ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬


কাদেরকে চেয়ারম্যান মানেন না রওশন

২০১৯ জুলাই ২৩ ১১:২৮:১৮

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পদে জি এম কাদেরকে মানতে রাজি নন রওশন এরশাদ। গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ দাবি করেছেন।

বিবৃতিতে পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পরবর্তী চেয়ারম্যান না হওয়া পর্যন্ত জি এম কাদেরকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন রওশন।

বিবৃতিতেতিনি লিখেছেন, সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের মারফত আমরা জানতে পেরেছি জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে, যা আদৌ কোনও যথাযথ ফোরামে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্বপালনকালে জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র ধারা ২০ (২) এর খ-এ দেওয়া ক্ষমতা তিনি প্রয়োগ করতে পারবেন।

যথা-‘মনোনীত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রেসিডিয়ামের সংখ্যাগরিষ্ঠদের মতামতের ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করবেন। চেয়ারম্যানের অবর্তমানে ধারা ২০ (২) এর ‘ক’ কে উপেক্ষা করা যাবে না।

আশাকরি বর্তমানে যিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন, তিনি পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পরবর্তী চেয়ারম্যান না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন। বিবৃতিতে দলের সব নেতা-কর্মীকে গঠনতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, মৃত্যুর কয়েকদিন আগে ছোটভাই জিএম কাদেরকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। নিজের অবর্তমানে জি এম কাদেরকে পরবর্তী চেয়ারম্যান হিসেবেও ঘোষণা করেন তিনি।

গত ১৪ জুলাই সিএমএইচে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান এরশাদ। ১৬ জুলাই সম্পন্ন হয় তাঁর দাফন। পরদিন বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন ডেকে জি এম কাদেরকে দলের চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দেন মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা।

যদিও ঐ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না দলের সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদসহ প্রভাবশালী অনেক নেতাই। প্রশ্ন ওঠে দলের শীর্ষ ফোরাম প্রেসিডিয়ামদের মতামত ছাড়া জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান ঘোষণার বৈধতা নিয়েও।

যদিও কাদের বরাবরই দাবি করে আসছিলেন এ নিয়ে দলের মধ্যে কোনো বিভেদ তৈরি হয়নি। তবে সোমবার মধ্যরাতে রওশন এরশাদ দলকে চিঠি দিয়ে জানান, জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান ঘোষণা বৈধ নয়। তার সঙ্গে একাত্মতা জানান ১০ জন শীর্ষ নেতা।

জাতীয় পার্টির কয়েকজন শীর্ষ নেতা জানান, এটা জাতীয় পার্টির ধারা পরিপন্থী। এমন পরিস্থিতিতে জাতীয় পার্টিতে নতুন করে ভাঙন তৈরির শঙ্কায় দলের নেতাকর্মীরা।

বিজনেস আওয়ার/২৩ জুলাই, ২০১৯/এ

উপরে