businesshour24.com

ঢাকা, বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০, ৯ মাঘ ১৪২৬


পুরাতন গাড়ির আমদানি শুল্ক কমানোর দাবি বারভিডার

০৪:৩৮পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : পুরাতন (রিকন্ডিশন) গাড়ির আমদানি শুল্ক কমানোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ রিকন্ডিশন্ড ভীইকেলস ইস্পোর্টার্স এন্ড ডিলারস এসোসিয়েশন (বারভিডা)। শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) রাজধানীর বিজয়নগরে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানানো হয়।

দেশে শুল্ক কাঠামো এমনভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে, কোনো কোনো ক্ষেত্রে নতুন গাড়ির চেয়ে রিকন্ডিশন গাড়ির দাম দ্বিগুন হয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় রিকন্ডিশন্ড গাড়ির আমদানি শুল্ক কমানো জরুরি।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বারভিডার সভাপতি আবদুল হক, সাধারণ সস্পাদক শহিদুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে বারভিডার সভাপতি বলেন, রিকন্ডিশন্ড গাড়ির আমদানির ক্ষেত্রে ক্রমাগত শুল্ক আরোপের কারণে গাড়ির দাম বেড়ে যাচ্ছে। এতে করে রিকন্ডিশন গাড়ির চাহিদা ও ক্রেতা কমে যাচ্ছে। ফলে গাড়ির আমদানির পরিমাণও কমে গেছে। ফলশ্রুতিতে সরকার একদিকে রাজস্ব হারাচ্ছে, অন্যদিকে এই খাতে কর্মসংস্থান সংকুচিত হয়ে পড়েছে।

তাই এই শিল্পকে বাঁচাতে হলে জরুরিভাবে আমদানি শুল্ক কমাতে হবে। কেননা ব্রান্ডনিউ গাড়ি আর রিকন্ডিশন্ড গাড়ির আমদানি শুল্ক কখনো এক হতে পারে না। ব্রান্ডনিউ গাড়ি আর রিকন্ডিশন্ড গাড়ির ক্ষেত্রে কর আরোপে বৈষম্য রয়েছে। একটি জটিল প্রক্রিয়ায় রিকন্ডিশন্ড গাড়ির শুল্কায়ন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা চাই নতুন ও পুরানো গাড়ি নির্বিশেষে সকলের জন্য একটি সুষ্ঠু নীতিমালা প্রণীত হোক। সবার জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করা হোক। জাপান থেকে আমদানিকৃত রিকন্ডিশন্ড গাড়ি ইয়োলো বুকে থাকা নিউ প্রাইসের উপর ভিত্তি করে অপচয় বিয়োজনের পর শুল্কের জন্য মূল্য নির্ধারণ করা হচ্ছে।

অথচ ইয়োলো বুকে পুরনো গাড়ি মাসিক ভিত্তিতে মূল্য নির্ধারণ করা রয়েছে। কিন্তু কাস্টমস কর্তৃপক্ষ তা আমলে না নিয়ে নতুন গাড়ি বিবেচনায় রিকন্ডিশন্ড গাড়ির মূল্য নির্ধারণ করছে।

আবদুল হক আরও বলেন, অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের কারণে বর্তমানে এই শিল্প হুমকির মুখে পড়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২৩ হাজার ৭৫টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদতানি হলেও ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তা কমে ১২ হাজার ৫০২টিতে নেমে এসেছে।

চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি হয়েছে মাত্র ৩ হাজার ৪৩৮টি। এতে করে সরকার হাজার কোটি টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে। পাশাপাশি ভোক্তারা ভালো মানের পরিবেশ বান্ধব জাপানি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

বিজনেস আওয়ার/১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে