করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
২১৮
৩৩
২০
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৪,২৯,৪৩৭
৮২,০৭৩
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬


৩ ক্রিকেটারের শাস্তি কমাতে আপিল করবে বিসিবি

০২:০২পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : যুব বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ও ভারতের কয়েকজন ক্রিকেটার নিজেদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কিতে জড়িয়ে পড়েন। পুরো ম্যাচজুড়ে যে তীব্র আবেগ ও উত্তেজনার রেশ ছিল তারই কিছুটা বহিঃপ্রকাশ ঘটে উভয় দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে।

ইতিহাসে প্রথমবারেরমতো বিশ্বকাপ জেতার পর আনন্দ উদযাপনকালীন সময়ে ভারতীয় ক্রিকেটারদের সাথে কথা কাটাকাটির কারণে শাস্তির মুখোমুখি হয় তিন যুব টাইগার। তবে তাদের শাস্তি কমানোর ব্যাপারে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী।

ক্রিকেটে এমন আচরণের অনুমতি নেই। আর তাই সে দিনের ফাইনালের ভিডিও ফুটেজ দেখে আইসিসি উভয় দলের ৫ জন খেলোয়াড়কে কয়েক ম্যাচ নিষিদ্ধ করেছে। চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের তিনজন ও রানার্সআপ ভারতের দু’জন এই শাস্তির মুখোমুখি হয়েছে।

আইসিসির শাস্তির শিকার বাংলাদেশ দলের তিন ক্রিকেটার হলেন-তৌহিদ হৃদয়, শামিম হোসেন ও রকিবুল হাসান। আর ভারতের দু’জন হলেন- আকাশ সিং ও রবি বিষ্ণই। আইসিসি কোড অব কন্ডাক্টের ২.২১ ধারায় শাস্তি দেয়া হয়েছে তাদের।

এ বিষয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেন, শাস্তির বিষয়টি আমরা জেনেছি। দল দেশে ফিরলে আমাদের ম্যানেজারের কাছ থেকে রিপোর্ট নেয়া হবে। বিস্তারিত সবকিছু জেনে এরপর যদি সুযোগ থাকে আমরা ব্যবস্থা নেবো, আপিল করব শাস্তি কমানোর।

রকিবুল হাসান জয়সূচক শেষ রানটি নেয়ার পর উল্লাসে মাতেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। এ সময় মাঠে থাকা ভারতীয়দের সাথে কথা-কাটাকাটি এমনকি সামান্য ধাক্কাধাক্কিও হয়েছে। পতাকা নিয়ে টানাহেঁচড়ার ঘটনাও ঘটেছে।

এ বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছিলেন অধিনায়ক আকবর আলি। কিন্তু অধিনায়কের প্রার্থনাতেও খুব একটা লাভ হয়নি। পরে পুরো ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন আইসিসির ম্যাচ রেফারি গ্রায়েম ল্যাব্রয়। সে অনুযায়ী শাস্তি পেয়েছেন বাংলাদেশের হৃদয়, শামিম ও রকিবুল।

বাংলাদেশের তৌহিদ পেয়েছেন ১০টি সাসপেনশন পয়েন্ট, যা ৬টি ডিমেরিট পয়েন্টের সমান। শামিমের সাসপেনশন পয়েন্ট ৮টি হলেও ডিমেরিট পয়েন্ট কিন্তু ৬টিই থাকছে। স্পিনার রকিবুল ৪টি সাসপেনশন পয়েন্ট পেয়েছেন, যেটা ৫ ডিমেরিট পয়েন্টের সমান। এ পয়েন্টগুলো তিনজনেরই ক্যারিয়ারে আগামী দুই বছর থেকে যাবে।

এ শাস্তির ফলে আগামী দুই বছর জাতীয় দল বা অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে শাস্তি ভোগ করতে হবে এই পাঁচ ক্রিকেটারকে। এক সাসপেনশন পয়েন্ট মানেই একটি ওয়ানডে বা টি-২০, অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায় বা এ দলের একটি ম্যাচ খেলতে না পারার শাস্তি।

বিজনেস আওয়ার/১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে