ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬


হিলিতে কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন আমদানিকারকরা

০৬:২১পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ হঠাৎ করেই ভারতে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমদানিতে বাড়তি টাকা গুনতে হচ্ছে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের। তবে বাড়তি খরচ হলেও কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন আমদানিকারকরা। রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) যেখানে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৫২ টাকা থেকে ৫৫ টাকা কেজিদরে বিক্রি হয়েছে, সেখানে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) ৫ থেকে ৭ টাকা কমে ৪৫ থেকে ৪৭ টাকা কেজিদরে পেঁয়াজ বিক্রি করা হয়েছে।

এদিকে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, আগের খোলা এলসি মূল্যে পেঁয়াজ রফতানি করছেন না ভারতীয় ব্যবসায়ীরা। এর জন্য এলসি অ্যামেন্ডমেন্ট করে পুরনো এলসিতে টাকা বাড়াতে হয়েছে এবং নতুন এলসি করে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা শুরু হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, দাম বাড়ানোর আগে এক টন পেঁয়াজ আমদানিতে ২৫০-৩০০ ডলার খরচ হতো, সেখানে এখন ৮৫২ ডলার খরচ হচ্ছে। অর্থাৎ প্রতিকেজি পেঁয়াজ কিনতে ব্যবসায়ীদের খরচ হচ্ছে ৭২-৭৩ টাকা। তবে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) হিলি বন্দরে ব্যবসায়ীরা ৪৫ টাকা থেকে ৪৭ টাকা কেজিদরে পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন। ব্যবসায়ীদের দাবি, এ কারণে তারা মারাত্মকভাবে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

হিলি স্থলবন্দর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এলসি অ্যামেন্ডমেন্ট করে পুরনো এলসিতে ডলার বাড়ানোর ফলে এবং নতুন এলসি খোলায় ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। রবিবার বিকাল থেকে পেঁয়াজের আমদানি শুরু হয়। তবে শনিবার বন্দর দিয়ে পূর্বের টেন্ডারকৃত পেঁয়াজের মাত্র ১৩৫ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়। ডলার বাড়িয়ে দেওয়ায় রবিবার বন্দর দিয়ে ১৭টি ট্রাকে ৩৬৮ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে, আজও বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রয়েছে।

বিজনেস আওয়ার/১৬ সেপ্টেম্বর,২০১৯/ আরআই

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে