ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬


সিন্ডিকেট থেকে কি বেরিয়ে আসতে পারবে ছাত্রদল!

২০১৯ আগস্ট ২০ ১১:৪২:৫৭


বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর বহুল প্রত্যাশিত কাউন্সিল হতে যাচ্ছে। তবে নয়া সম্ভাবনাময় ছাত্রদল বেরিয়ে আসতে পারবে কি না, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। কারণ ছাত্রদলে সিন্ডিকেটের থাবা। ছাত্রদলকে নিয়ন্ত্রণ করে আসছে চারটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট।

ছাত্রদল নিয়ন্ত্রণ করে এমন চারটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট হলো নিখোঁজ বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী গ্রুপ, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান গ্রুপ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানির নোয়াখালী গ্রুপ ও যুবদল সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর গ্রুপ। এসব গ্রুপের নেতৃত্বে থাকা নেতারা কোনো না কোনো সময় ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃত্বে ছিলেন।

ইলিয়াস আলী গ্রুপের নরসিংদীপন্থী গ্রুপ চাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আল মেহেদী তালুকদারকে সভাপতি করতে। এই গ্রুপে ডামি প্রার্থীও ঠিক করা হয়েছে একজনকে।

নোয়াখালী ও খুলনা-যশোর-বাগেরহাট মিলে প্রার্থী দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক হাফিজুর রহমানকে। এ গ্রুপটির সমন্বয় করছেন তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ রকিবুল ইসলাম বকুল।

আমানউল্লাহ আমান গ্রুপ ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু গ্রুপ মিলে সভাপতি হিসেবে সদ্য সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক বৃত্তি ও ছাত্র কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সহ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক আশরাফুল আলম ফকির লিঙ্কনকে নিয়ে মাঠে নেমেছে। বরিশাল গ্রুপ ছাত্রদল নেতা মামুন খান ও সাইফুদ্দিন জুয়েলকে বেছে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে রংপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মনিরুজ্জামান হিজবুল, বরিশাল জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল করিম রনি, কক্সবাজার জেলা ছাত্রদল সভাপতি শাহাদাত হোসেন রিপনসহ বিভিন্ন জেলার বেশ কয়েকজন কাউন্সিলরদের বক্তব্য হচ্ছে ভোট তো দেব গোপনে, বড় ভাই আর সিন্ডিকেট ভাই যে যা-ই বলুক, এবার কাজ হবে না।

তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ কয়েকজন নেতা বলেন, যারা কাউন্সিলকে বিতর্কিত করতে কাজ করবে, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তাঁকে জানিয়েছেন তারেক রহমান। স্থায়ী কমিটির ওই নেতা জানান, কাউন্সিলের আগেই সিন্ডিকেট নেতাদের শনাক্ত করে ফোনে কঠোর বার্তা দেবেন তারেক।

উল্লেখ্য, ছাত্রদলের নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ার তারিখ ১৯ ও ২০ আগস্ট। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৩১ আগস্ট। ২২ থেকে ২৬ আগস্ট যাচাই-বাছাই শেষে ২ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ১৪ সেপ্টেম্বর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ভোটগ্রহণ হবে।

বিজনেস আওয়ার/২০ আগস্ট, ২০১৯/এ

উপরে