করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
২১৮
৩৩
২০
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৪,২৯,৪৩৭
৮২,০৭৩
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬


অভিনেতা তাপস পাল আর নেই, টলিউডে শোকের ছায়া

১১:৫৯এএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিনোদন ডেস্ক : কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল আর বেঁচে নেই। মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ভোরে মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। অভিনেতার পাশাপাশি তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ।

জানা গেছে, ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি ঝোঁক ছিল তাপস পালের। মাত্র ২২ বছর বয়সে মুক্তি পায় তার প্রথম ছবি 'দাদার কীর্তি'। তবে 'গুরুদক্ষিণা' ছবির জন্য তাকে আজীবন মনে রাখবে বাংলার দর্শকমহল। ওই ছবিতে কালী বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে তার যুগলবন্দি রীতিমতো কাঁদিয়েছিল দর্শকদের।

'মায়া মমতা', 'সুরের ভুবনে', 'সমাপ্তি', 'চোখের আলো', 'অন্তরঙ্গ', 'সাহেব' প্রভৃতি বিখ্যাত বাংলা সিনেমায় তিনি অভিনয় করেছিলেন তাপস। ১৯৮১ সালে সাহেব ছবির জন্য তিনি পান ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড। বাংলার পাশাপাশি বলিউডের ছবিতেও কাজ করছেন তিনি। অবোধ ছবিতে মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতে অভিনয় করেছেন তিনি।

১৯৫৮ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর হুগলির চন্দননগরে জন্মগ্রহণ করেন তাপস পাল। তিনি বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে হুগলী মহসিন কলেজ থেকে জীববিজ্ঞানে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। ২০০৯ সালের ভারতীয় সাধারণ নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে টিকিট নিয়ে নির্বাচিত হয়ে কৃষ্ণনগর থেকে এমএলএ হন।

তাপস পালের মৃত্যুতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে নেমে এসছে শোকের ছায়া। শোক প্রকাশ করে অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক বলেন, আমরা অনেক ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছি। বেশ কিছুদিন ধরেই ওর শরীরটা খুব একটা ভালো ছিলো না। আর এখন এই খবরটি শোনার পর থেকে মনে হচ্ছে ঘোরের মধ্যে রয়েছি।

বহু ছবিতে তাপসের সহ-অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করছেন দেবশ্রী রায়। দেবশ্রী বলছেন, কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না তাপস নেই। আপনজনকে হারিয়ে ফেললাম। তাপস দা বাঙালি দর্শকের কাছে এমন একজন নায়ক যার ফুটপ্রিন্ট ততদিন থাকবে, যতদিন বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থাকবে।

অভিনেতা চিরঞ্জিত বলেন, এক ভাইকে হারালাম। পরপর ভাল অনেক সিনেমা করেছে ও। 'দাদার কীর্তি' ও 'সাহেব'র মতো সিনেমাগুলো ভোলা যায় না। কিন্তু শেষের দিকে ও হারিয়ে গেল। রাজনৈতিক একটা বক্তব্যের জন্য আড়ালে চলে গেল। আজ তার মৃত্যুর সংবাদ পেলাম। কিন্তু দেহ চলে গেলেও ওর আত্মা থেকে যাবে। খুব খারাপ লাগছে আমার।

অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত তার ফেসবুকে লিখেছেন, তাপসদা চলে গেলেন... একটা যুগ, একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময়ের অবসান। তাপসদার হাসি, অভিব্যক্তি আর অভাবনীয় অভিনয় ক্ষমতা বাঙালিকে চিরকাল আবিষ্ট করে রাখবে। একটা বড় ইতিহাসের অঙ্গ হয়ে থাকবে আমাদের সকলের প্রিয় তাপস দা। বাংলা সিনেমার অনেক দুর্দিনের দিনে ওনি সুদিন দেখিয়েছিলেন বাংলা সিনেমাকে, বাঙালি দর্শক কে।

তার ভুবনভোলানো হাসির ছোঁয়া সবার মনে জ্বলজ্বল করবে চিরদিন। অনেক স্নেহ, মমতা ,ভালবাসা পেয়েছি এই মানুষটার কাছে, তার স্ত্রী নন্দিনীদি-র কাছে।হয়তো অনেক বড় অভিমান নিয়ে চলে গেলেন এই মানুষটা, সবার অগোচরে, নিঃশব্দে। তুমি যেখানেই থাকো ভালো থেকো। We will miss you!

বিজনেস আওয়ার/১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে