ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬


এসএসসি পরীক্ষা শনিবার

২০১৯ জানুয়ারি ৩১ ২১:১২:৩০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার সারাদেশে মোট ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এদের মধ্যে এসএসসিতে ১৭ লাখ ১০২, দাখিলে তিন লাখ ১০ হাজার ১৭২ এবং ভোকেশনালে এক লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জন।

পরীক্ষা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি পরীক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, গত বছরের তুলনায় এবার মোট পরীক্ষার্থী, ছাত্রী এবং বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে। এবার এক লাখ তিন হাজার ৪৩৪ জন পরীক্ষার্থী বেশি। এর মধ্যে ছাত্রী ৫৬ হাজার ২০৫ জন। বাকি ৪৭ হাজার ২২৯ জন ছাত্র।

‘এবার বিজ্ঞানে পরীক্ষার্থী বেড়েছে। এ বছর পাঁচ লাখ ৪১ হাজার ৩৫৩ জন বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। গত বছর বিজ্ঞানের পরীক্ষার্থী ছিল পাঁচ লাখ তিন হাজার ৬২৭ জন। এবারের পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা তিন হাজার ৪৯৭টি।’

মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৭ লাখ ৪০ হাজার ৯৩৭ জন নিয়মিত। বাকি তিন লাখ ৯১ হাজার ৫৪ জন অনিয়মিত। মানোন্নয়নের পরীক্ষার্থী তিন হাজার ৩৪২ জন।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এবার প্রশ্নফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। তাই কেউ গুজবের পেছনে ছুটে বিভ্রান্ত হবেন না। প্রশ্নপত্র পাঠানোর ক্ষেত্রে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল খাম ব্যবহার করা হবে। এতে প্রশ্নপত্রের প্যাকেটের নিরাপত্তা আরও বেড়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২৭ জানুয়ারি থেকে কোচিং বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সরকারি এ নির্দেশ বাস্তবায়নে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নতুন যেকোনো ব্যবস্থা প্রবর্তন হলে কিছু ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক থাকে। তবে সরকার ইতিবাচক ফলাফলের জন্যই নতুন পদ্ধতি প্রবর্তন করে। শিক্ষার ব্যাপারে যেসব দিক সংস্কার বা হালনাগাদ করণের দাবি আছে, সেগুলো সর্ম্পকে আমরা সচেতন। শিক্ষার্থীরা যেন ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় উপযোগী হিসেবে গড়ে উঠে সেটি বিবেচনায় রাখা হবে।

মন্ত্রী জানান, প্রশ্নপত্র বহন ও পরীক্ষা সংক্রান্ত সব কাজে জড়িত কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। কেবল কেন্দ্র সচিব ক্যামেরা ও ইন্টারনেট সংযোগবিহীন একটি সাধারণ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু তা নিয়ে তিনি পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশ করতে পারবেন না। শিক্ষার্থীদেরকে পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সিটে বসতে হবে। শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রে প্রবেশের পাঁচ মিনিট পর বা পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে পরীক্ষার বিষয়ের সেট কোট এসএমএসে জানানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনের পরে একটি বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, এ বছর প্রতি বিষয়ে এসএসসিতে ১৬ সেট প্রশ্নপত্র মুদ্রণ করা হয়েছে। সব সেট প্রশ্নই কেন্দ্রে যাচ্ছে, যাতে কোন সেটে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে সেটি বোঝা না যায়। মাদরাসা এবং ভোকেশনালে প্রতি বিষয়ে দুই সেট করে প্রশ্ন ছাপানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রশ্নপত্রের সেট কোড জেলা প্রশাসক এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) দাফতরিক মোবাইল নম্বর থেকে কেন্দ্র সচিবদের নম্বরে পাঠানো হবে।

ছাত্রী বেশি এসএসসি ও দাখিলে

এসএসসিতে অংশ নেয়া ১৭ লাখ ১০২ শিক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্রী আট লাখ ৭৭ হাজার ৪৪১ জন। বাকি আট লাখ ২২ হাজার ৬৬১ জন ছাত্র। দাখিলে তিন লাখ ১০ হাজার ১৭২ জনের মধ্যে ছাত্রী এক লাখ ৫৮ হাজার ৬৮২ জন। বাকি এক লাখ ৫১ হাজার ৪৯০ জন ছাত্র। ভোকেশনালে এক লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জনের মধ্যে ছাত্রী ২৮ হাজার ৭৬৯। বাকি ৯৬ হাজার ২৯০ জন ছাত্র।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক প্রমুখ।

বিজনেস আওয়া/৩১ জানুয়ারি, ২০১৯/আরএইচ

উপরে