ঢাকা, রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬


'মানুষের কষ্ট বোঝার ক্ষমতা নেই আওয়ামী লীগের'

০২:৩৫পিএম, ০১ মার্চ ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : মানুষের দুঃখ-দুর্দশা, ব্যথা-বেদনা ও কষ্ট বোঝার ক্ষমতা আওয়ামী লীগের নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার (১ মার্চ) দুপুরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, তারা এমন পর্যায়ে চলে গেছেন যে, তাদের লোকজনদের ঘর থেকে, গোডাউন থেকে শত শত কোটি টাকা পাওয়া যাচ্ছে। তাদের এখন সাধারণ মানুষের দুঃখ-দুর্দশা, ব্যথা-বেদনা, কষ্ট বোঝার শক্তিও নেই।

এর আগে শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) দেওয়া এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পানি-বিদ্যুতের দাম সামান্য বাড়ানো হয়েছে। এতে জনজীবনে খুব একটা প্রভাব পড়বে না।’

এ বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, তারা জনগণ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। জনগণের দুঃখ-দুর্দশা এখন তাদের কাছে কোনো ব্যাপার নয়। আমরা বহুবার বলেছি, এই দলটি এখন ব্যাংক-রাপ্ট (দেউলিয়া) হয়ে গেছে। তারা মানুষের কষ্টটা বুঝতে পারে না।

যেটাকে উনি (ওবায়দুল কাদের) সামান্য বলছেন, এটা যে একজন সাধারণ মানুষের জন্য কত অসামান্য, সেটা বোঝার শক্তি তাদের নেই। তারা বুঝবেন না মানুষের কষ্ট। এখন কানাডায় বাড়ি, ইংল্যান্ডে বাড়ি, নিউইয়র্কে বাড়ি— এগুলোই তাদের প্রায়োরিটি।

জনগণের কোনো ম্যান্ডেট না নিয়েই জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে তারা। দেশের গণতান্ত্রিক সব প্রতিষ্ঠান ভেঙে দিচ্ছে। এবং অত্যন্ত সচেতনভাবে বাংলাদেশকে একটা অকার্যকর রাষ্ট্র পরিণত করছে। আমরা যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করছি, লড়াই করছি তাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে দানবীয়, একনায়কতান্ত্রিক, স্বৈরাচারী সরকারকে পরাজিত করতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি এবং করছি। আমরা মনে করি, তিনি শুধু বিএনপির নেতা নন, তিনি সমগ্র দেশের নেতা। তিনি গণতন্ত্রের মুক্তির নেতা। সেই কারণে তার অসুস্থতা আমাদের সবাইকে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন করেছে।

আমরা দুই বছর ধরে চেষ্টা করছি তাকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করার জন্য। অন্যদিকে রাজনৈতিকভাবে মুক্ত করার চেষ্টাও অব্যাহত রয়েছে। এই ফ্যাসিস্ট সরকার আজকে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে আটকে রেখেছে। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই তারা বেগম খালেদা জিয়াকে জামিন দিচ্ছে না। আমরা বিশ্বাস করি জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়েই খালেদা জিয়া মুক্ত হবেন।

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান শুধু স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েই নিজের রাজনৈতিক জীবনের ইতি টানেনি, বিপ্লবের মধ্য দিয়ে জনগণ তাকে রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব দিয়েছেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি বাংলাদেশের রাজনীতিতে, বাংলাদেশের অর্থনীতিতে যাদের বিরাট ভূমিকা রয়েছে, তাদের ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করেছেন।

ফখরুল বলেন, জিয়াউর রহমান তার সংক্ষিপ্ত রাজনৈতিক জীবনে সব পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে যে উন্নয়ন সূচনা করেছিলেন, তার ফলশ্রুতিতে হিসেবে আমরা দেখছি, বাংলাদেশ আজ শত প্রতিকূলতার মধ্যেও একটা জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে। প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর ভিত্তিপ্রস্তর তৈরি করেছিলেন।

বিজনেস আওয়ার/০১ মার্চ, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে