sristymultimedia.com

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬


যুবলীগের শীর্ষ পদের ক্ষমতায় ভারসাম্য আসছে

০৮:৩৭এএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের ক্ষমতায় ভারসাম্য আনতে যাচ্ছে যুবলীগ। সংগঠনটির সংশোধিত গঠনতন্ত্রে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব করতে যাচ্ছে আসন্ন সম্মেলন উপলক্ষে গঠিত গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ক উপ-কমিটি। যুবলীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শহীদ সেরনিয়াবত এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, যুবলীগের গঠনতন্ত্রে চেয়ারম্যান বা সাধারণ সম্পাদক পদে দুইবারের বেশি কারো প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করার বিধান আছে। তবে সংগঠনের প্রয়োজনে চেয়ারম্যান ইচ্ছা করলে কাউকে তৃতীয়বারের জন্য মনোনীত করতে পারেন— এমন একক ক্ষমতা তাকে দেওয়া আছে। সেক্ষেত্রে সাধারণ সম্পাদককেও সেই ক্ষমতা দেওয়ার প্রস্তাব থাকছে।

শহীদ সেরনিয়াবত বলেন, কাস্টিং ভোট ও গঠনতন্ত্রের ব্যাখ্যা দেওয়ার বিষয়টি চেয়ারম্যানের একক এখতিয়ার। সেটা অক্ষুণ্ন থাকছে। কেননা, সব সংগঠনেই সভাপতি বা চেয়ারম্যান এই অধিকার ভোগ করেন।

তিনি বলেন, পাশাপাশি সম্মেলনের সময় কাউন্সিলর-সংক্রান্ত কোনও অভিযোগ এলে কেন্দ্র থেকে এককভাবে চেয়ারম্যানকে কাউন্সিলর নির্ধারণের যে ক্ষমতা দেওয়া আছে, সেখানে সাধারণ সম্পাদক পদটি যুক্ত করা হচ্ছে। ফলে এখন থেকে চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক যৌথভাবে এই দায়িত্ব পালন করবেন।

যুবলীগের গঠনতন্ত্রের ১২(ক) ধারায় চেয়ারম্যানকে ৪টি একক ক্ষমতা দেওয়া আছে। এর মধ্যে আছে ‘কাস্টিং ভোট’ দেওয়া। অর্থাৎ কোনও বিষয়ে ভোটাভুটি হলে যদি দুই পক্ষে সমান ভোট পড়ে, তখন চেয়ারম্যান যে পক্ষে ভোট দেবেন সেই পক্ষ বিজয়ী হবে। এই ভোটদানের ক্ষমতাকে ‘কাস্টিং ভোট’ বলা হয়।

গঠনতন্ত্রের ব্যাখ্যাদানের ক্ষেত্রেও যুবলীগের চেয়ারম্যানকে একক ক্ষমতা দেওয়া আছে। সেখানে বলা আছে, যুবলীগের গঠনতন্ত্রের কোনও বিষয় নিয়ে অস্পষ্টতা তৈরি হলে সে বিষয়ে চেয়ারম্যান যে ব্যাখ্যা দেবেন, সেটাই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে। তার এ ক্ষমতাও অক্ষত থাকছে।

শহীদ সেরনিয়াবত বলেন, অন্যান্য ক্ষেত্রেও চেয়ারম্যান-সাধারণ সম্পাদকের যৌথভাবে অথবা কার্যনির্বাহী সংসদে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা বলা আছে। তাই চেয়ারম্যান-সাধারণ সম্পাদকের ক্ষমতার ভারসাম্য আনতে এ দুটি পরিচ্ছদ সংশোধন করাই যথেষ্ট।

এ ব্যাপারে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ বলেন, শীর্ষ পদের ক্ষমতার ভারসাম্যের বিষয়টি আলোচনা হয়েছে। এ নিয়ে কাজ করছে গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ক উপ-কমিটি। তারা প্রস্তাব চূড়ান্ত করে খসড়া গঠনতন্ত্র জমা দেবে। সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে সেটি পাস হলে গঠনতন্ত্রে এ-সংক্রান্ত প্রস্তাব চূড়ান্তভাবে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

বিজনেস আওয়ার/১৯ নভেম্বর, ২০১৯/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে