ঢাকা, রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬


ঘরেই হোক লেমোনেড

২০১৯ মে ১৫ ১৫:২৬:১২

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ গরম মানেই নানা সুস্বাদু ঠাণ্ডা পানীয়। আর তার মধ্যে যদি রঙিন মৌসুমি ফলের স্বাদ ঠাসা থাকে তা হলে তো সোনায় সোহাগা। গরমকালে যত বেশি সম্ভব পানীয় গ্রহণ করা যায় ততই ভালো। তা সে লেমোনেড হোক বা লেবু-পানি। তবে বাজার চলতি প্যাকেটজাত যেসব লেমোনেড পাওয়া যায় সেগুলোর মধ্যে উপকারী উপাদান তেমনভাবে থাকে না, যা বাড়িতে বানালে পাওয়া সম্ভব। যদি আপনি বাড়িতে সুস্বাদু এবং স্বাস্থ্যকরভাবে লেমোনেড বানাতে চান, তবে একটি রেসিপি জেনে নেয়া যাক।

লেবুর গন্ধটাই অসম্ভব ক্লান্তিনাশক এবং মন ভালো করে দেওয়ার মতো। লেবুর মধ্যে থাকে ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধ করতে সক্ষম অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এ ছাড়াও লেবুতে যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন সি, সামান্য ভিটামিন বি, জিঙ্ক, পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম পাওয়া যায়।

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অল্প একটু লেবু কেটে খেলে প্রচুর উপকার পাওয়া যায়। ডায়াবেটিস রোধে, কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা এড়াতে এবং চকচকে উজ্জ্বল ত্বক পেতে চাইলে লেবুর জুড়ি মেলা ভার। অনেকে পিত্তথলীতে পাথর সমস্যা এড়াতে লেবুর সঙ্গে অলিভ অয়েল মিশিয়ে ঘরোয়া টোটকা মনে করে পান করেন। লেবুর মধ্যে থাকা হজমে সহায়ক উপাদান হজমশক্তিকে উন্নত করে ওজন কমায়, মুখের দুর্গন্ধ দূর করে। এছাড়াও দাঁতের স্বাস্থ্যহানির বা মুখে কোনোরকম ঘা, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা, জ্বর এবং উচ্চ রক্তচাপের ক্ষেত্রে লেবু কার্যকর। লেবুর মধ্যে নানারকম রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা বর্ধক উপাদান বর্তমান।

লেমোনেড বানানোর পদ্ধতিও খুব সোজা। লেবুর খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে তাকে চিপে রস বের করে নিন। এ বার এর মধ্যে খানিকটা চিনি দিয়ে আধ ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা রেখে দিন। দেখবেন চিনি একেবারে মিশ্রিত হয়ে যাবে। তার পরে লেবুর বীজ বার করে নিন এবং ওর মধ্যে গরম ফুটন্ত পানি ঢেলে দিন। প্রয়োজনে আরো খানিকটা লেবুর রস ওতে যোগ করুন। জলটি ঠাণ্ডা হলে ফ্রিজ থেকে বার করে পুদিনা পাতা সহযোগে পরিবেশন করুন।
সূত্র: এনডিটিভি

বিজনেস আওয়ার/১৫মে,২০১৯/ আরআই

উপরে