করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
৫৬
২৬
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
১৮০
৯৮১২২১
৫০২৩০
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬


রসুনের দামে করোনার প্রভাব

১২:৫২পিএম, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ এবার ঝাঁজ দেখা দিয়েছে আমদানিনির্ভর পণ্য রসুনের দামে। যদিও খানিকটা হলেও কমেছে পেঁয়াজের দাম। করোনাভাইরাস আক্রান্ত চীন থেকে নতুন করে পণ্য আমদানি করতে পারছেন না এ দেশের ব্যবসায়ীরা। 'এ কারণে' হঠাৎ করে গত তিন দিনে দাম বেড়েছে প্রায় সব ধরনের রসুন ও চীনা আদার। নিত্যপ্রয়োজনীয় মসলাপণ্য রসুনের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ৩০ থেকে ৫০ টাকা। এতে দেশি পুরোনো ও আমদানি করা রসুনের দাম ডবল সেঞ্চুরি ছাড়িয়েছে। চীনা আদার দাম বেড়েছে কেজিতে ২০ টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, করোনাভাইরাসের কারণে চীন থেকে আমদানিনির্ভর রসুন ও আদা আসা কমেছে। তা ছাড়া দেশি রসুনের মৌসুম শেষ হয়েছে। নতুন আগাম দেশি রসুন এবং আমদানি করা রসুনের সরবরাহও কম। এসব কারণে এ পণ্য দুটির দাম বাড়ছে।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি দেশি পুরোনো রসুন বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ২২০ টাকায়।

আগাম দেশি নতুন রসুনের দাম খুচরা বাজারে ১২০ টাকা; দোকানিরা তা বিক্রি করছেন ১৪০ টাকা কেজি দরে। আমদানি করা রসুন ক্রেতারা কিনছেন ১৯০ থেকে ২০০ টাকায়। গত বৃহস্পতিবারও প্রতি কেজি দেশি পুরোনো রসুন ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি বিক্রি হয়। আমদানি করা রসুন ছিল ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা।

এদিকে গত তিন দিনে পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ৩০ টাকা। বাজারে হালিকাটা বা বীজের পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে। এতে দাম কমে আসছে। গতকাল প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১০০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হয়। আমদানি করা চীনা পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।

বিজনেস আওয়ার/ ৩ ফেব্রুয়ারি,২০২০/আরআই

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে