businesshour24.com

ঢাকা, সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৪ মাঘ ১৪২৬


ইউক্রেনের বিমান ভূপাতিত করার দায় স্বীকার ইরানের

১০:৫৭এএম, ১১ জানুয়ারি ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইউক্রেনের যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার দায় স্বীকার করেছে ইরান। শনিবার (১১ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় সকালে এক বিবৃতির মাধ্যমে এ দায় স্বীকার করেছে দেশটি। ইরানের সামরিক বাহিনী স্বীকার করেছে যে তারা ভুল করে সেদিন ওই বিমানটি ভূপাতিত করেছিল।

বিবৃতির উদ্ধৃতি দিয়ে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানায়, ইরানের সামরিক বাহিনী ভুলবশত ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে প্লেনটিকে ভূপাতিত করেছে। প্লেনটি ইরানের রেভুলেশনারি গার্ডের অন্তর্গত একটি সংবেদনশীল অঞ্চল দিয়ে যাওয়ার সময় এটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়। এই ঘটনার জন্য দায়ীদের জবাবদিহিতা করতে হবে।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ এক টুইট বার্তায় বলেন, মার্কিন নেতৃত্বাধীন সংকটের কারণে মানবিক ভুলে এই বিপর্যয় ঘটেছে। এটি একটি বেদনাদায়ক দিন। সশস্ত্র বাহিনীর অভ্যন্তরীণ তদন্তে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছানো গেছে যে মানবিক ভুলেই এই বিপর্যয় ঘটেছে। আমাদের জনগণ, ভুক্তভোগীদের পরিবার ও আক্রান্ত দেশগুলোর প্রতি আমাদের গভীর সমবেদনা, দুঃখ ও শোক প্রকাশ করছি।

এর আগে তেহরানের কাছে বিধ্বস্ত হওয়া প্লেনটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্বস্ত হয়েছে বলে যে দাবি করা হয়েছে, তা অস্বীকার করেছে ইরান। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ অন্যন্যা পশ্চিমারা দাবি করে আসছিলো ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় এটি হয়েছে।

সিবিএস নিউজ মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছিলো, একটি স্যাটেলাইট দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার বিষয়টি শনাক্ত করেছে। আর তার পরেই বিস্ফোরণের আরেকটি বিষয় শনাক্ত করে স্যাটেলাইট। মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার পর পাল্টা হামলা প্রতিরোধ করতে প্রস্তুত ছিলো ইরান। তারা (ইরান) যাত্রীবাহী প্লেনটিকে যুদ্ধ বিমান ভেবে ভুলবশত আক্রমণ করে।

উল্লেখ্য, ইরানের রাজধানী তেহরান থেকে ইউক্রেনগামী একটি বিমান গত বুধবার উড্ডয়নের তিন মিনিটের মাথায় বিধ্বস্ত হয়ে ১৭৬ জন আরোহীর সবাই নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে ৮২ জন ইরানি, ৬৩ জন কানাডিয়ান, ১১ জন ইউক্রেনের, ১০ সুইডিশ, চার আফগান ও তিনজন জার্মানির নাগরিক ছিলেন বলে জানা গেছে।

বিজনেস আওয়ার/১১ জানুয়ারি, ২০১৯/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে