বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ অনলাইনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গত দুই দিনে দুই লাখের বেশি আবেদন জমা হয়েছে। এ বছর নয়টি বোর্ডের অধীনে প্রায় সাড়ে সাত হাজার কলেজে শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারবেন।

এ বিষয়ে ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, গত রোববার একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তি আবেদন শুরু হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত দেশের আটটি সাধারণ বোর্ড ও মাদরাসা বোর্ডের অধীন বিভিন্ন কলেজে প্রায় ২ লাখ ১০ হাজার আবেদন জমা হয়েছে।

সারাদেশে আটটি সাধারণ ও মাদরাসা বোর্ডের অধীনে ৭ হাজার ৩১৯টি কলেজে ২৮ লাখ ৭৬ হাজার ২৯৯টি আসন রয়েছে। তার মধ্যে ঢাকা বোর্ডের অধীনে ৯৮৭টি কলেজ রয়েছে। সেখানে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৮৮৭টি আসন রয়েছে।

মাদরাসা বোর্ডের অধীনে ৩২ হাজার ৩৬৪টি কলেজে ৪২ হাজার ৭৪৪টি আসন রয়েছে। তাই ভর্তি আসন সংকট হবে না। যে সকল কলেজে আসন সংখ্যার চাইতে বরাবর শিক্ষার্থী ভর্তি কম রয়েছে-এমন প্রায় ২০০ প্রতিষ্ঠানে আসন সংখ্যা কমানো হয়েছে।

জানা গেছে, এবার ঢাকা বোর্ডে মোট ৪ লাখ ৩২ হাজার ২০১ জন পাশ করেছে। পাশ করা শিক্ষার্থীর চাইতে আসন সংখ্যা বেশি রয়েছে। এছাড়াও আট বোর্ডের অধীনে ২১ লাখ ৩৩ হাজার ৫৫৯টি আসন রয়েছে।

সেখানে এবার ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পাশ করেছেন। সাধারণ বোর্ডেও পাশের চাইতে আসন সংখ্যা বেশি রয়েছে।

অন্যদিকে, শিক্ষার্থীর ভর্তি চাহিদা রয়েছে অথচ আসন সংখ্যা কম এমন ১৫০টির মতো কলেজে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এবার কারিগরি বোর্ডের ভর্তি কার্যক্রম আলাদা করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

গত রোববার থেকে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ও এসএমএস'র মাধ্যমে ভর্তি আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে। আবেদন কার্যক্রম শেষ হবে আগামী ২৪ মে। তবে ফল পুনর্নিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে, তাদের আবেদন আগামী ৫ ও ৬ জুন পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে।

প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে ১০ জুন। এবার শিক্ষার্থী ভর্তির নিশ্চায়ন না করলে নির্বাচন ও আবেদন বাতিল হবে। এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ১৯ ও ২০ জুন। দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের তালিকা প্রকাশ করা হবে ২১ জুন।

তৃতীয় পর্যায়ে আবদেন গ্রহণ করা হবে ২৪ জুন। এই পর্যায়ের তালিকা প্রকাশ হবে ২৫ জুন। আনুষঙ্গিক কাজ শেষ করে ২৭ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ভর্তি চলবে। আগামী পহেলা জুলাই থেকে একাদশের ক্লাস শুরু হবে।

বিজনেস আওয়ার/১৫মে/এমএএস