ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬


কিডনি সমস্যায় শরীরের উপসর্গগুলো

২০১৯ আগস্ট ১৪ ২২:২২:২৫

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ সুস্থ জীবন যাপনে কিডনি সুস্থতার কোনো বিকল্প নেই। প্রয়োজন শুধু সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত। বাংলাদেশের প্রায় ২ কোটির বেশি মানুষ কিডনি রোগে আক্রান্ত। যারা দীর্ঘদিন ধরে উচ্চরক্তচাপ এবং ডায়াবেটিসে ভুগছেন, তারা দেরি না করে শিগগিরই কিডনি পরীক্ষা করিয়ে নিন। পরীক্ষা করে নিন আপনার কিডনী সুস্থ আছে কিনা।

অন্যথায় ডাক্তারের পরামর্শমতো দ্রুত ব্যবস্থা নিন। ইতিমধ্যে যারা কিডনি রোগে আক্রান্ত আছেন,সাথে উচ্চ রক্তচাপ এবং ডায়াবেটিসও আছে তারা রক্তচাপ এবং রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখুন। কিডনি সমস্যাও নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট অনুযায়ী বাংলাদেশে আকস্মিক কিডনি বিকলের একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে ডায়রিয়া। ডায়রিয়ার ফলে দেহে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। আর এর ফলে শিশু এবং বড় উভয়েরই আকস্মিক কিডনি বিকলের সম্ভাবনা থাকে। অনেক সময় মহিলারা যেখানে সেখানে গর্ভপাত করেন, সেক্ষেত্রে অতিরিক্ত রক্তপাতের কারণে এবং ইনফেকশনের কারণে তাদের আকস্মিক কিডনি বিকল হতে পারে।

এছাড়া মহিলাদের প্রস্রাবে ইনফেকশনও কিডনীর উপর বিরুপ প্রতিক্রিয়া ফেলতে পারে। জরায়ু ক্যান্সার, ইউটেরিয়ান প্রোল্যাপ্স বা ইউরিন ইনফেকশন থাকলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এর চিকিৎসা করানো উচিত। সময় মতো চিকিৎসা না করালে কিডনি বিকল পর্যন্ত হতে পারে।

কিডনির সমস্যা বা অসুখকে সাধারণত ‘নীরব ঘাতক’ বলা হয়। কারণ, কিডনির সমস্যা হলে নির্দিষ্ট কোনও উপসর্গ দেখা যায় না। তবে কিছু কিছু লক্ষণ দেখা দিলে আগে থেকে সতর্ক হওয়া দরকার। যেমন-

১. মুখ, চোখের কোল যদি হঠাৎ অস্বাভাবিক ভাবে ফুলে ওঠে, তা হলে অবশ্যই সতর্ক হওয়া জরুরি। কারণ কিডনির সমস্যা হলে এটা হতে পারে।

২. বারবার প্রসাবের বেগ অনুভূত হলে সাবধান হওয়া প্রয়োজন। কারণ কিডনি সঠিক ভাবে কাজ না করলে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৩. হাত, পা বা পিঠের পেশিতে ঘন ঘন অস্বাভাবিক টান বা খিঁচুনি অনুভূত হলে সতর্ক হন। কারণ কিডনির সমস্যা বা অসুখ হলে এমনটা হতে পারে।

৪. হঠাৎ করে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে গেলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া জরুরি। অনেকসময় কিডনি বিকল হয়ে পড়লে শরীরের ক্ষতিকর পদার্থগুলি জমে ত্বককে শুষ্ক ও রুক্ষ করে দেয়।

৫. গোড়ালি বা পায়ের পাতা হঠাৎ অস্বাভাবিক ফুলে গেলে বিশেষজ্ঞর পরামর্শ নিন।

৬. কিডনির সমস্যা থাকলে একাধিকবার মূত্রথলিতে সংক্রমণ হতে পারে। এ ছাড়াও প্রস্রাবের সময় জ্বালা বা ব্যথাও করতে পারে।

৭. পিঠের দিকে, কোমরের একটু উপরে যদি ঘন ঘন ব্যথা অনুভব করেন তা হলে অবশ্যই সতর্ক হওয়া জরুরি। কিডনি ঠিক ভাবে কাজ না করলে অনেক ক্ষেত্রে প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত চলে আসতে পারে।

৮. কিডনির সমস্যায় ঘুমেরও ব্যাঘাত ঘটতে পারে।

৯. রক্তচাপের দ্রুত ওঠানামা, অল্প পরিশ্রমেই ক্লান্ত হয়ে পড়া, অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠা, শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্ট হওয়ার পেছনেও কিডনি সমস্যা থাকতে পারে।

১০. কিডনি ঠিক ভাবে কাজ না করলে অনেক ক্ষেত্রে প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত চলে আসতে পারে। এ ধরণের সমস্যা হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

সূত্র : জি নিউজ

বিজনেস আওয়ার/১৪ আগস্ট,২০১৯/আরআই

উপরে