sristymultimedia.com

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬


ব্র্যাক ইপিএলের বিক্রির চাপ আরও বেড়েছে

০৬:২০পিএম, ২০ নভেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : আগেরদিন থেকে বুধবার (২০ নভেম্বর) ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজের (ডিলার ও গ্রাহক হিসাব) বিক্রির চাপ আরও বেড়েছে। যা দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মূল্যসূচক পতনে ভূমিকা রেখেছে। এদিনও আগের দিনের ন্যায় হাউজটি থেকে সবচেয়ে বেশি শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) ব্র্যাক ইপিএলের বিক্রির পরিমাণ ক্রয়ের থেকে ১৫ কোটি টাকা বেশি ছিল। যা বুধবার হয়েছে ২৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকা বেশি।

আজ ব্র্যাক ইপিএল থেকে ৩৮ কোটি ১৫ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট বিক্রি করা হয়েছে। এর বিপরীতে কেনা হয়েছে ১৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকার। অর্থাৎ কেনার চেয়ে ২৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকার বা ১৬৬ শতাংশ বেশি বিক্রি করা হয়েছে। যা আজকে যেকোন হাউজের মধ্যে বেশি। আর এই বিক্রয় চাপই মূল্যসূচকের পতনে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৩০ পয়েন্ট।

আগেরদিন (১৯ নভেম্বর) ব্র্যাক ইপিএল থেকে ৩০ কোটি ৯৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট বিক্রি করা হয়েছিল। এর বিপরীতে কেনা হয়েছিল ১৫ কোটি ৬৩ লাখ টাকার। অর্থাৎ কেনার চেয়ে ১৫ কোটি ৩৬ লাখ টাকার বা ৯৮ শতাংশ বেশি বিক্রি করা হয়েছিল। যা ওইদিন যেকোন হাউজের মধ্যে বেশি ছিল।

বুধবার নিট বিক্রিতে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে আইডিএলসি সিকিউরিটিজ। এ হাউজটি থেকে ১৭ কোটি ৬০ লাখ টাকার শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে। তবে কেনা হয়েছে ১০ কোটি ৭ লাখ টাকার শেয়ার। এ হিসাবে নিট বিক্রির পরিমাণ বেশি ৭ কোটি ৫৩ লাখ টাকার।

এদিকে নিট ৫ কোটি ২১ লাখ টাকার বিক্রির মাধ্যমে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউনাইটেড সিকিউরিটিজ। এ হাউজটি থেকে ৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকার বিক্রির বিপরীতে কেনা হয়েছে ২ কোটি ৬৬ লাখ টাকার।

আগেরদিনের ন্যায় বুধবারও নিট হিসাবে সবচেয়ে বেশি শেয়ার কেনা হয়েছে মোনা ফাইন্যান্সিয়াল কনসালটেন্সি অ্যান্ড সিকিউরিটিজ থেকে। এদিন হাউজটি থেকে ১৪ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার কেনা হয়েছে। আর বিক্রি করা হয়েছে ১ কোটি ৫৯ লাখ টাকার। এ হিসাবে নিট ১৩ কোটি ৪ লাখ টাকার শেয়ার কেনা হয়েছে। আগের দিন নিট হিসাবে ৭ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার কেনা হয়েছিল।

বিজনেস আওয়ার/২০ নভেম্বর, ২০১৯/আরএ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে