businesshour24.com

ঢাকা, সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৬


ইডেনে বাংলাদেশের বড় হার

০৩:০১পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : হারের মঞ্চটা আগে থেকেই প্রস্তুত ছিল। সমীকরণ বলছিল প্রথম ঘণ্টাতেই লেখা হয়ে যাবে বাংলাদেশের আরেকটি ব্যর্থতার কাব্য। সেই সাথে মুশফিকের সেঞ্চুরি সঙ্গে লিডের স্বপ্নটাও যে উঁকি দিচ্ছিল! কিন্তু বাস্তবতার জমিন বড্ড বন্ধুর। না, কোন ম্যাজিকের দেখা মিলেনি ইডেনের নন্দন কাননে! তাই শুরুর ঘণ্টায় বড় হার দেখল বাংলাদেশ।

যে গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে প্রত্যাশা আর আগ্রহের পারদ আকাশ ছুঁয়েছিল, সেখানেই কীনা দেখা মিলল একপেশে, বেসুরো ক্রিকেট। ভারত খেলল আর বাংলাদেশ নিছক সঙ্গটাও দিতে পারল না। ঠিক তাই, ইন্দোরের পর কলকাতাতেও হতাশ করল বাংলাদেশ।

মুমিনুল হকের দলকে ইনিংস ও ৪৬ রানে হারিয়ে ২-০ তে হারিয়ে টেস্ট সিরিজ জিতল ভারত। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে জয় যাত্রা ধরে রাখল বিরাট কোহলির দল। বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে আটকে গেল ১৯৫ রানে। আগের দিন চোট নিয়ে ফেরা মাহমুদউল্লাহ মাঠেই নামতে পারলেন না!

চাপে থেকেই রোববার দুপুরে মাঠে নামে বাংলাদেশ। দিবা-রাত্রির লড়াইয়ে ইনিংস হার বাঁচাতে দিনের শুরুতেই দরকার ঠিল ৮৯ রান। হাতে মাত্র ৪ উইকেট। তবে ওই যে ভরসার নাম ছিল মুশফিক। যিনি ছিলেন উইকেটে। যার ব্যাটে এর আগেও ভারতের বিপক্ষে শতক দেখেছে বাংলাদেশ। কিন্তু এবার হলো না!

ম্যাচটা তৃতীয় দিনে নিয়ে গেলেও খেলা শুরু হতেই বিদায় নেন ইবাদত। অবশ্য এটাই তো স্বাভাবিক, স্বীকৃত ব্যাটসম্যানরা যেখানে ব্যর্থ সেখানে তিনি আর কী করবেন। উমেশ যাদবের বলে কোহলির হাতে ক্যাচ দিয়ে শূন্য হাতে ফেরেন ইবাদত!

এরপর শেষ হয় মুশফিকের সংগ্রাম। ৫৯ রান নিয়ে শুরু করেছিলেন তিনি। এরপর ১৫ রান যোগ করেই রোববার সাজঘরের পথ ধরেন তিনি। অন্যপ্রান্তে উইকেট পড়ছে এ কারণে দ্রুত রান তুলতে গিয়েই কাটা পড়েন মুশি। উমেশ যাদবেকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ভুল করলেন। বল চলে গেল রবীন্দ্র জাদেজার হাতে। ৭৪ রানে থামলেন মুশফিক।

শেষ দিকে আল আমিন হোসেনের ব্যাট থেকে এসেছে ২১রান। যা শুধুরানের ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র। চোট পাওয়া মাহমুদউল্লাহ আরব্যাট হাতে ক্রিজে আসতে পারেননি।বাংলাদেশের বাকি ৯ উইকেট ভাগাভাগি করেছেন দুই পেসার উমেশ যাদব ও ইশান্ত শর্মা।

বিজনেস আওয়ার/২৪ নভেম্বর, ২০১৯/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে