করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
১৬৪
৩৩
১৭
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৩,৪৯,৮৭৭
৭৪,৮২০
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬


আমি কী চোর, প্রশ্ন মাশরাফির!

০৩:৩৬পিএম, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক : বিশ্বকাপ থেকে বিপিএল পর্যন্ত মাশরাফিকে ছোঁড়া সংবাদ মাধ্যমের প্রশ্নবান জিম্বাবুয়ে সিরিজেও অব্যাহত থাকবে, বিষয়টি আগে থেকেই অনুমেয় ছিল। শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে আদতে হলোও তাই।

আগামীকাল রোববার থেকে সিলেটে অনুষ্ঠেয় ওয়ানডে সিরিজকে সামনে রেখে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে টাইগার দলপতির কাছে জানতে চাওয়া হলো তার শেষ ১০ ম্যাচের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি কতটুকু সন্তুষ্ট? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মেজাজ হারালেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের দিন বদলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

উল্টো সংবাদ মাধ্যমকে পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে জানতে চাইলেন, আমি কী চোর? আমি কী চুরি করি মাঠে? আমি কী চোর? খেলার সঙ্গে লজ্জা, আত্মসম্মান– আমি এসব মিলাতে পারি না। উইকেট আমি নাই পেতে পারি। আমার সমালোচনা আপনারা করবেন, সমর্থকরা করবে। লজ্জা পেতে হবে কেন?

আমি কী বাংলাদেশের হয়ে খেলছি নাকি অন্য কোনো দেশের হয়ে খেলছি যে আমার লজ্জা পেতে হবে? আমি পারিনি আমাকে বাদ দিয়ে দিবেন। জিনিসটা তো সাধারণ। এখন কথা হচ্ছে, আমার লজ্জা, আত্মসম্মানবোধ আমি কার সঙ্গে দেখাতে যাবো। আমি তো বাংলাদেশের হয়ে খেলতে নামছি। আমি কী বাংলাদেশের মানুষের বিপক্ষের কেউ? যে কেউই পারফর্ম নাই করতে পারে।

তার কোনো জায়গায় কমতি থাকলে সেগুলো নিয়ে প্রশ্ন থাকতেই পারে। খারাপ করলে সমালোচনা হবে, এটা সারা বিশ্বেই হচ্ছে। কিন্ত কথাটা যখন আসে লজ্জা আত্মসম্মানে, তখন আমার প্রশ্ন থাকে। আমার সমালোচনা করুক, কিন্তু আমার আত্মসম্মানবোধের প্রশ্ন আসছে কেন? আমি কী অন্য দেশের হয়ে খেলছি? তা তো না। সুতরাং এই জিনিসটার সঙ্গে আমি মোটেও এক মত না।

ওয়ানডে ফরম্যাটে বাংলাদেশের হয়ে সবশেষ ম্যাচটি খেলেছিলেন বিশ্বকাপে। বিশ্বমঞ্চে ৮ ম্যাচ খেলে ১টি উইকেট নিয়েছিলেন ম্যাশ। তার আগে আয়ারল্যান্ডে খেলা ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ দুই ম্যাচও ছিলেন উইকেট শূন্য। বিশ্বকাপে মাশরাফির পারফরম্যান্সহীনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন সতীর্থ সাকিব আল হাসানও।

দেশের প্রথম সারির একটি দৈনিককে বলেছিলেন, অধিনায়ক পারফরম্যান্স না করলে দলের জেতা কঠিন হয়ে যায়। আমাদের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। প্রায় ৮ মাস পর মাঠে গড়ানো ওয়ানডে সিরিজের ঠিক আগের দিন (২৯ ফেব্রুয়ারি) সেই সম্পুরক ব্যাপারটিই মাশরাফিকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি এভাবেই উত্তর দেন।

সংবাদ সম্মেলনে নিজের ক্রিকেট চিন্তা, সামনের ক্যারিয়ার, সম্ভাব্য অবসর প্রসঙ্গে অনেক কথা বললেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ওয়ানডে অধিনায়কের বলা সেই কথাই ছিল অনেক প্রশ্নের সরাসরি উত্তর। তার বক্তব্যে মিলল লুকিয়ে থাকা অনেক দুঃখের স্পষ্ট প্রকাশ!

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তিনটি ম্যাচ জিতেছিল। কিন্তু দলের খেলোয়াড় হিসেবে মাশরাফি ছিলেন পুরো ফ্লপ। বিশ্বকাপে তার ম্লান পারফরম্যান্স, ফিটনেস সঙ্কট, বিসিবির ভবিষ্যৎ চিন্তা- এসবকিছুর যোগফলে বারবার সামনে এসেছে একটাই প্রশ্ন- মাশরাফি কবে অবসরে যাচ্ছেন?

বিসিবি এই বিষয়ে নিজেদের সিদ্ধান্তও একরকম জানিয়ে দিয়েছে। কিন্তু মাশরাফি তার অবসর প্রসঙ্গে চূড়ান্ত কিছু এখনও জানাননি। বলেছেন- এখনো খেলে যেতে চান তিনি।

আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজের পরে মাশরাফিকে আবার জাতীয় দলে বিসিবি বিবেচনা করবে কিনা- সেই প্রশ্নও বেশ জোরে-সোরে উঠেছে। যদি এই সিরিজে ভালো পারফরম্যান্স করেন তাহলে হয়তো মাশরাফির সম্ভাবনা টিকে থাকবে।

এমনই এক প্রশ্নে মাশরাফি সাফ জানিয়ে দিলেন- দেখুন আমি পারফর্ম করবই এমন গ্যারান্টি দিতে পারব না। এই গ্যারান্টি পৃথিবীর কেউই দিতে পারবে না। তবে একটা গ্যারান্টি দেওয়া যায় যে আমি শতভাগ চেষ্টাটা করছি কিনা।

বিজনেস আওয়ার/২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে