্তবায়ন করা হবে। একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন (ময়মনসিংহ জোন), মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও রাজবাড়ী জেলা গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলার গুরুত্বপূর্ণ পল্লি অবকাঠামো উন্নয়ন, সিরাজগঞ্জ জেলার গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন, গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন (২য় পর্যায়), নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষ্মীপুর জেলায় ক্ষুদ্র সেচ উন্নয়ন, আজিমপুর সরকারি কলোনির অভ্যন্তরে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বহুতল আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ (২য় পর্যায়), ঢাকার জিগাতলায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের (গণপূর্ত ও স্থাপত্য অধিদপ্তর) জন্য ২৮৮টি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ, ঢাকার মতিঝিলে সরকারি কলোনিতে (হাসপাতাল জোন স্টোর কম্পাউন্ড) বহুতল আবাসিক ভবন নির্মাণ, কুমিল্লা শহরের শাসনগাছা রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণ, শেরপুর (আখেরবাজার)-লঙ্গরপাড়া-শ্রীবর্দী (মামদামারী) সড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুত করা, উচ্চমাধ্যমিক উপবৃত্তি ও চট্টগ্রাম মুসলিম ইনস্টিটিউট সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্স স্থাপন প্রকল্প।

উপরে