বিজনেস আওয়ারঃ নাটোরের বড়াইগ্রাম ও রাজবাড়ী সদর উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন সাতজন। আজ মঙ্গলবার দুপুর থেকে পৃথক এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

নাটোর-পাবনা মহাসড়কে বেলা তিনটার দিকে বড়াইগ্রাম উপজেলার আহম্মদপুর ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ইমরানুল হক (১৮) ও মনিরুল ইসলাম (১৯) মোটরসাইকেলে করে আহম্মদপুর বাসস্ট্যান্ডের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় একটি ট্রাককে অতিক্রম করতে গেলে ট্রাকটি মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে দুজনের মৃত্যু হয়।

অপরদিকে ভোরে গড়মাটি ঘাট এলাকায় একই মহাসড়কে একটি প্রাইভেটকার দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা খেলে প্রাইভেটকারটি দুমড়েমুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে প্রাইভেটকারের চালক সৈয়দ আলীর (৬০) মৃত্যু হয়। আহত হয় প্রাইভেটকারের দুই আরোহী। হতাহতদের বাড়ি পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার মধ্য অড়ংখোলা এলাকায়।

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জি এম সামসুন নূর বলেন, দুই ঘটনায় আলাদা মামলা হয়েছে। ট্রাক চালক পলাতক। গড়মাটির ঘটনার ট্রাক ও প্রাইভেটকারটি থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর এলাকার দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কে দুপুর ১২টার দিকে যাত্রীবাহী একটি লেগুনা উল্টে চালকের সহকারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন চালকসহ পাঁচ যাত্রী। তাঁদের গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিহতের নাম বিল্লাল হোসেন শেখ (২৫)। তিনি গোয়ালন্দ উপজেলার পৌর শহরের তিন নম্বর ওয়ার্ডের নসরউদ্দিন পাড়ার বারেক শেখের ছেলে।

খানখানাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক আবুল কালাম ভূঁইয়া বলেন, এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ২৮৬ দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ২ হাজার ৪৬৬ জন নিহত হয়েছে।

বিজনেস আওয়ার/ রিয়াদুল ইসলাম