ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬


লাঞ্চ ব্রেকের আগে করণীয়

২০১৮ ডিসেম্বর ২৫ ১১:৪৪:০৩

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ অফিসে কী আমরা লাঞ্চ বিরতির অপেক্ষায় থাকি না? ব্যাপারটিতে লুকানোর কিছু নেই! এটি আসলে খুবই দরকার। তাছাড়া, এতে আসন থেকে ওঠার সুযোগও সৃষ্টি হয়। এই সুযোগে কিছু ভালো খাবার খাওয়া আর প্রয়োজনীয় কিছু কাজও সারা যায়, যা পুনরায় ডেস্কে ফিরে আরো দ্রুততার সঙ্গে কাজ করতে উৎসাহ যোগায়।

নিচে দেওয়া হলো লাঞ্চ ব্রেকের আগে কিছু করণীয় :

১। কাজের চাপে আছেন?
কাজের ক্ষেত্রে ভালো দিন বলতে কী বুঝায়? অন্য অনেক জিনিসের মতো, আপনি কী খাবার খেয়েছেন- সেটিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনি যদি শারীরিকভাবে সুস্থ না থাকেন তাহলে কাজেও বাড়তি চাপ ও ক্লান্তি প্রকাশ পাবে বাইরে। সুতরাং, লাঞ্চ ব্রেকের আগে প্রস্তুতি নিন খাবার গ্রহণের।

২। বিরতির জন্যও এটি গুরুত্বপূর্ণ
স্বাস্থ্যকর অভ্যাসগুলো সম্পর্কে আলোচনা করার আগে এবং বিরতির সর্বোত্তম ব্যবহার করার আগে ল্যাপটপ থেকে কিছু সময় অবসর নিন। মনে রাখবেন, আপনাকে কাজ করতে হয় সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত। এর ভেতর কিছু সময় বাইরে থাকতেই হবে। পুনরায় শক্তি সঞ্চয়ের জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ।

৩। সামাজিক হওয়া
সামাজিক হওয়া বলতে বুঝানো হচ্ছে এই ধরুন কিছু সময় আপনি গল্প করে কাটালেন। লাঞ্চ ব্রেকের আগে সহকর্মীদের সঙ্গে কথা বলার জন্য একটু সময় দরকার। এটি কর্মস্থলে একটি ইতিবাচক পরিবেশ তৈরি করতে পারে এবং আপনাকে মানসিক বিরতি দিতে পারে দ্রুত।

৪। লাঞ্চের আগে কিছু খাবার গ্রহণ
খাবার গ্রহণ মানেই যে কেবল দিনে তিনবার ভরাপেট খাওয়া তাই নয়। অর্থাৎ এই ধরনের চাহিদা কেবল লাঞ্চের ওপর পুরোপুরি নির্ভরশীল নয়। সুতরাং, দুপুরের খাবার গ্রহণের আগে একবার হালকা খাবার গ্রহণ করতে পারেন। এতে আপনার শরীরে বাড়তি প্রোটিন যোগ হবে। বাড়বে পরবর্তী দিনের জন্য প্রয়োজনীয় শক্তি।

৫। এগিয়ে নেওয়ার কৌশল
অফিস কর্মকর্তারা নিশ্চয়ই জানেন তাঁদের কর্মদিবস দুই ভাগে বিভক্ত। মধ্যাহ্নভোজের আগে ও পরে। বেশিরভাগ গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো রাখা হয় দ্বিতীয়ার্ধের জন্য। সুতরাং, দ্বিতীয়ার্ধের কাজগুলো কীভাবে উপস্থাপন কিংবা সম্পন্ন করা হবে লাঞ্চ বিরতির আগে তার পরিকল্পনা করা যেতে পারে।

৬। একটু হাঁটাচলা
অফিসে কাজ করছেন মানে এই নয় যে আপনি সারাক্ষণ ডেস্কের সঙ্গে লেগে থাকবেন। এই অবস্থা আপনার মেরুদণ্ড ও নিতম্বকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এ জন্য আপনাকে কিছু শারীরিক আন্দোলন করতে হবে। মাঝে মধ্যে অন্তত মিনিট পাঁচেক হেঁটে এই কাজটি সম্পন্ন করতে পারেন।

৭। কাজের সময়সূচি পরিবর্তন
অনেকেই মনে করি লাঞ্চ বিরতি আমাদের সমস্ত সমস্যার সমাধান দেবে এবং কঠোর পরিশ্রম থেকে উত্তরণে বাড়তি শক্তির যোগাবে। ফলে, আমরা অপেক্ষায় থাকি কখন লাঞ্চ ব্রেক হবে। এই অপেক্ষা আসলে কাজের ক্ষতি করে এবং আমরা আরো অলস হয়ে পড়ি। এ জন্য লাঞ্চ ব্রেকের অপেক্ষায় না থেকে বরং পরিবর্তন করে নিতে পারেন কাজের সময় সূচির।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

বিজনেস আওয়ার/২৫ ডিসেম্বর,২০১৮/আরআই

উপরে