করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
২১৮
৩৩
২০
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৪,২৯,৪৩৭
৮২,০৭৩
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬


রবির তালিকাভুক্তিতে শেয়ারবাজারের গভীরতা বাড়বে

১১:২০এএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রেজোয়ান আহমেদ : শেয়ারবাজারে বহূজাতিক কোম্পানির চাহিদা থাকলেও ২০০৯ সালের পরে এ জাতীয় কোন কোম্পানি তালিকাভুক্ত হয়নি। তবে দীর্ঘদিন পরে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) উদ্যোগে শেয়ারবাজারে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বহূজাতিক মোবাইল অপারেটর কোম্পানি রবি আজিয়াটা। এই কোম্পানির তালিকাভুক্তির মাধ্যমে শেয়ারবাজারের গভীরতা বাড়বে এবং বিনিয়োগকারীরা দীর্ঘমেয়াদে উপকৃত হবে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক শাকিল রিজভী বিজনেস আওয়ারকে বলেন, রবির শেয়ারবাজারে আসা ভালো খবর। এমন বহূজাতিক কোম্পানিগুলোর তালিকাভুক্তির মাধ্যমে শেয়ারবাজারের পিলার শক্ত হয় এবং বাজারের গভীরতা বাড়ে। একইসঙ্গে অন্যান্য ভালো কোম্পানিগুলো শেয়ারবাজারে আসতে আগ্রহী হয়। তাই ট্যাক্সে কিছু ছাড়া দিয়ে হলেও রবিকে তালিকাভুক্ত করা যৌক্তিক হবে। বৃহৎ স্বার্থে এই ছাড় দেওয়া উচিত।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি রবি আজিয়াটার শেয়ারবাজারে আসার কথা ঘোষনা দিয়েছে মূল মালিক মালয়েশিয়ার কোম্পানি আজিয়াটা মালয়েশিয়া। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর রবি শুধুমাত্র অভিহিত মূল্যে শেয়ারবাজারে আসতে চায়। এ কোম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকা মূল্যে ইস্যুর মাধ্যমে ৩৮৭ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা সংগ্রহের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এতে সহযোগিতা বা ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করবে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের ইতিহাসে বহূজাতিক কোম্পানিগুলোর ট্রেক রেকর্ড খুব ভালো। সুশাষনের কারনে ওই কোম্পানিগুলোর ব্যবসা যেমন ভালো, একইভাবে লভ্যাংশ প্রদানের হার দেশীয় কোম্পানিগুলোর থেকে অনেক বেশি। এছাড়া বহূজাতিক কোম্পানিগুলো নগদ লভ্যাংশে বিশ্বাসী। প্রতারণার জন্য বা প্রকৃত ব্যবসায়িক চিত্র আড়াল করার জন্য বোনাস শেয়ার দেয় না।

এ বিষয়ে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম খায়রুল হোসেন বিজনেস আওয়ারকে বলেন, কমিশন রবি আজিয়াটা ও ওয়ালটনের মতো কোম্পানির তালিকাভুক্তিতে আন্তরিক। এ জাতীয় কোম্পানিকে তালিকাভুক্তিতে কমিশন প্রয়োজনে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিতে প্রস্তুত। এছাড়া ওইসব কোম্পানির ফাইল গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। আগামিতে এ জাতীয় কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে আনার জন্য মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোসহ স্টক এক্সচেঞ্জকে আহবান করেন তিনি।

ভালো কোম্পানি তালিকাভুক্তিতে কমিশনের আন্তরিকতার প্রমাণ পাওয়া গেছে ওয়ালটনের ক্ষেত্রে। এ কোম্পানিটিকে অন্যসব কোম্পানির থেকে অনেক কম সময়ে বিডিংয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া এই কমিশনই রবিকে তালিকাভুক্তিতে আসার জন্য উৎসাহ দিচ্ছে।

নিম্নে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বহূজাতিক কোম্পানিগুলোর চিত্র তুলে ধরা হল-

বাংলাদেশে বহূজাতিক ইউনিলিভার, বাংলালিংকের মতো দেশীয় সিটি গ্রুপ, আনোয়ার গ্রুপ, আকিজ গ্রপের বিভিন্ন কোম্পানি ভালো ব্যবসা ও মুনাফা করছে। এছাড়া স্কয়ার গ্রুপের অতালিকাভুক্ত ভালো কোম্পানি রয়েছে। শেয়ারবাজারে কর সুবিধা থাকা সত্ত্বেও ওইসব কোম্পানি তালিকাভুক্ত আগ্রহী না। এদের আগ্রহী করার জন্যও কেউ কাজ করছে না।

বিভিন্ন কমপ্লায়েন্স পরিপালন ও কর ফাকিঁ দেওয়া বন্ধ হওয়ার ভয়ে বড় এবং ভালো কোম্পানিগুলো শেয়ারবাজারে আসতে অনাগ্রহি। এছাড়া শেয়ারবাজারে ভালো কোম্পানি তালিকাভুক্ত হচ্ছে না বলে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন তোলা হলেও স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে শুরু করে কেউ এই সমস্যারোধে দৃশ্যমান সহযোগিতার হাত বাড়ায়নি। যাতে বহূজাতিক কোম্পানিগুলোও তালিকাভুক্তির বাহিরে রয়ে গেছে। এই সমস্যা কাটিয়ে তুলতে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

ডিএসইর আরেক পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বিজনেস আওয়ারকে বলেন, রবির মতো কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে সাধুবাদ জানাই। এমন কোম্পানির তালিকাভুক্তির প্রত্যাশা দীর্ঘদিনের। এ জাতীয় কোম্পানির আগমনে শেয়ারবাজার শক্তিশালী হবে এবং বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়বে। এছাড়া বিনিয়োগকারীরা দীর্ঘমেয়াদে উপকৃত হবে। তাই রবি এবং ওয়ালটনের মতো কোম্পানিকে যত তালিকাভুক্ত করা যাবে, ততই উপকৃত হবে শেয়ারবাজার।

অজিয়াটার তথ্য মতে, দেশে রবির সেবাগ্রহীতার সংখ্যা এখন ৪ কোটি ৭৩ লাখ, যা দেশের মোট গ্রাহক সংখ্যার প্রায় ৩০ শতাংশ। মালয়েশিয়ার কোম্পানি আজিয়াটা রবির ৬৮ দশমিক ৭ শতাংশ শেয়ারের মালিক।

বিজনেস আওয়ার/২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/আরএ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

মঙ্গলবার শেয়ারবাজারে ১৬ ব্যাংকের বিনিয়োগ
শেয়ারবাজারে ধীরে ধীরে ব্যাংকের বিনিয়োগ বাড়ছে

উপরে