বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও বছর টাকা পেতে বছরের পর তিন জীবন বিমা কোম্পানির দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ৩০ হাজার গ্রাহক। নানা অজুহাত দেখিয়ে গ্রাহকদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে বার বার। যার ফলে গ্রাহকরা সর্বশেষ দারস্থ হতে শুরু করেছেন বিমা নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে।

বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) সূত্রে জানা গেছে, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি গোল্ডেন ও পদ্মা ইসলামী লাইফ এবং অ-তালিকাভুক্ত বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির কাছ থেকে বিমার টাকা পেতে গ্রাহকদের হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানটির কাছে অভিযোগ রয়েছে, নির্ধারিত সময়ের পর অন্তত ৩০ হাজার গ্রাহককে টাকা পরিশোধ করেনি কোম্পানিগুলো। এর মধ্যে ৫-৮ বছর ধরে বিমা দাবি পরিশোধ করেনি ১০ হাজার গ্রাহককে। বাকি ২০ হাজার গ্রাহক বিমা দাবি পাবে ২-৫ বছর ধরে।

কোম্পানি তিনটির মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিমা দাবি না পরিশোধের অভিযোগ রয়েছে বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের বিরুদ্ধে। কোম্পানির তথ্যমতে, ১৫ হাজারের বেশি বিমা দাবি রয়েছে কোম্পানিটির।

১০ হাজারের বেশি গ্রাহক বিমা দাবি পায়নি গোল্ডেন ইসলামী লাইফের কাছে। অন্যদিকে ১ হাজার ৬শ' গ্রাহক পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির কাছে বিমার টাকা পাবে বলে দাবি কোম্পানি কর্তৃপক্ষের।

সূত্র জানে গেছে, গ্রাহকদের ভোগান্তি লাঘবের লক্ষ্যে গত সপ্তাহের শেষে গোল্ডেন, বায়রা এবং পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির গ্রাহক-এমডিসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং আইডিআরএ'র কর্তৃপক্ষের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বিমার গ্রাহকরা তাদের ভোগান্তির কথা তুলে ধরেন।

তবে এ ব্যাপারে পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) বলেন, চট্টগ্রামের চারজন গ্রাহক বেশ কিছুদিন আগে আইডিআরএতে অভিযোগ করেছিলেন। কিন্তু আমরা এই চারজনকে আগেই বিমার ক্লেইম পরিশোধ করেছি। ফলে ওইদিন অভিযোগকারীরা আসেনি। ফলে আইডিআরএ আমাদের কিছু বলেনি।

গ্রাহকদের মেয়াদশেষ হওয়ার পরও কতজন গ্রাহকদের বিমা দাবি পরিশোধ করা হয়নি প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১৫-১৬শ' গ্রাহকের বিমা দাবি আছে। আশা করছি, দ্রুত বিমা দাবিগুলো দিয়ে দিবো। আইডিআরএর সঙ্গে যে বৈঠক হয়েছে-সেখানে গোল্ডেন ও বায়রা লাইফের গ্রাহকরা উপস্থিত ছিলেন। কর্তৃপক্ষ তাদের এই নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে আইডিআরএ'র সদস্য গকুল চাঁদ দাস বলেন, তিনটি কোম্পানির বিরুদ্ধে হাজারও গ্রাহকের বিমা দাবি পরিশোধ না করার অভিযোগ এসেছে। আমরা কোম্পানিগুলোর এমডিদের সঙ্গে বসেছি। তাদের কথা শুনেছি।

কতজন গ্রাহক প্রকৃতপক্ষে এই দাবি পাবেন তাদের সংখ্যা ১ মাসের মধ্যে জানানোর নির্দেশ দিয়েছি। একইসঙ্গে দাবিগুলো কিভাবে পরিশোধ করবে তার একটি পরিকল্পনা দিতে বলেছি।

বিজনেস আওয়ার / ১৬ এপ্রিল ২০১৮ / এমএএস