করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
২১৮
৩৩
২০
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৪,২৯,৪৩৭
৮২,০৭৩
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬


অপরাধ ঠেকাতে রাইডারদের ডাটাবেজ করতে চায় পুলিশ

০১:১৬পিএম, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবার নামে চলছে নানা নৈরাজ্য। প্রতিদিন ছোট-বড় নানা অপরাধে জড়াচ্ছেন রাইড শেয়ারিং এর চালকরা। গত তিন বছরে রাজধানীতে ধর্ষণ, খুন, ছিনতাই, যৌন হয়রানিসহ অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাই ঘটেছে।

এ সব ঘটনায় অপরাধীদের রাইড শেয়ারিং নিবন্ধন থাকলেও চলাচল করেছেন সাধারণের মতো। ফলে তাদের ধরতে হিমশিম খেতে হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে। তাছাড়া অনেক সময় ভুক্তভোগীরা পুলিশের কাছে অভিযোগ নিয়েও যাননি।

তবে সম্প্রতি কয়েকটি মামলার তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ মনে করছে, অ্যাপসভিত্তিক এসব রাইড শেয়ারিংয়ের চালক ও যানবাহনগুলোর একটা পৃথক ডাটাবেজ করা উচিত, যার মাধ্যমে কোনো চালক অপরাধ করলে সহজেই শনাক্ত করা যাবে।

পুলিশ বলছে, যাত্রীরা নিরাপত্তাহীনতায় পড়লে চালকের সব তথ্য এবং যাত্রীর অবস্থান সরাসরি পুলিশের কাছে চলে যাওয়ার কথা। এর জন্য জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্যভাণ্ডারের (ডাটাবেজ) সঙ্গে চালকের তথ্য যুক্ত থাকবে। কিন্তু নিবন্ধন না থাকায় এটা হচ্ছে না।

তাই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও কোনো তথ্য পাচ্ছে না। নিবন্ধন না থাকা বা নিবন্ধনে চলাচল না করার কারণে রাইড শেয়ারিং সেবায় পুলিশের ৯৯৯-এ কল করে যে সেবা দেওয়ার কথা, তা পুরোপুরি দেওয়া যাচ্ছে না।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বনানীর সেই আলোচিত ধর্ষণ ঘটনায় ব্যবহার করা হয়েছিল উবারের গাড়ি। আবার কিছুদিন আগেও উত্তরা থেকে উদ্ধার করা হয় উবার চালকের গলা কাটা মরদেহ। এসব ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা গেছে।

পুলিশ চায়, অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিংগুলোর একটা পৃথক ডাটাবেজ থাকবে, যে ডাটাবেজের ভিত্তিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা যে কারো তথ্য বা অবস্থান জানতে পারবে। যার ফলে অপরাধ প্রবণতা অনেকাংশে কমে আসবে, অপরাধীকে শনাক্ত করা যাবে।

এ বিষয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনায় হওয়া মামলার তদন্ত করতে গিয়ে আমরা অনেক কিছু জেনেছি। তারপর থেকে রাইড শেয়ারিংয়ের চালক ও গাড়ির ওপর বিশেষ নজরদারি শুরু করি।

ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, রাজধানীতে ছিনতাইসহ বেশ কিছু অপরাধের অপরাধীকে শনাক্ত করতে অ্যাপসভিত্তিক যানবাহন ও চালকের পরিচয় সংরক্ষণ করতে পৃথক ডাটাবেজ তৈরি করবো, যেন কেউ অপরাধে জড়ালে চিহ্নিত করতে সমস্যা না হয়।

বিজনেস আওয়ার/১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

৭৩ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ
করোনা: প্রধানমন্ত্রীর কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা

উপরে