businesshour24.com

ঢাকা, সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৪ মাঘ ১৪২৬


পদ্মাসেতুতে বসল ১৮তম স্প্যান

০১:৪৯পিএম, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : বিজয়ের মাসে বসল পদ্মাসেতুর ১৮তম স্প্যান। সেতুর ১৭ ও ১৮ নম্বর পিলারের উপর বসানো হয়েছে স্প্যানটি। আর সেই দৃশ্যমান হলো ২ হাজার ৭০০ মিটার। ৬.১৫ কিলোমিটার পদ্মাসেতুর দৃশ্যমানের বাকি রয়েছে এখন ৩.৪৫ কিলোমিটার। আর ২৩টি স্প্যান বসলেই ট্রেন ও গাড়িতে চড়ে পদ্মাপাড়ি বাস্তবে রূপ নেবে।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুর ১টা ৬ মিনিটের দিকে দেশি-বিদেশি প্রকৌশলীদের চেষ্টায় মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মাসেতুর ১৭ ও ১৮ নম্বর পিলারের উপর স্থায়ীভাবে বসানো হয় ১৮তম ৩-ই স্প্যানটিকে। পদ্মাসেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, সকাল সাড়ে ৯টায় দিকে মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ধূসর রংয়ের স্প্যানটিকে নিয়ে আসা হয়। সকাল ১০টার দিকে নির্ধারিত পিলারের মধ্যবর্তী স্থানে আসার পর নোঙর করে স্প্যান বহনকারী ক্রেনটি। এরপর ইঞ্চি ইঞ্চি মেপে তোলা হয় পিলারের উচ্চতায় এবং রাখা হয় দুই পিলারের বেয়ারিং এর উপর।

চলতি মাসেই আরো দুটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে প্রকৌশলীদের। আবহাওয়াসহ সবকিছু অনুকূলে থাকায় স্প্যান বসাতে কোনো বেগ পেতে হয়নি সংশ্লিষ্টদের।

জানা গেছে, সেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে বর্তমানে কাজ সম্পন্ন হয়েছে ৩৫টির। সেতুতে ২ হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে ৪১০টি স্ল্যাব বসানো হয়েছে। ২ হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে ১২৫টি বসানো শেষ হয়েছে। পদ্মাসেতুর মোট ৪১টি স্প্যানের মধ্যে চীন থেকে মাওয়ায় এসেছে ৩৩টি স্প্যান। এর মধ্যে ১৭টি স্প্যান স্থায়ীভাবে বসে গেছে।

সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, চলতি মাসের মধ্যেই মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৪-সি ও ৩-এফ স্প্যান দুটি বসানোর সিডিউল রয়েছে। দেশে আসা ৩৩টি স্প্যানের মধ্যে মোট ১৮টি স্পেন বসানো হয়েছে। এর মধ্যে প্রস্তুত রয়েছে পাঁচটি ও বাকি থাকবে ১০টি স্প্যান। যা পর্যায়ক্রমে দ্রুত বসানো হবে।

উল্লেখ্য, ৬ দশমিক ১৫ দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুটি কংক্রিট ও স্টীল দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে।

বিজনেস আওয়ার/১১ ডিসেম্বর, ২০১৯/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে