বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : এসকোয়্যার নিট কম্পোজিটের নিলামের ৪৮ ঘন্টায় কাট-অফ প্রাইস ৩০ টাকা স্পর্শ করেছে। তবে নিলামের এখনো ২৪ ঘন্টা বাকি রয়েছে। এক্ষেত্রে ৩০ টাকার উপরে যত দর প্রস্তাব হবে, তত বাড়বে কাট-অফ প্রাইস।

সোমবার (০৯ জুলাই) বিকাল ৫টায় শুরু হওয়া বিডিংয়ের ৪৮ ঘন্টায় বা বুধবার (১০ জুলাই) বিকাল ৫টায় এই চিত্র দেখা গেছে। তবে কোম্পানিটির কাট-অফ প্রাইস নির্ধারনের লক্ষ্যে এই বিডিং চলবে ১২ জুলাইয়ের বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

কোম্পানিটির নিলামে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দ ৯৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার। যা নিলামের ৪৮ ঘন্টায় প্রস্তাবকারীদের সর্বোচ্চ ৪৬ টাকা থেকে ৩০ টাকায় প্রস্তাবিত দরে পূরণ হয়েছে।

বিডিংয়ের ৪৮ ঘন্টায় ৯০ জন বিডার দর প্রস্তাব করেছেন। এরমধ্যে ৪৫ টাকা দরে সবচেয়ে বেশি ১৬ জন বিডার দর প্রস্তাব করেছেন। এই ১৬ জন বিডার ৭১ লাখ ৩৮ হাজার ৪০০টি শেয়ার ২৬ কোটি ৬২ লাখ ২ হাজার টাকায় কেনার জন্য দর প্রস্তাব করেছেন। এরপরে ৩০ টাকায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দর প্রস্তাব করেছেন ১২ জন বিডার এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৯ জন ৩৫ টাকা করে দর প্রস্তাব করেছেন।

বিডিংয়ে ৯০ জন বিডার ৪৬ টাকা থেকে ১৫ টাকায় দর প্রস্তাব করেছেন। এবং ১৫৪ কোটি ১০ লাখ ৩৫০০ টাকার দর প্রস্তাব করেছেন।

এসকোয়্যার নিট কম্পোজিট লিমিটেড শেয়ারবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এরমধ্যে বিডিংয়ে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দ ৯৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এই বরাদ্দকৃত টাকার উপরে বিডিংয়ের মাধ্যমে নির্ধারিত হবে কাট-অফ প্রাইস।

এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কোম্পানিটির বিডিংয়ের অনুমোদন দেয়।

শেয়ারবাজার থেকে উত্তোলনযোগ্য টাকা দিয়ে এসকোয়্যার নিটের ব্যবসা সম্প্রসারণ, ভবন নিমার্ণ, ডাইং ও ওয়াশিং প্লান্টের জন্য যন্ত্রপাতি কেনা হবে।

৩০ জুন, ২০১৭ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ার প্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ২.৫২ টাকা। আর ২০১৭ সালের ৩০ জুন পুনর্মূল্যায়ন পরবর্তী নিট শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৪৫.৮৩ টাকা।

উল্লেখ কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে প্রাইম ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিডে। আর রেজিস্ট্রার টু দ্য ইস্যুর দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

বিজনেস আওয়ার/১১ জুলাই, ২০১৮/আরএ