ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬


কলকাতায় জঙ্গি সন্দেহে বাংলাদেশিসহ গ্রেফতার ৪

২০১৯ জুন ২৫ ১৪:২২:২৭

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক : কলকাতায় নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কলকাতা পুলিশ। এদের মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি ও একজন ভারতীয়।

সোমবার (২৪ জুন) সন্ধ্যায় কলকাতার হাওড়া ও শিয়ালদহ এলাকা থেকে পুলিশের স্পেশাল টাস্কফোর্স (এসটিএফ) ওই চারজনকে গ্রেপ্তার করে বলে আজ এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ডিএনএ জানায়।

গ্রেপ্তার চার ব্যক্তি জেএমবির নতুন সংগঠন নিও-জেএমবির সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের সূত্রে পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরেই কলকাতা শহরে আত্মগোপন করে ছিল ছয় সদস্যের একটি জেএমবি দল।

গতকাল গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এসটিএফ প্রথমে শিয়ালদহ স্টেশনের পার্কিং লটের কাছ থেকে দুজনকে আটক করে। তাদের জেরা করে জানা যায়, হাওড়া স্টেশন থেকে আরো দুজন ট্রেনে পালানোর পরিকল্পনা করছে।

পরে সেখান থেকে ওই দুজনকেও আটক করা হয়। তাদের কাছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএস'র অনেক নথি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তিন বাংলাদেশি জেএমবি সদস্য সংগঠনের জন্য অর্থ ও নতুন সদস্য জোগাড়ের উদ্দেশ্যে ভারতে এসেছিল।

দু-একদিনের ভেতরেই তাদের বাংলাদেশে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। এ ছাড়া আটক ভারতীয় ব্যক্তি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার বাসিন্দা বলে জানায় পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের কাছে থেকে কিছু ভিডিও চিত্র পাওয়া গিয়েছে। যেগুলো মূলত জঙ্গি প্রশিক্ষণ কাজের ব্যবহার করা হয়। শুধু তাই নয়, কিছু মোবাইল নম্বর এবং ক্ষুদেবার্তা উদ্ধার করেছে পুলিশ যার সঙ্গে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা প্রায় নিশ্চিত হয় পুলিশ।

কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্কফোর্সের যুক্ত কমিশনার শুভঙ্কর সিংহ জানান, বাংলাদেশি ওই যুবকরা সবাই জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ এই সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। বাংলাদেশে গ্রেফতার এড়াতেই তারা ভারতের প্রবেশ করে।

ভারতের জাতীয় লোকসভা নির্বাচনের সময় আইএস জঙ্গি সংগঠন তাদের মুখপত্র আমাখ নিউজের দাবি করেছিল যে তারা বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গকে টার্গেট করেছে। ওই দাবির পরই ভারতের গোয়েন্দারা সক্রিয় হয় এবং এই জঙ্গি নেটওয়ার্কের খোঁজ নিতে শুরু করে।

কলকাতার গোয়েন্দা সূত্র বলছে, ধৃতদের জেরা করে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। এবং এই নেটওয়ার্কের আরো জড়িত যারা তাদেরও খুব শিগগিরই গ্রেফতার করা হবে।

যদিও গ্রেফতার তিন বাংলাদেশি নাগরিক বলেও দাবি করলেও তাদের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানায়নি কলকাতা পুলিশের বিশেষ টাক্সফোর্সের গোয়েন্দারা।

বিজনেস আওয়ার/২৫ জুন, ২০১৯/এ

উপরে