ঢাকা, শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০, ১৪ চৈত্র ১৪২৬


শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারন করতে হবে- কৃষি মন্ত্রী

০৫:২১পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক (টাঙ্গাইল) : শিক্ষার্থীদের আচরণ এমন হতে হবে যা অন্যকে অনুপ্রানিত করে আত্মাকে স্পর্শ করে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারন করে দেশ প্রেম উজ্জীবিত হয়ে বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতা এবং বাংলাদেশকে জানতে হবে। মানুষের মতো মানুষ হতে হবে, আর্দশবান মানুষ হতে হবে। বললেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. মো:আব্দুর রাজ্জাক এমপি।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ডক্টর আয়েশা রাজিয়া খোন্দকার স্কুল এন্ড কলেজ এর দশম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত সোনার বাংলাদেশ গড়ার আর বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখিয়েছেন উন্নত সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশের,আমারা সেই স্বপ্ন পূরণের দিকে অগ্রসর হচ্ছি। তাই সততা নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশের উপযোগি নাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, আজকের যারা এখানে আছো তোমাদের হাতেই ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিবে। মেধা মননে মানবিক মূল্যবোধে বলিয়ান হয়ে উন্নত বাংলাদেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে দাড়াতে হবে।

শিক্ষার্থীদের চরিত্র গঠন ও মানবীয় মূল্যবোধের জন্য, সর্বোপরি মানব সম্পদ উন্নয়নের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে প্রধান নিয়ামক। জীবনকে সফল ও সার্থক করার জন্য জ্ঞান অর্জন করতে হবে প্রকৃত মানুষ হতে হবে। কোন জাতির সমৃদ্ধির জন্য সোনা, হিরা, তেল এর খনির চেয়ে শিক্ষিত জনগণ বেশি কার্যকর।

মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তি রাজাকার আল বদররা এখনও দেশে অশান্তির নানা রকম পায়তারা করছে। নির্বাচনের আগেই বিএনপি বলছে নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে না। নির্বাচনের আগেই তারা জয়ী হওয়ার নিশ্চয়তা চায়। সেটা তো সরকার বলতে পারবে না। ভোট দেয়ার মালিক জনগণ। জনগণ যাকে ভোট দেবে তারাই নির্বাচিত হবে।

তিনিবলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার বর্তমানে এগারো বছর ধরে ক্ষমতায় রয়েছে এবং দেশের সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন হয়েছে। এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা আমরা রক্ষা করতে চাই। উন্নয়নের মহাসড়কে দেশকে আমরা সম্পৃক্ত করেছি। এটাকে আমরা তরান্বিত করতে চাই। আমরা শ্লোগান তুলেছি। গ্রামকে আমরা শহর করবো। শহরের সুযোগ সুবিধা দেব।

তিনি আরও বলেন, দেশ আজ খাদ্যে স্বংসম্পুর্ন। যে দেশে খাদ্যের এত সংকট ছিল। আজকে সেই দেশে কৃষক ধান বিক্রি করতে পারে না। তিনি বলেন, কৃষিমন্ত্রী হিসেবে এ জন্য আমাকে জবাবদিহি করতে হয়। ধানের দাম নাই কেন। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি ধান ও চালের দাম বাড়ানোর জন্য।

মন্ত্রীআব্দুর রাজ্জাকবলেন, গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে ডিএপি সারের দাম ২৫ টাকা থেকে কমিয়ে ১৬ টাকা করা হয়েছে। মন্ত্রী প্রশ্ন রেখে বলেন, এটা কে করতে পারে, এটা পারে বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার। শেখ হাসিনা কৃষি বান্ধব কৃষক বান্ধব। ৬০/৭০ ভাগ কৃষক গ্রামে বাস করে। তাদের জীবন মানের উন্নয়নে কৃষকের উন্নয়ন করতে চান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, কৃষকের স্বার্থে ধান লাগানো ও কাটার যন্ত্র ক্রয়ে সরকার অর্ধেক টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে। উপকুলবর্তী এলাকায় এই ভুর্তুকি ৭০ ভাগ পর্যন্ত দিয়ে থাকে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ইভিএম এর মাধ্যমেই ভোট হবে এবং এই নির্বাচন সুষ্ঠু সুন্দর হবে। এই নির্বাচনটি খুবই গুরুত্বপুর্ন। ঢাকা মহানগর দেশের রাজধানী। ঢাকাকে কেন্দ্র করে দেশের সংস্কৃতি অর্থনীতি সকল কিছুই আবর্তিত হয়। ঢাকায় যা হয় তারই ঢেউ লাগে সারাদেশে। এই নির্বাচনটিকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি, 'যোগ করেন' তিনি।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সাবেক সচিব ড. খোন্দকার শওকত হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি একাব্বর হোসেন এমপি, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম প্রমুখ। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস আওয়ার/১৯ জানুয়ারি, ২০২০/টিএ/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে