ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬


মূলধন সংকটে ১১ ব্যাংক, ১৬ হাজার কোটি টাকার ঘাটতি

২০১৯ সেপ্টেম্বর ১২ ০৯:৫৩:৩২

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ চরম অব্যবস্থাপনা আর অনিয়ম-দুর্নীতিতে চলছে ব্যাংক খাত। ঋণের নামে লুট হচ্ছে টাকা। ফলে লাগামহীন বাড়ছে খেলাপি ঋণ। এতে করে সরকারি-বেসরকারি খাতের ১১টি ব্যাংকের আর্থিক ভিত্তির দুর্বলতা প্রকট আকার ধারণ করেছে। তিন মাস আগেও এসব ব্যাংকের সংখ্যা ছিল ১০টি। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ব্যাংক খাতে প্রয়োজনীয় ন্যূনতম মূলধন ঘাটতির পরিমাণ ১৬ হাজার ১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, ব্যাংক খাতে মার্চের তুলনায় জুনে মূলধন পর্যাপ্ততার হার সামান্য বেড়েছে। মার্চে সংরক্ষণের হার ছিল ১১ দশমিক ৪১ শতাংশ। তবে জুনে সামগ্রিক মূলধন সংরক্ষণের হার দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৭৪ শতাংশ। ঘাটতির পরিমাণ কমলেও জুন শেষে মূলধন সংরক্ষণের ব্যর্থ ব্যাংকের সংখ্যা বেড়েছে। মার্চে ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১৮ হাজার ৩৮৮ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক অর্থাৎ জুন মাস শেষে মূলধন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি ও বিশেষায়িত খাতের ৭টি, বেসরকারি খাতের ৩টি ও বিদেশি ১টি ব্যাংক রয়েছে।

আন্তর্জাতিক নীতিমালার আলোকে ব্যাংকগুলোকে মূলধন সংরক্ষণ করতে হয়। বাংলাদেশে বর্তমানে ব্যাসেল-৩ নীতিমালার আলোকে ব্যাংকের ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদের ১০ শতাংশ অথবা ৪০০ কোটি টাকার মধ্যে যেটি বেশি সে পরিমাণ মূলধন রাখতে হচ্ছে। কোনো ব্যাংক এ পরিমাণ অর্থ সংরক্ষণে ব্যর্থ হলে মূলধন ঘাটতি হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, মূলধন ঘাটতি কমে এসেছে জনতা ব্যাংকের। জুনে ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২০১ কোটি টাকা। এর আগে মার্চ শেষে ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি ছিল ৪ হাজার ৮৮৮ কোটি টাকা। এরপরে রয়েছে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক। ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৯০০ কোটি টাকা। এছাড়া ঋণের নামে অর্থ লুটে নেয়া বেসিক ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি বেড়েছে। জুনে ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৬০০ কোটি টাকা। গত মার্চ শেষে এ ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি ছিল ২৩৬ কোটি টাকা।

অগ্রণী ব্যাংকের ঘাটতি গত মার্চ শেষে ১ হাজার ৫৪ কোটি টাকা হলেও জুনে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৪৫৬ কোটি টাকায়। মূলধন ঘাটতি বেড়ে যাওয়ার তালিকায় আরও আছে- রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বেসরকারি খাতের এবি, বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক, আইসিবি ইসলামিক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান এবং সরকারি আরও দু’টি ব্যাংক।

বিজনেস আওয়ার/১২ সেপ্টেম্বর,২০১৯/ আরআই

উপরে